ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » কার বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগ নেতার অবস্থান নিয়ে তোলপাড়
কার বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগ নেতার অবস্থান নিয়ে তোলপাড়

কার বিরুদ্ধে আওয়ামীলীগ নেতার অবস্থান নিয়ে তোলপাড়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি:
আসন্ন নাটাই ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আ.লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর বিপক্ষে মাঠে নামার অভিযোগ উঠেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া এক আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের নাটাই দক্ষিন ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটেছে। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নাজমুল হক ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি। তার প্রতিদ্বন্দ্বী মোটরসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী শাহ আলমের পক্ষে অবস্থান নিয়েছেন জেলা পরিষদের সাবেক সদস্য ও সদর উপজেলা আ.লীগের উপদেষ্ঠা বাবুল মিয়া।
অভিযোগ, ইউপি নির্বাচনে প্রতিক বরাদ্দের পর থেকেই প্রতিদ্বন্দ্বী মোটরসাইকেল প্রতীকের প্রার্থী শাহ আলমের নির্বাচনী সভায় যোগ দেন।  তার ফেসবুকে ছবিসহ এ বিষয়ে বিভিন্ন পোস্ট দেন। এর পরই বিষয়টি নিয়ে আওয়ামিলীগের নেতৃবৃন্দের মধ্যে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। চলছে নানান আলোচনা-সমালোচনা।
নৌকা না পাওয়ার পরও স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ায় শাহ আলমকে জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য পদ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।
এবিষয়ে সদর উপজেলা আ.লীগের উপদেষ্ঠা বাবুল মিয়া বলেন, নৌকার মনোনীত প্রার্থী নাজমুল হক বিগত নির্বাচনে নৌকার বিরুদ্ধে প্রার্থী ছিলেন কিভাবে এবার উনি নৌকা প্রতীক পেয়েছেন ইউনিয়নবাসীর প্রশ্ন? তিনি কখন আওয়ামীলীগ করতেন উনি বিএনপির সমর্থনে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর কিভাবে আবার ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি নির্বাচিত হল সেই প্রশ্ন সকলের মনে, নাজমুল হক বিগত পাঁচ বছর যাবত সভাপতি হওয়ার পর আজ পর্যন্ত কোনদিন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ থেকে একটি পরিচিতি সভা থেকে শুরু করে মিছিল-মিটিং সহ একটি ওয়ার্ড কমিটি প্রকাশ করতে পারলো না। নাজমুল হক নৌকা প্রতীক পাওয়ার পর আ.লীগের কোন নেতার সাথে যোগাযোগ করেনি বরং নৌকাকে তার নিজস্ব সম্পত্তি মনে করে বিভিন্ন যায়গা মন্তব্য করে যাচ্ছে। তাই ইউনিয়নবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে মোটরসাইকেল প্রতিকের নির্বাচন করছি।
এবিষয়ে আ.লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিকের প্রার্থী নাজমুল হক বলেন, প্রথম দিক থেকেই নৌকার বিরোধিতা করে বিদ্রোহী প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণা চালিয়েছেন তারা। ‘আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন। সেই প্রতীক নৌকা ডোবাতেই তৎপর হয়েছেন তারা। তাদের এমন কর্মকাণ্ড আমাকে হতাশ করেছে।
এ ব্যাপারে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ এইচ মাহাবুব আলম বলেন, কেউ নৌকার বিরোধিতা করলে তিনি বহিষ্কার হবে, এটা নিশ্চিত। আমাদের নেতা জেলা আ.লীগের সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর কঠোর নির্দেশনা অনুযায়ী নৌকার বিপক্ষে যারা অবস্থান নিবে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না।
জেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয়ে সূত্রে জানা যায়, স্থগিত হওয়া নাটাই দক্ষিন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে ১৫ জুন।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com