ব্রেকিং নিউজ
Home » জাতীয় » পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য বরগুনা পৌরসভায় স্বাস্থ্য সেবা কাডের্র উদ্ভোধন

পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য বরগুনা পৌরসভায় স্বাস্থ্য সেবা কাডের্র উদ্ভোধন


এম আর অভিঃ বরগুনা পৌরসভায় সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য অত্যাবশ্যকীয় স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে হেল্থ ভাউচার স্কিম কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার (১৯ সেপ্টম্বর, ২০২০) বিকাল ৪ টায় পৌর অফিস কার্যালয় হল রুমে ইএইচডি প্রকল্পের উদ্যোগে হেল্থ ভাউচার স্কিম কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করা হয়। যুক্তরাজ্যের দাতা সংস্থা ইউকে এইড-এর সহযোগিতায়, কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড-এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে পার্টনারস ইন হেলথ্ এন্ড ডেভেলপমেন্ট (চঐউ)-এর ব্যবস্থাপনায়, “সুবিধাবঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য অত্যাবশ্যকীয় স্বাস্থ্যসেবা” প্রকল্পের পক্ষ থেকে বরগুনা পৌরসভাস্থ পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর জন্য হেল্থ ভাউচার স্কিম কার্যক্রমের এর শুভ সুচনা করা হয় ।ইএইচডি প্রকল্পের উদ্যোগে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরগুনা পৌরসভার মেয়র মো. শাহাদত হোসেন, অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড কান্ট্রি ডিরেক্টর ফিয়না ম্যাক লিসেট, স্বাগত বক্তব্য রাখেন পিএইচডি ইএইচডি ব্যবস্থাপনা পরিচালক, আব্দুস সালাম, পিএইচডি, ইএইচডি সম্পর্কে আলোচনা করেন সুমন সেন গুপ্তা, ইএইচডি কনসুট্রিয়াম ডিরেক্টর,কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড,হেল্থ ভাউচারস্কিমসম্পর্কে আলোচনাকরেনহেল্থ ফাইনান্সিং এ্যাডভাইজার মোঃজাকির হোসেন,কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইড,অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন টিমলিডার, মুহাম্মদ এহসানুল হক, পিএইচডি-ইএইচডি,বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ হুমায়ূন শাহীন খান, , বরগুনা পরিবার পরিকল্পনা উপ-পরিচালক তাপশ কুমার শীল, পৌর সভার কাউন্সিলরবৃন্দ, এ সময় আরো শহর সমাজসেবা কর্মকর্তা মোঃ রুহুল আমিন ,পৌর-সচিব মোঃ রফিকুল ইসলাম, পৌর-বস্তি উন্নয়ন কর্মকর্তাকামাল হোসেন , ইপিআই সুপারভাইজার জান্নাতুল ফেরদৌস ডেইজি, পিএইচডি-ইএইচডির বিভাগীয় কর্মসূচীস মন্বয়কারী মোঃ মোমেন খান, স্বাস্থ্য সমন্বয়কারী মোঃ বদিউজ্জামান ,প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার ব্যাক্তিবর্গসহ বরগুনা পৌরসভারঅন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাবৃন্দ উপসিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি পৌর-মেয়র মোঃ শাহাদত হোসেন বলেন “সুবিধা বঞ্চিত জনগোষ্ঠীর জন্য অত্যাবশ্যকীয় স্বাস্থ্যসেবা প্রকল্পের পক্ষ থেকে বরগুনা পৌরসভায় প্রায় ২৫০০ পরিবার বিনামূল্যে স্বাস্থ্য সেবা ও ঔষধ পাবে এটা আমাদের জন্য অনেক বড় একটা পাওয়া। এতে করে আমার পৌরসভার লোকজন স্বাস্থ্যসেবা প্রাপ্তির ক্ষেত্রে অনেক বড় একটা সুযোগ পাবে এবং একদিকে যেমন মানুষের চিকিৎসা প্রাপ্তির হার বাড়বে অন্যদিকে মাতৃ মৃত্যু ও শিশু মৃত্যুর হার কমবে। তাই আমি বলবো যারা এই সেবাটা দিবেন তাদের কে দায়িত্ব নিয়ে গুরত্ব সহকারে সেবা দিতে হবে।আমি পিএইচডি কে অনুরোধ করবো যারা যারা এই সুবিদার আওতাভুক্ত হবে তারা যেন সহজে এই সুবিদা পেতে পারে তার জন্য প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা নেবেন।তিনিই এইচডি প্রকল্পের জন্য শুভ কামনা এবং ভবিষ্যতে যে কোন প্রয়োজনে সহায়তার প্রতিশ্রুতি প্রদান করে। উল্লেখ্য যে, কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইডএরসার্বিকতত্ত্বাবধানে যুক্তরাজ্যের দাতাসংস্থা ইউকে এইড এর সহযোগিতায় পার্টনারস ইন হেলথ্ এন্ড ডেভেলপমেন্ট(পিএইচডি)-বরিশালবিভাগের ৩টি জেলার মোট ৮টি উপজেলায় এই প্রকল্পের বাস্তবায়ন কারীসংস্থা হিসেবে কাজ করছে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*