Thursday , 20 June 2024
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ
লালপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পের চুরির মালামাল দিয়ে বিল্ডিং তৈরি
--প্রেরিত ছবি

লালপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পের চুরির মালামাল দিয়ে বিল্ডিং তৈরি

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধিঃ
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার লালপুরে মুজিব শতবর্ষ  উপলক্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের পূনর্বাসনের মালামাল চুরির ঘটনায়  আইয়ুব আলী ওরফে সারোয়ার সহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় অভিযোগ দাখিল করা হয়েছে।
গত ৩ এপ্রিল ২০২৩ তারিখ সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আব্দুর রউফ বাদী হয়ে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার লালপুর গ্রামের নুর মিয়ার ছেলে আইয়ুব আলী ওরফে সারোয়ার কে ১ নং আসামী করে সুনামগঞ্জ সদর থানায় ৩৮১/১১৪ পেনাল কোড ধারায় চুরির মামলা করেন। আইনের হাত থেকে বাচার জন্য মামলা হওয়ার সাথে সাথেই চতুর সারোয়ার   উচ্চ আদালতের ব্যারিষ্টার আবিদের স্মরনাপন্ন হয়ে একটি প্রত্যায়ন পত্র কোর্টে জমা দেন  ।
এই মামলার ২নং আসামী ইসরাইল পিতা আবুল জব্বার সাং লালপুর  নামের একজন সুনামগঞ্জ জেল হাজতে আছে।
সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের মালামাল চুরির মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, তৃতীয় ও চতুর্থ পযার্য়ের ১৪৭ টি গৃহ নির্মাণের জন্য  ৯,৫০,০০০০ (নয় লক্ষ পঞ্চাশ) হাজার ইট, ৫( পাঁচ) হাজার বস্তা সিমেন্ট, ৩( তিন) হাজার ঘনফুট ইটের খোয়া, ৩ (তিন) মে. টন রড এবং ২( দুই) হাজার সিএফটি কাঠ প্রকল্প স্থানে মজুদ রাখা হয়।
মজুদকৃত নির্মাণ সামগ্রী দেখা-শোনা করার জন্য ২ নং আসামী  ইসরাইল মিয়াকে দায়িত্ব প্রদান করা হয়। দায়িত্ব প্রাপ্তির কিছুদিন পর চোরাই সিন্ডিকেট চক্রের প্রধান আইয়ুব আলী ওরফে সারোয়ার ইসরাইল মিয়াকে মেনেজ করে ট্রলি দিয়ে ইট, রড, ইটের খোয়া, সিমেন্ট, কাঠ ইত্যাদি চুরি করে নিয়ে তার নিজ বসতবাড়িতে বিল্ডিং নিমাণ করেছে।
প্রকল্প নির্মাণে মালামালের ঘাটতি দেখা দিলে পুলিশ নিয়ে উপজেলা প্রশাসন চোর সারোয়ার মিয়ার বাড়ি থেকে ৫( পাঁচ) হাজার ইট, ৩( তিন) শত বস্তা সিমেন্ট, ১.৫০ (দেড়) টন রড, ১(এক) হাজার ঘনফুট ইটের খোয়া উদ্ধার করে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রকল্পের এক মেস্তুরি জানান, প্রতি রাতেই  সারোয়ার ট্রলি নিয়ে প্রকল্পের মালামাল চুরি করে নিয়ে দুর দুরান্তে বিভিন্ন ব্যক্তির কাছে বিক্রি করেছে।
মামলার বাদী সদর উপজেলা  প্রশাসনিক কমকর্তা কাজি আব্দুর রউফ জানান, আইয়ুব আলী ওরফে সারোয়ার লালপুর আশ্রয়ণ প্রকল্পের পাহারাদার ইসরাইল মিয়াকে মেনেজ করে প্রায় ৬/৭ লাখ টাকার মালামাল চুরি করে নিয়ে তার বাড়িতে বিল্ডিং নির্মাণ করেছে। পরে পুলিশ নিয়ে মালামাল উদ্ধার করেছি। প্রকল্পের নির্মাণ কাজের জন্য গজারিয়া নদী থেকে পঞ্চাশ হাজার ঘনফুট বালু উত্তোলন করে আমাদের কাছ থেকে এক লক্ষ ষোল হাজার ঘনফুট বালুর টাকা নিয়েছে। প্রকল্পের সামনে থেকে পেছনে ইট কেয়ারিংয়ের নামে আমাদের কাছ থেকে১( এক) লক্ষ টাকা এবং প্রকল্পের রাস্তায় মাটি ভরাটের নাম করে ২০( বিশ) হাজার টাকা নিয়েছেন সারোয়ার। তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার পর থেকে সে বিভিন্ন সময়ে প্রকল্পের কাজে বাঁধা সৃষ্টি করছে।
এ বিষয়ে মামলার এজহারে উল্লেখিত আসামী  সারোয়ারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে।
 সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মো ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, সারোয়ারের বাড়ি থেকে সব ধরনের মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুলতানা পারভীন জানান, আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার পর এলাকার স্থানীয় নাগরিক হিসেবে সারোয়ার কে রক্ষনাবেক্ষনে এবং মালামাল কেয়ারিং এর দায়িত্ব দিয়েছিলাম। সারোয়ার দায়িত্বের অপব্যবহার করে আশ্রয়ণ প্রকল্পের অনেক মালামাল সরিয়ে নেয়। পরবর্তীতে আমরা এ বিষয়ে জানতে পারলে, তার বাড়িতে অভিযান পরিচালনা করে ইট, ইটের খোয়া,  রড এবং সিমেন্ট  উদ্ধার করি। এ বিষয়ে সুনামগঞ্জ সদর থানায় সারোয়ার কে প্রধান আসামী করে চুরির মামলা করা হয়েছে। আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজে সে এখনও প্রতিনিয়ত বাধা সৃষ্টি করে আসছে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply