Thursday , 13 June 2024
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ
প্রাচ্যের মানবিকতা ও সংস্কৃতির প্রাণশক্তি দিয়ে বিশ্বকে গড়তে হবে- উপাচার্য ড. মশিউর রহমান
--প্রেরিত ছবি

প্রাচ্যের মানবিকতা ও সংস্কৃতির প্রাণশক্তি দিয়ে বিশ্বকে গড়তে হবে- উপাচার্য ড. মশিউর রহমান

গাজীপুর প্রতিনিধিঃ

প্রাচ্যের নিজস্ব মানবিকতা ও ঐতিহ্যপূর্ণ সংস্কৃতির প্রাণশক্তি দিয়ে বিশ্বকে গড়ে তুলতে হবে। আগামী পৃথিবীতে নেতৃত্ব দেবে এই প্রাচ্যের আদলে গড়ে তোলা তরুণেরা। আমাদের শিক্ষার্থীরা উচ্চশিক্ষায় আগ্রহী। তাদেরকে প্রাচ্যশক্তিতে বলীয়ান করে মানবিক শিক্ষার্থী হিসেবে তৈরি করতে হবে। খুলনার ঐতিহ্যবাহী সরকারি ব্রজলাল কলেজের ইংরেজি বিভাগের শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন উপাচার্য। ১৭ মে ২০২৪ তারিখ কলেজ মাঠে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উপাচার্য ড. মশিউর রহমান বলেন, আমরা পাশ্চাত্যের শক্তি দেখছি। চতুর্থ শিল্পবিপ্লব এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এর যুগে শুধুমাত্র প্রযুক্তি আর আধুনিকতায় সমৃদ্ধ হলেই সেই দেশ সেরা বা আদর্শ সেটি ভাবার কোনো কারণ নেই। কোভিড উত্তর পৃথিবীতে আমরা ভেবেছিলাম আর কোনো যুদ্ধ দেখব না। পুঁজিবাদের ছোবল আর কোনো রাষ্ট্রের উপর পরবে না। কিন্তু আমরা দেখলাম রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ করছে। ফিলিস্তিনের উপর হামলে পরছে ইসরাইল। শিশু, নারীসহ হাজার হাজার মানুষকে যুদ্ধাস্ত্র দিয়ে হত্যা করছে। এক রাতে মিয়ানমার লক্ষ লক্ষ মানুষকে শরণার্থী বানিয়েছে। এই সময়ে এসে ৫০ জন অধ্যাপককে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশ গ্রেপ্তার করে এবং শিক্ষার্থীরা ক্লাস রুম ছেড়ে রাজপথে নেমে আসে। যেখানে পৃথিবীর সর্বোচ্চ মেধাবী শিক্ষকরা পড়ায় সেই ক্লাসরুমের শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা রাজপথে। শিক্ষকরা পুলিশি নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের এই যুগে কী তা হওয়ার কথা? কিন্তু হচ্ছে। পৃথিবীর অন্য কোথাও শিশু নির্যাতন, মাকে হত্যা, বাবাকে হত্যা, যুদ্ধাস্ত্রের ব্যবহার, মাদকের ব্যবহার চলছে।

উপাচার্য বলেন, কিন্তু আমরা সেই ক্লাসরুমও চাই না যেখানে ইসরাইল ইস্যুতে শিক্ষার্থীদের রাজপথে বেরিয়ে আসতে হয়। শিক্ষককে গ্রেপ্তার করতে হয়। আমরা সেরকম একটি ক্লাসরুম চাই যেখানে দাঁড়িয়ে একজন শিক্ষার্থী বলতে পারে পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমার একরাতে লক্ষ লক্ষ মানুষকে শরণার্থী করে আর বাংলাদেশ মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে তাদের আশ্রয় দেয়। আমরা সেই ক্লাসরুম চাই যেখানে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের ইতিহাস পড়ানো হয় এবং প্রাচ্যের আত্মশক্তিকে বলীয়ান করার জন্য নিজেদের ইতিহাস সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়। আমরা সেই ক্লাসরুম চাই যেখানে মানবিক পৃথিবী তৈরির সকল উপকরণ থাকবে।

কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক শরীফ আতিকুজ্জামানের সভাপতিত্বে সম্মানিত অতিথি বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ড. সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, সহযোগী অধ্যাপক ড. জয় সিং, অধ্যাপক সমীর কুমার দেব, সহযোগী অধ্যাপক রোকসানা খানম প্রমুখ। অনুষ্ঠানস্থল ইংরেজি বিভাগের প্রাক্তন ও বর্তমান শিক্ষার্থীদের পদচারণায় ছিল মুখরিত। ইংরেজির এলামনাইগণ পুরো দিনটিকে আনন্দের সাথে উপভোগ করেন।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply