ওয়াসার মালিকানায় থাকা রাজধানীর ২৬টি খালের দায়িত্ব চান দুই মেয়র

0
1

অনলাইন ডেস্ক:

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের মেয়র ওয়াসার মালিকানায় থাকা রাজধানীর ২৬টি খালের দায়িত্ব নিতে চান।এই দুই জনপ্রতিনিধি মনে করেন খালের মালিকানা হাতে পেলে নগরে জলাবদ্ধতা থাকবে না। স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলামের সঙ্গে গতকাল বুধবার কারওয়ান বাজার এলাকায় জলাবদ্ধতা পরিস্থিতি দেখতে গিয়ে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের দুই মেয়র এই দাবি জানিয়েছেন।

ওয়াসা ও পানি উন্নয়ন বোর্ডকে উদ্দেশ্য করে মেয়র তাপস বলেন, ‘আইন অনুযায়ী দায়িত্ব আমাদের কাছে হস্তান্তর করুন। আমরা দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার মাধ্যমে ঢাকাবাসীকে জলাবদ্ধতার অভিশাপ থেকে মুক্তি দেব।’

স্থানীয় সরকার (সিটি করপোরেশন) আইন-২০০৯-এর দুটি ধারা উল্লেখ করে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘সিটি করপোরেশন এলাকায় পানি নিষ্কাশন, জলাধার সংরক্ষণ ও রক্ষণাবেক্ষণে আমরা দায়বদ্ধ। কিন্তু ঢাকা ওয়াসা ও পানি উন্নয়ন বোর্ড সেই দায়িত্ব নিজেদের আওতায় রেখে দিয়েছে। আইন অনুযায়ী তারা আমাদের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করছে না, আবার তারাও সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করছে না।’

ডিএসসিসি মেয়র এ সময় স্থানীয় সরকার মন্ত্রীকে পাউবো ও ওয়াসার হয়ে উপস্থাপিত উন্নয়ন কার্যক্রমগুলো সরেজমিন পরিদর্শনের অনুরোধ করলে মন্ত্রী তাতে সায় দেন। এরপর বিকেলে তাঁরা ডিএসসিসির ১৪, ২২ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের খাল ও পাম্প স্টেশন পরিদর্শনে যান। পরে সোনারগাঁও হোটেলের পাশে হাতিরঝিল স্লুইস গেট পরিদর্শনে যান।

কারওয়ান বাজার এলাকা পরিদর্শনের সময় ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘খাল খননের মাধ্যমে কালশী ও কাওলা এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসন করা হয়েছে। স্থানীয় সরকার মন্ত্রীকে বলেছি যে ওয়াসা থেকে আমাদেরকে খালগুলো দিয়ে দিন। আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়ে এসেছি। আমরা কথা দিতে পারি, এই খাল আমরা পুনরুদ্ধার করব। ড্রেন থেকে খাল এবং খাল থেকে নদীতে আমরা সংযোগ করব।’

জলাবদ্ধতা পরিদর্শনকালে মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, ‘ড্রেনের পাইপ যতটুকু মোটা করা হয়েছে, বর্তমান প্রেক্ষাপটে তা আরো বাড়াতে হবে। খাল ভালোভাবে পরিষ্কার করার দিকেও দৃষ্টি দেওয়া দরকার।’

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ