ব্রেকিং নিউজ
Home » জাতীয় » আওয়ামী লীগে কোন্দল : বেশির ভাগ সংঘর্ষ কমিটি গঠন নিয়ে
আওয়ামী লীগে কোন্দল : বেশির ভাগ সংঘর্ষ কমিটি গঠন নিয়ে

আওয়ামী লীগে কোন্দল : বেশির ভাগ সংঘর্ষ কমিটি গঠন নিয়ে

অনলাইন ডেস্ক:

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরীণ সংঘর্ষ থামছেই না। প্রায় প্রতিদিনই দেশের কোথাও না কোথাও পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, সংঘর্ষ, রক্তপাত বা প্রাণহানি ঘটছে। গত রবি ও সোমবার পাঁচ জেলায় দলীয় নেতাকর্মীদের বিবাদে প্রাণ হারিয়েছেন দুজন, আহত হয়েছেন ৫৬ জন।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, এসব সংঘর্ষের বেশির ভাগই ঘটছে দলের তৃণমূলের সম্মেলন ও কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে বিবাদের কারণে।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের দ্বন্দ্বেও এসব সংঘর্ষ হচ্ছে।

kalerkanthoআওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘অভ্যন্তরীণ সংঘাত অনভিপ্রেত। তবে আওয়ামী লীগ অনেক বিস্তৃত একটা দল। নানা ধরনের এজেন্ডা নিয়ে নানা ধরনের লোক এখানে এসেছে। সে বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে। তবে আমাদের কেন্দ্রীয় নেতারা সংঘাতের বিষয়ে কাউকেই প্রশ্রয় দিচ্ছেন না। দলের সভাপতিরও এ বিষয়ে কঠোর নির্দেশনা রয়েছে। ’

একাধিক সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে, চলতি বছরে আওয়ামী লীগের এবং এর সহযোগী সংগঠনগুলোর নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে অন্তত ৮৪ বার। এতে ১৩ জন নিহত ও ৯৮২ জন আহত হয়েছেন।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) হিসাব মতে, বছরের প্রথম ৯ মাসে অর্থাৎ গত ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ৬১টি সংঘর্ষে জড়ান। এতে ছয়জন নিহত ও ৮০১ জন আহত হয়েছেন।

গত সোমবার দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে দুই পক্ষের সংঘর্ষে ১০ নেতাকর্মী আহত হন। তাঁদের মধ্যে চারজনের অবস্থা গুরুতর। একই দিন লক্ষ্মীপুরের রামগতি উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতারা। সম্মেলনস্থলে কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই সংঘর্ষে জড়ান নেতাকর্মীরা। এতে ১২ জন আহত হন।

সোমবার সংঘর্ষে জড়ান সিলেট মহানগরের নেতাকর্মীরাও। নগরীর ১৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষ বাধে। এতে পাঁচজন আহত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে দুইজন সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি হন। একই দিন দুপুরে কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলা কমিটি গঠন নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়ায় ছাত্রলীগের দুই পক্ষ। এতে ২০ নেতাকর্মী আহত হন।

গত রবিবার নাটোরের সিংড়ার সুকাশ ইউনিয়নে আধিপত্য বিস্তারের দ্বন্দ্বে সংঘর্ষে জড়ায় আওয়ামী লীগের দুই পক্ষ। এতে দুজন নিহত ও তিনজন আহত হন। ২০১৯ সালেও এ দুই পক্ষের সংঘর্ষের সময় একজনের পা কেটে নেওয়া হয়। একই দিন দুপুরে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীর জয়াগ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন পণ্ড হয়ে যায় দুই পক্ষের সংঘর্ষের কারণে। দুই দফা মারামারিতে ছয় নেতাকর্মী আহত হন।

হামলার শিকার এক কেন্দ্রীয় নেতাও

তৃণমূলে আধিপত্যের দ্বন্দ্বে হামলার শিকার হয়েছেন আওয়ামী লীগের এক কেন্দ্রীয় নেতাও। গত ৪ অক্টোবর শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে হামলার শিকার হন দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য আবদুল আউয়াল শামীম। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়, তিনটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। মারধর করা হয় ২৫ জন নেতাকর্মীকে। শরীয়তপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাকের সমর্থকরা এ হামলা চালায় বলে অভিযোগ তোলেন আবদুল আউয়াল শামীম।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, ‘সমাজে পরমতসহিষ্ণুতা এবং অপরের প্রতি সম্মান প্রদর্শনের মানসিকতা দিন দিন কমে আসছে। এটি একটি সামাজিক ব্যাধি। আওয়ামী লীগ সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন কোনো দল নয়। সুতরাং এই ব্যাধিতে আমরাও আক্রান্ত। তবে এখনো আওয়ামী লীগে তুলনামূলকভাবে অভ্যন্তরীণ সংঘাত কম। এর থেকে উত্তরণের পথ হচ্ছে দল ও সমাজে পরমতের প্রতি সম্মানবোধের রাজনৈতিক শিষ্টাচারের সংস্কৃতি উন্নত করার জন্য সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। ’

সূত্র: কালের কন্ঠ অনলাইন

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com