ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » কুষ্টিয়ায় ২ পতিতাসহ ৫ দালাল চাঁদাবাজ চক্রের ৭ সদস্য র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার

কুষ্টিয়ায় ২ পতিতাসহ ৫ দালাল চাঁদাবাজ চক্রের ৭ সদস্য র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি :
কুষ্টিয়া অনৈতিক কাজের উদ্দেশ্যে বাসায় ডেকে এনে নগ্ন অবস্থায় ভিডিও ধারন করে ইন্টারনেটে ছেড়ে দেওয়ার কথা বলে হুমকি দিয়ে চাদা আদায় কারী চক্রের ২ জন পতিতা সহ ৫ জন দালাল চক্রের সদস্য সহ মোট ৭ জন র‍্যাবের হাতে গ্রেফতার হয়েছে।
সোমবার ২৮ ডিসেম্বর বেলা ১২ টার সময় কুষ্টিয়া র‍্যাব ক্যাম্পে এক প্রেস ব্রিফিংয়ের মাধ্যমে নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব -১২ কুষ্টিয়া ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়ান্ড্রন লিডার মোহাম্মদ ইলিয়াস খান।
গ্রেফতারকৃতরা হলেন কুষ্টিয়া শহর তলীর চৌরহাস জগতী এলাকার মৃত আব্দুস সাত্তারের মেয়ে রেহেনা আক্তার ওরফে বুড়ি (৪০),  চৌরহাস ফুলতলা এলাকার মৃত জাফর আলীর মেয়ে কুসুম খাতুন ওরফে কাজল (২৫), চৌরহাস ফুলতলা এলাকার আশরাফ আলীর ছেলে তরিকুল ইসলাম (৩০),একই এলাকার মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে রাসেল আহমেদ (৩০), কুষ্টিয়া কলেজ মোড় এলাকার আইয়ুব মালিথার ছেলে আলেক চাঁদ (২৪), ডিসি কোর্ট এলাকার এলাকার মৃত রফিকুল ইসলামের ছেলে আবির হাসান স্বাধীন (১৯), জগতী পোস্ট এলাকার ঝন্টু সেখের ছেলে পারভেজ শেখ (২২)।
র‍্যাব সুত্রে জানা যায়, দুইজন যুবককে বাসায় খারাপ কাজের উদ্দেশ্যে নিয়ে এসে জোরপূর্বক তাদের আটকে নগ্ন অবস্থায় ভিডিও ধারণ করে তাদের কাছ থেকে টাকা দাবি করা  হচ্ছে । এমন অভিযোগের ভিত্তিতে  কুষ্টিয়া র‍্যাব-১২ কোম্পানি কমান্ডার  স্কোয়াড্রন লিডার  মোহাম্মদ ইলিয়াস  খানের নেতৃত্বে  র‍্যাবের একটি চৌকস অভিযানিক দল  বিকাশের টাকা দেওয়ার সূত্র ধরে আধুনিক টেকনোলজি ব্যবহার করে নাম্বার লোকেশন ট্র্যাক করে  ঘটনাস্থলে একজন মহিলা সহ দুই যুবককে আটক করা হয়। সিসি টিভি ক্যামেরার ফুটেজের মাধ্যমে সনাক্ত হয় মহিলা এই প্রতারনা চক্রের সাথে জড়িত। পরে আটককৃত মহিলা রেহেনা আক্তার বুড়ির স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার বাসায় অভিযান পরিচালনা করে ভুক্তভোগী দুই যুবক সহ আরও একজন মহিলা সহ ৩ জন সাংবাদিক পরিচয়দানকারী যুবককে আটক করা হয়।
নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক একাধিক সুত্র জানায়, রেহেনা আক্তার ওরফে বুড়ি পারভেজ সেখের আপন ফুফু। তারা বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন পরিচয় দিয়ে এই ধরনের কার্যকলাপ পরিচালনা করে আসছিলো৷ রেহেনা আক্তার বুড়ি ও তার ভাইয়ের ছেলে পারভেজের নামে কুষ্টিয়া মডেল থানায়, মাদক, অপহরণ সহ পর্নগ্রাফী মামলা রয়েছে। রেহেনা আক্তার বুড়ির ২ টি মেয়ে ও ২ টি ছেলে থাকা সত্তেও সে সেগুলো গোপন করে ডিভোর্সী পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন ব্যবসায়ী ও অর্থবিত্তদের টার্গেট করে গোপনে বিয়ে করতেন। বিয়ের কয়েকমাস না যেতেই বিভিন্ন অশান্তি সৃষ্টি করে ও নারি নির্যাতন,যৌতুক আইনে মামলার ভয় দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা নিয়ে তাদের সাথে ডিভোর্স করে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ পর্যন্ত তার প্রায় ৩-৫ টি বিয়ে করার কঠাও জানা গেছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিলো।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com