Saturday , 15 June 2024
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ
রাসুল (সা.) যেভাবে রমজানের প্রস্তুতি নিতেন

রাসুল (সা.) যেভাবে রমজানের প্রস্তুতি নিতেন

অনলাইন ডেস্ক:

শাবান রমজানের আগাম প্রস্তুতির মাস। ইসলামের দৃষ্টিতে শাবান মাস বিভিন্ন কারণে বিশেষ গুরুত্ব ও তাৎপর্যপূর্ণ। এ মাসকে মহানবী (সা.) ‘শাবানু শাহরি’ (শাবান আমার মাস) বলে অভিহিত করেছেন। মহানবী (সা.) শাবান মাস থেকেই রমজানের প্রস্তুতি নিতেন। তাঁর রমজানের প্রস্তুতি ছিল মূলত তিন ধরনের :

১. দোয়া : রজব ও শাবানজুড়েই তিনি রমজানের অধীর অপেক্ষায় থাকতেন। এর ধারাবাহিকতায় রজবের শুরু থেকেই রাসুল (সা.) দোয়া করতেন, ‘আল্লাহুম্মা বারিক লানা ফি রজাবা ওয়া শাবান, ওয়া বাল্লিগনা রমাদান।’ (শুআবুল ইমান, হাদিস : ৩৫৩৪)

২. মানুষকে সজাগ ও সতর্ক করা : রমজানের আগে আসে শাবান মাস। আর রমজানের প্রস্তুতি হিসেবে রাসুল (সা.) শাবান থেকেই আমল শুরু করে দিতেন। এবং মানুষকে উদাসীনতার চাদর থেকে বেরিয়ে আসার তাগিদ দিতেন। তিনি বলতেন, বান্দার বার্ষিক আমলগুলো মহান আল্লাহর দরবারে উত্থাপিত হয় শাবান মাসে। উসামা ইবন জায়েদ (রা.) বলেন, ‘একদিন আমি রাসুলুল্লাহ (সা.)-কে প্রশ্ন করলাম, হে আল্লাহর রাসুল, আপনি শাবান মাসে যেভাবে রোজা রাখেন, অন্য মাসে তেমন রাখতে দেখি না। জবাবে রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, শাবান এমন একটি মাস, যা রজব ও রমজানের মাঝখানে আসে। আর এই মাস সম্পর্কে (সাধারণত) মানুষ উদাসীন থাকে। অথচ এই মাসেই আমলগুলো আল্লাহর দরবারে উপস্থাপন করা হয়। আমি চাই, রোজা অবস্থায়ই যেন আমার আমলনামা পেশ করা হয়।’ (নাসায়ি, হাদিস : ২৩৫৭)

৩. বেশি বেশি নফল রোজা রাখা : মাহে রমজানের প্রস্তুতি হিসেবে রাসুল (সা.) শাবান মাসে বেশি বেশি রোজা রাখতেন। উম্মু সালামা (রা.) বলেন, আমি শাবান ও রমজান ছাড়া রাসুল (সা.)-কে একটানা দুই মাসের রোজা পালন করতে দেখিনি। (তিরমিজি, হাদিস : ৭৩৬; সহিহ ইবন মাজাহ, হাদিস : ১৩৪৮)

উভয় হাদিসের সারমর্ম হলো—রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজানের প্রস্তুতিমূলকভাবে প্রায় পুরো শাবান মাস নফল রোজা রাখতেন। মহান আল্লাহ আমাদের আমল করার তাওফিক দান করুন।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply