ব্রেকিং নিউজ
Home » জাতীয় » ‘মাদক ও অস্ত্র ব্যবসা পুরোপুরি বন্ধ করতে প্রয়োজনে গুলি ছুড়তে হবে’
‘মাদক ও অস্ত্র ব্যবসা পুরোপুরি বন্ধ করতে প্রয়োজনে গুলি ছুড়তে হবে’
--ফাইল ছবি

‘মাদক ও অস্ত্র ব্যবসা পুরোপুরি বন্ধ করতে প্রয়োজনে গুলি ছুড়তে হবে’

অনলাইন ডেস্ক:

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ‘রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মাদক ও অস্ত্র ব্যবসা পুরোপুরি বন্ধ করতে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আমার প্রস্তাব হলো, এই ড্রাগ ও অস্ত্র আসা পুরোপুরি বন্ধ করতে প্রয়োজনে গুলি ছুড়তে হবে।’ গতকাল শুক্রবার সিলেটে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গা ক্যাম্প এবং ক্যাম্পের বাইরের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি আরো উন্নত করতে গত বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সভাপতিত্বে একটি বড় সভা হয়েছে। এরপর (আজকের) দুর্ঘটনা, এটা তো আতঙ্কের বিষয়।’ তিনি আরো বলেন, ‘অনেক লোক (রোহিঙ্গা) ফেরত যেতে চায় না, তাদের স্বার্থে আঘাত লাগে। তারা হয়তো এসব অঘটন ঘটাচ্ছে। আমি ঠিক জানি না, জানতে হবে।’ তাঁর ধারণা, প্রত্যাবাসন ঠেকাতে এসব অঘটন ঘটানো হচ্ছে।

গতকাল দুপুরে সিলেটের বালুচরে সিলেট হার্ট ফাউন্ডেশন হাসপাতালে উচ্চ রক্তচাপ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণসংক্রান্ত সচেতনতামূলক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন। ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ ও জালালাবাদ অ্যাসোসিয়েশন যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

মহিব উল্লাহ হত্যার সঙ্গে পরবর্তী সন্ত্রাসী তৎপরতা কিংবা অপকর্মের যোগসাজশ রয়েছে কি না—এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন নথি বলছে, ওখানে মাদকের ব্যবসা হয়, উইপন, বন্দুকটন্দুক আনা-নেওয়া হয়। আমরা এসব নিয়ে গতকাল আলোচনা করেছি। আমার প্রস্তাব হলো, এই ড্রাগ ও অস্ত্র আসা পুরোপুরি বন্ধ করার জন্য প্রয়োজনে গুলি ছুড়তে হবে।’

ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক, ব্রিগেডিয়ার (অব.) আব্দুল মালিকের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন সংসদ সদস্য হাফিজ আহমদ মজুমদার, হাবিবুর রহমান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সিলেটের পরিচালক ডা. হিমাংশু লাল রায় প্রমুখ।

দেশে করোনার পর্যাপ্ত টিকা আনা হয়েছে জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে দেশের ৫০ ভাগ নাগরিককে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন আমরা পেয়েছি। অনেকগুলো এখন লাইনআপে আছে। এ নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। তবে সবাইকে স্বাস্থ্যসচেতন হতে হবে।’

গত মঙ্গলবার ভারত তিস্তা ব্যারাজের গজলডোবা অংশের সব গেট খুলে দেয়। বাংলাদেশকে কিছু না জানিয়েই গেটগুলো খুলে দেওয়ায় আকস্মিক বন্যার কবলে পড়ে দেশের উত্তরাঞ্চল। তিস্তার পানি এভাবে হুট করে বাংলাদেশে ছেড়ে দেওয়া প্রসঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন বলেন, ‘আজ আমাদের স্বরাষ্ট্রসচিব ভারতীয় হাইকমিশনের সঙ্গে আলাপ করবেন। একাধিক ইস্যু আছে। পানির বিষয়টি আগে আমাদের জানিয়েছিল কি না, আমি জানি না। তবে একাধিক বিষয় নিয়ে আলাপ হবে। আমাদের দুই দেশের মধ্যে রাজনৈতিক, সরকারি সম্পর্ক খুবই দৃঢ়। কিন্তু বিভিন্ন গোষ্ঠী বা ব্যক্তিবিশেষের কারণে অনেক সময় ঝামেলা হয়। আমরা এ নিয়ে আলোচনা করব (ভারতের সঙ্গে)।’

আগামী রবিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢাকা-সিলেট চার লেন মহাসড়কের উন্নয়নকাজের উদ্বোধন করবেন বলেও এ সময় তিনি জানান।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

WP2Social Auto Publish Powered By : XYZScripts.com