ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » বরগুনায় আগুন থেকে রক্ষা পেতে মসজিদে ১৪ পরিবার
বরগুনায় আগুন থেকে রক্ষা পেতে মসজিদে ১৪ পরিবার
--প্রেরিত ছবি

বরগুনায় আগুন থেকে রক্ষা পেতে মসজিদে ১৪ পরিবার

বরগুনা প্রতিনিধিঃ
অলৌকিক ভাবে আকস্মিক আগুন লেগে পুড়ে যাওয়ার আতঙ্ক বরগুনা সদর ইউনিয়নের পোটকাখালী নামের একটি গ্রাম। ওই গ্রামের একটি বাড়ীতে ১৪টি পরিবারের বসত ঘরের বিভিন্ন স্থানে হঠাৎ থেমে থেমে
আগুন জ্বলে উঠছে। আর এ অজানা আগুনে পুড়ে যাচ্ছে ঘরে রাখা তাদের ব্যবহ্রত জামা-কাপড়, কাঁথা-বালিশসহ অন্যান্য জিনিসপত্র। এ আগুনের হাতে থেকে রেহাই পেতে ওই বাড়ির ১৪ টি পরিবার (১৯ নভেম্বর )
শুক্রবার দুপুরে শহরের হযরত শাহ কেরামত আলী (র.) জৈনপুরী জামে মসজিদ ও খানকাহ শরীফে আসেন । ওই গ্রামের ১৪টি পরিবার যাতে এ আগুন থেকে রক্ষা পায় সে জন্য এখানে দোয়া-মোনাজাত হয় । পরে প্যানেল মেয়র রইসুল আলম রিপন ভিডিও কলে জৈনপুরী হুজুরের সাথে বিষয়টি আলাপ করেন। বাড়ির মালিক রিয়াজ জানান, এ বছরের ১৪ অক্টোবর থেকে আমাদের বাড়িতে ১৪টি ঘরে একের পর এক অলৌকিক ভাবে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে। ১ মাস ৭ দিন যাবত আমরা খুব কষ্টের মধ্যে জীবন যাপন করছি। আজকেও সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ১৪ বার আগুন লেগেছে। জেলা প্রশাসন ,উপজেলা প্রশাসন,ফায়ার সার্ভিস এর লোকজন গিয়েছিল । কিন্তু কিছুতে আমরা আগুনের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছি না। ঘরে আগুন লাগে তাই সবকিছু নিয়ে বাহিরে নেমেছি সেখানেও আগুন ধরছে। ঘরে শুধু একটি ফ্রিজ ছিল, তাতেও আগুন ধরেছে। আমরা তাই জৈনপুরী হুজুরের সাথে দেখা করতে এসেছি। বাড়ির মালিক সেন্টু  জানান, যেখানে আগুনে লাগছে তাই পুড়ছে। আমার পড়নের কাপড়
জামা ছাড়া সবই পুড়েছে। আগুন লাগলে পানি দিলে নিবে যায়। আগে কম আগুন লাগত । বর্তমানে এ অলৌকিক আগুন বার বার লাগছে।
এই ঘটনায় এলাকায় জ্বীন -ভুতের আগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। রাত জেগে পাহাড়াও দিয়েছে মানুষ। অবশেষে ঝাঁড়-ফুকদিয়ে ৩৫ বাড়ীর জ্বীন-ভূত তাড়ালো খলিল নামের এক ওঝা। তবে তাতেও কোন কাজ হয়নি
এমনটি জানিয়েছে ওই বাড়ির লোকজন । উল্লেখ্য সদর উপজেলার পোটকাখালী গ্রামে গত ১মাস যাবৎ একটি বাড়ীর ১৪টি বসতঘরে এখানে-
ওখানে আগুন জ্বলে । পুড়ে যাচ্ছে কাঁথা ,বালিশ, শীতবস্ত্র, শাড়ী, লুঙ্গি ইত্যাদি। অবিশ্বাস্য হলেও সত্যি -অলৌকিক আর ভৌতিক ঘটনা। এ ধরনের ঘটনা বিরল। হঠাৎ আগুন আগুন চিৎকার। একটি ঘরে কাপড়ে আগুন লেগেছে। নিভানো হলো, আবারও  চিৎকার, আগুন আগুন! কোন উৎসই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা। অবহিত করা হলো ফায়ার সার্ভিসকে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের উপস্থিতিতে আবারও আগুন আগুন
আওয়াজ! ঘটনাস্থল থেকে বিদায় নেবার পূর্বে আবারও আগুন। বালিশে আগুন লেগেছে! আগুন নিভাতে গিয়ে পুড়ে গিয়েছে এক গৃহবধূর হাতের তালু, গাছের পাতা, ঘরে রাখা জাল, পরিধেয় শাড়ী।
আতংকিত হয়ে পড়েছিল ঐ বাড়ী সহ এলাকাবাসী।

 

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com