ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » উপজেলার খবর » উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ফিরে পররাষ্ট্র সচিব-মুহিবুল্লাহ হত্যা প্রত্যাবাসনে কোন প্রভাব পড়বেনা
উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ফিরে পররাষ্ট্র সচিব-মুহিবুল্লাহ হত্যা প্রত্যাবাসনে কোন প্রভাব পড়বেনা

উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে ফিরে পররাষ্ট্র সচিব-মুহিবুল্লাহ হত্যা প্রত্যাবাসনে কোন প্রভাব পড়বেনা

উখিয়া, কক্সবাজার, প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের উখিয়ায় রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ’র নিহত হওয়ার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের নেতৃত্বে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।তিনি ঢাকায় ফেরার পথে বিকালে কক্সবাজার বিমানবন্দরে গণমাধ্যমকর্মীদের বলেছেন,
মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনের ওপর কোনও প্রভাব পড়বেনা।
পররাষ্ট্র সচিব বলেন, ‘আমরা রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করে তাদের নেতাদের সঙ্গে কথা বলেছি। কথা বলেছি অজ্ঞাত বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত মুহিবুল্লার পরিবারের সঙ্গেও। তাদের নিরাপত্তার বিষয়টিও দেখা হচ্ছে। ক্যাম্পে কোনও ধরনের অনিয়মকে প্রশ্রয় দেওয়া হচ্ছে না। প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া শুরুর জন্যও বিভিন্ন বিষয়ে কাজ চলমান রয়েছে। ভাসানচর প্রক্রিয়ায় জাতিসংঘ যুক্ত হয়েছে। আস্তে আস্তে সবকিছু সরকারের নিয়ন্ত্রণে থাকছে।’
তিনি বলেন, ‘মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় জড়িত পাঁচ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। তাই এ ঘটনা প্রত্যাবাসনকে ব্যাহত করতে পারবে না।’
আলোচিত মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর মাঠ পর্যায়ে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে আসা প্রতিনিধিদলটি কক্সবাজারে দুই দিনের সফরের অংশ হিসেবে দ্বিতীয় দিন শনিবার (৯ অক্টোবর) সকালে মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনাস্থল কুতুপালংয়ের লম্বাশিয়া ক্যাম্প ১-ইস্টে পৌঁছান।
সেখানে তারা সরেজমিনে মুহিবুল্লাহ নিহত হওয়ার ঘটনাস্থল আরকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস এন্ড হিউম্যান রাইটস এর কার্যালয় পরিদর্শন করেন।এসময় পররাষ্ট্র সচিব নিহত মুহিবুল্লাহর ছোট ভাই হাবিব উল্লাহর সঙ্গে কথা বলেন।
পাশাপাশি প্রতিনিধি দলের সদস্যরা স্থানীয় রোহিঙ্গাদের সঙ্গেও কথা বলেছেন। এরপর, প্রতিনিধিদলটি ক্যাম্প প্রশাসন ও সংশ্লিষ্টদের সাথে ক্যাম্প-৪ ইনচার্জ এর কার্যালয়ের কনফারেন্স রুমে এক মতবিনিময় সভায় মিলিত হন।
প্রতিনিধি দলে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন ছাড়াও ছিলেন পশ্চিম ইউরোপ এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নের মহাপরিচালক ফায়াজ মুর্শিদ কাজি, পররাষ্ট্র সচিবের দফতরের মহাপরিচালক মো. আলীমুজ্জামান ও সহকারী সচিব শোয়াইব-উল ইসলাম তরফদার।
এর আগে শুক্রবার (০৮ অক্টোবর) দুপুরে বিমানযোগে কক্সবাজারে পৌঁছান প্রতিনিধিদলটি। বিমানবন্দরে গণমাধ্যমকর্মীদের এক প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্র সচিব জানান, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সৃষ্ট অপ্রীতিকর ঘটনার কারণ গুরুত্ব সহকারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।এসময় তিনি বলেন,‘মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডে কোনো মহলের প্ররোচনা রয়েছে কিনা সেটাও জানার চেষ্টা চলছে, এটি একটি ‘অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা’।মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কোনো ধরনের প্রভাব পড়বে না বলে মন্তব্য করে পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন আরও বলেন, মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় জড়িত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে। তাই এ ঘটনা প্রত্যাবাসনকে ব্যাহত করতে পারবে না।কক্সবাজারের এক প্রশাসনিক কর্মকর্তা জানান, “সম্পূর্ণ অনাকাঙ্ক্ষিত ওই ঘটনা নিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যেন কেউ বাংলাদেশের ভাবমূর্তিকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে না পারে, সে জন্য সরকারের তরফ থেকে সম্ভাব্য সব কিছু করা হচ্ছে।”মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর রোহিঙ্গা ক্যাম্প সরকারের উচ্চ পর্যায়ের পক্ষ থেকে এটিই প্রথম সফর।শনিবার বিকেলে বিমানযোগে ঢাকার উদ্দেশ্যে প্রতিনিধিদলটি কক্সবাজার ত্যাগ করার কথা রয়েছে। এরপর ঢাকায় ফিরে গণমাধ্যম এবং কূটনীতিকদের আনুষ্ঠানিকভাবে পরিদর্শন নিয়ে বিস্তারিত ব্রিফিং করবেন পররাষ্ট্র সচিব।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*