ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » রিমান্ডের আদেশ শুনে অসচেতন হেফাজত নেতা, রিমান্ড ছাড়াই কারাগারে প্রেরণ

রিমান্ডের আদেশ শুনে অসচেতন হেফাজত নেতা, রিমান্ড ছাড়াই কারাগারে প্রেরণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের তান্ডবের ঘটনা গ্রেফতারকৃত দলটির জেলা কমিটির সহ দপ্তর সম্পাদক ও জামিয়া ইউনুছির মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মুফতী আবদুল হকের তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। 

বুধবার (১৬ জুন) বিকেলে জেলা জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আল আমিন তার তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ৩দিনের রিমান্ড মঞ্জুরের কথা শুনে আদালতে অচেতন হয়ে যান মুফতী আবদুল হক।

সদর মডেল থানার সাব ইন্সপেক্টর (এসআই) মোতালেব জানান, গত ২৬-২৮মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতে ইসলামের ব্যাপক তান্ডব চালানোর ঘটনায় গত ১০জুন মুফতী আবদুল হককে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পর তাকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বিজ্ঞ আদালতে ১০দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। আজ বুধবার বিকেলে বিজ্ঞ আদালত ৩দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শুনানিকালে আব্দুল হক উপস্থিত ছিলেন। শুনানি শেষে আদালতের এজলাস থেকে বের হয়ে বাইরে টেবিলের উপরে আসরের নামাজ আদায় করেন। নামাজের ভিতরে সে অসুস্থ হয়ে পড়েন। 

পরে তাকে চিকিৎসার জন্য  ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে আসলে জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তাকে ভর্তি দিয়েছেন।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক নাজমুল হক জানান, উনার প্রেসার-ডায়াবেটিস ভাল আছে। সেই ক্ষেত্রে অপশন থাকতে পারে দুইটি। এক রোগীর বর্তমান পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতির কারণে চিন্তায় এমন হতে পারে, দ্বিতীয়ত ব্রেইন স্ট্রোকের কারণে এমনটা হতে পারে। প্রাথমিক অবস্থায় চেক করার পর যতটুকু ধারণা করা হচ্ছে তিনি ব্রেইন স্ট্রোক করেননি। আমরা তাকে মেডিসিন বিভাগে ভর্তি দিয়েছি। এখন উনি সুস্থ আছেন। তিনি ইচ্ছে করলে চলে যেতে পারেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, তিনি শারীরিক ভাবে ভাল আছেন। আপাতত আব্দুল হককে রিমান্ড ছাড়াই আবার জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। শারীরিক ভাবে সুস্থ থাকলে আবার রিমান্ডে আনা হবে। এর আগে বুধবার বিকেলে বিজ্ঞ আদালত ৩দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*