ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » অপরাধ ও দূর্নীতি » বাড়ছে চুরি, মাদক পাচার, চিন্তিত প্রশাসন ও অভিবাবক
বাড়ছে চুরি, মাদক পাচার, চিন্তিত প্রশাসন ও অভিবাবক

বাড়ছে চুরি, মাদক পাচার, চিন্তিত প্রশাসন ও অভিবাবক

রামু-কক্সবাজার  -: বাড়ছে চুরি, মাদক পাচার, চিন্তিত প্রশাসন ও অভিবাবক, নাইক্ষ্যংছড়ি ও রামু জুড়ে বাড়ছে চুরির ঘটনা। বাড়ছে মাদক পাচারকারীদের দৌরাত্ম্য।
গেল প্রবল বর্ষায় ও চলমান কভিট -১৯ করোনায় সরকার ঘোষিত লকডাউন এ এসব অপকর্মের সীমা ছাড়িয়ে অতিমাত্রায় চুরির ঘটনা ঘটেছে বলে সাধারণ মানুষ মনে করছে।   
দেখাগেছে বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ইউনিয়নের দক্ষিণ বাইশারী ৭নং ওয়ার্ডে তাহমিনা আক্তার ( ২৯ ), পিতাঃ মৃত্যু আমান উল্লাহ, মাতা – মনোয়ারা বেগম এর ঘরে চুরির ঘটনা ঘটেছে।ভুক্তভোগী তাহমিনা আক্তার জানান, গেল বৃহস্পতিবার ২৯ জুলাই ২০২১, রাত আনুমানিক ১০ ঘটিকার পর তাদের বসতবাড়িতে দুর্ধর্ষ চুরির ঘটনা ঘটেছে। তাদের বাড়ীতে চোরের দল হানা দিয়ে ২ টা মোবাইল (১ টা এন্ড্রোয়েড ) ১ টা নরমাল i Tel ও নগদ টাকা হাতিয়ে নিয়ে যায় একই ইউনিয়নের হারুন ( ২১ ) , পিতা – মিঠা হাসেম , সাং দক্ষিণ বাইশারী , ০৭ নং ওয়ার্ড। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে দেখা গেছে ভুক্তভোগী তাহমিনা আক্তার নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় একখানা অভিযোগ ও করেছে চুরির ঘটনায়।এ ব্যাপারে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ইনচার্জ অফিসার ( ওসি ) মোঃ আলমগীর হোসেন জানান, চুরির ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করেছে, পুলিশ ইতিমধ্যেই চোরদের চিহ্নিত করে ধরতে তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে, শীঘ্রই চোরদের আইনের আওতায় আনা হবে।
এদিকে ইয়াবা ও  মাদক পাচারকারীদের নতুন পথ হিসেবে নাইক্ষ্যংছড়ি-রামুর বিভিন্ন সীমান্ত ব্যবহার করছে বলে বিশ্বস্তসুত্রে জানা গেছে। এরই অংশ হিসেবে  গত ২ই আগস্ট সোমবার বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে ইয়াবাসহ এক মাদক কারবারিকে আটক করেছে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা পুলিশ। জানাগেছে সোমবার  রাত ১১টায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডস্থ পুরাতন বাস স্টেশনে পুলিশের টহল অবস্থা এবং গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ তল্লাশি চালিয়ে ইয়াবাসহ এক মাদককারবারিকে আটক করতে সক্ষম হয়। এসময় তার কাছ থেকে ১৯শত ৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার ওসি মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন ।আটককৃত মাদক কারবারী কক্সবাজার জেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের নাদের পাড়ার মনছুর আলীর পুত্র রশিদ আহাম্মদ(৩৭)।
আটককৃত ইয়াবার আনুমানিক মূল্য ৫ লক্ষ ২৫ হাজার টাকা হবে বলেও জানান পুলিশ । আটককৃতের বিরুদ্ধে থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রুজু করার পর মঙ্গলবার সকালে উদ্ধারকৃত আলামতসহ আটককৃত আসামীকে বান্দরবান জেলে প্রেরণ করা হয়েছে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে। 
চলমান মাদক কারবারীদের মাদক পাচারে ভিন্ন ভিন্ন কৌশলে পুলিশ প্রশাসন খুবই চিন্তিত হয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্টজনেরা। মূলত এই কারণে সহজেই মাদককারবীদের পরাস্ত করতে পারছে না বলে মানুষের ধারণা। 
অন্যদিকে করানোর জন্যই, মাদকচক্রের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছেন কেউ কেউ। অসাধু করবারে জড়িয়ে অর্থ উপার্জনের চেষ্টা করছেন তারা। যার মুনাফা লুটছে অসাধু ব্যবসায়ীদের চক্র।তাদের মতে, চুরি এবং মাদক পাচারের ঘটনা ঠেকাতে হলে, পুলিশকে আরও সজাগ দৃষ্টি দিতে হবে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*