Saturday , 20 July 2024
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ
পৌরসভা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে খাল বন্ধ করে বরগুনায় রাস্তা নির্মানের অভিযোগ

পৌরসভা কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে খাল বন্ধ করে বরগুনায় রাস্তা নির্মানের অভিযোগ

এম আর অভি, বরগুনা প্রতিনিধি:
বরগুনা পৌরসভা কর্র্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে প্রবাহমান খাল বন্ধ করে খালের উপর রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ পাওয়াগেছে।পৌর-শহরের অদূরে বরগুনা সদর ইউনিয়নের বরগুনা মৌজায় শাহা কেরামতিয়া দাখিল মাদ্রাসার দক্ষিণ পাশে পাজরাভাঙ্গার খাল নামের এ খালটির অবস্থান। বরগুনা পৌরসভা কর্তৃপক্ষ বায়োগ্যাস ও জৈবসার কারখান (ময়লা রিসাইক্লিন স্পট) স্থাপন করতে এ খালের কিছু অংশ অধিগ্রহন করেন বায়োগ্যাস ও জৈবসার কারখান স্থাপন করেন।
অভিযোগ সুত্রে জানাগেছে, ৩০নং বরগুনা মৌজায় শাহা কেরামতিয়া দাখিল মাদ্রাসার দক্ষিণ পাশে যুগযুগ ধরে প্রবাহমান পাজরাভাঙ্গার খাল বন্ধ করে বরগুনা পৌর-কর্র্তৃপক্ষ বালু দিয়ে ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ করছে। এর ফলে ঔই এলাকার ফসলী কৃষি জমি পানি সংকটের কারণে অনাবাধি থাকার আশংকা রয়েছে। তাছাড়া যেখানে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ রয়েছে খালপুন:রুদ্ধারের সেখানে কতিপয় আসাধু ব্যক্তি খাল দখল করে রাস্তা নির্মান করছে। খালটি বালু দিয়ে ভরাট করায় ঐ এলাকার কৃষকেরা পানি সংকটে ভুগছে।
গত ৮ মার্চ সোমবার স্থানীয় ক্রোক গ্রামের বাসিন্দা জায়েদা বেগম ও রুহুল আমিন বরগুনা জেলা প্রশাসক বরাবরে এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ করেন। এই পাজরাভাঙ্গার খালটি বরগুনা সদর ইউনিয়নের হেউলিবুনিয়ার খাল হইতে শাখা প্রবাহিত হয়ে চালিতাবুনিয়া খালের সাথে মিলিত হয়েছে।
স্থানীয় বাসিন্দা কৃষক মনু মৃধা বলেন, কৃষক মরুক তাতে বড় লোকের কি? তারা তো বেশি দামে জমি বিক্রি করে দেবে। খাল দখল করে রাস্তা নির্মান করা হচ্ছে দেখার কেউ নেই । আমার জমির ফসল নষ্ট হচ্ছে। আমরা পানির অভাবে বীজতলা তৈরি করতে পারছিনা। আমরা গরীব কৃষক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাই।
স্থানীয় কৃষক শানু খাঁ বলেন, সাবেক পৌর-মেয়র শাহাদাত হোসেন অপরিকল্পিত ভাবে এখানে বায়োগ্যাস ও জৈবসার কারখান (ময়লা রিসাইক্লিন স্পট) স্থাপন করেছে। আমরা বাধাঁ দিলে খালের মত বড় ড্রেন করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বায়োগ্যাস ও জৈবসার কারখান (ময়লা রিসাইক্লিন স্পট) স্থাপন করে। কিন্তু এখন তো দেখি এর বিপরীত ড্রেন না করে উল্টো খাল বন্ধ করে রাস্তা নির্মান করছে।
তিনি আর বলেন, খাল না থাকলে ফসল হবে না। মারা পড়বে কয়েক হাজার কৃষক। নষ্ট হবে কৃষি জমি, কর্ম হারাবে কয়েক হাজার কৃষক-কৃষানী।
স্থানীয় শফিকুল ইসলাম বলেন, খালের উপর রাস্তা নির্মান করায় বীজ বপন করতে পারে নাই এলাকার কৃষকেরা। এ এলাকার কৃষি জমি আজ মরুভূমিতে পরিনত হয়েছে। পানি উঠাতে পারছে না কোন কৃষক। বীজ তলা নষ্ট হয়েগেছে অনেক কৃষকের। কয়েকবার এলাকার কৃষকদের বীজ নষ্ট হয়েছে।
অভিযোগকারী রুহল আমীন বলেন, সাবেক পৌর-মেয়র শাহাদাত হোসেন অপরিকল্পিত ভাবে এখানে বায়োগ্যাস ও জৈবসার কারখান (ময়লা রিসাইক্লিন স্পট) স্থাপন করেছে। এখানে বর্জ্যসহ পয়:নিস্কাষনের কোন ব্যবসাথা রাখেনি। প্রথমে আমরা বাঁধা দিয়ে ছিলাম । এতে পৌর-কর্তৃপক্ষ মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে খাল দখল করে রাস্তা নির্মান করছে। খালের উপর রাস্তা নির্মান করা হলে ক্ষতিগ্রস্ত হবে কৃষি জমি ও কৃষক।
এ ব্যাপারে বরগুনা পৌরসভার মেয়র মো. কামরুল আহসান মহারাজ জানান, অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেব।
বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, অভিযোগ পেয়েছি ,ব্যবস্থা নেব। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)কে এ বিষয়টি দেখার জন্য বলা হয়েছে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply