Tuesday , 29 September 2020
Home » জাতীয় » দ্বিতীয়বারের মতো নারী প্রধানমন্ত্রী পাচ্ছে যুক্তরাজ্য
দ্বিতীয়বারের মতো নারী প্রধানমন্ত্রী পাচ্ছে যুক্তরাজ্য

দ্বিতীয়বারের মতো নারী প্রধানমন্ত্রী পাচ্ছে যুক্তরাজ্য

প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে সর্বশেষ টিকে আছেন দুই নারী প্রার্থী। একজন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী টেরেসা মে, অন্যজন জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী অ্যান্ড্রিয়া লিডসন। ফলে চূড়ান্ত ফলাফলের জন্য অপেক্ষা না করেই বলা যাচ্ছে, আগামী দুই মাসের মধ্যে যুক্তরাজ্যবাসী একজন নারীকেই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পাচ্ছেন।
রানির দেশ যুক্তরাজ্যে নারী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার বিষয়টি অনেকটা বিরল। দেশটির ইতিহাসে এত দিন লৌহমানবীখ্যাত মার্গারেট থ্যাচারই ছিলেন প্রথম এবং একমাত্র নারী প্রধানমন্ত্রী। এবার দ্বিতীয় কোনো নারী হিসেবে টেরেসা মে অথবা অ্যান্ড্রিয়া লিডসন নতুন ইতিহাস গড়তে যাচ্ছেন।
ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ পার্টির এমপিদের দ্বিতীয় পর্বের ভোটাভুটিতে বিচারমন্ত্রী মাইকেল গোভ সর্বনিম্ন ৪৬ ভোট পেয়ে প্রতিযোগিতা থেকে ছিটকে পড়েন। মাইকেল গোভ ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) থেকে যুক্তরাজ্যের সদস্যপদ ত্যাগের পক্ষে অন্যতম প্রচারক ছিলেন। সর্বোচ্চ ১৯৯ ভোট পেয়ে শীর্ষে অবস্থান করছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নে (ইইউ) যুক্তরাজ্যের থাকার পক্ষে প্রচার চালানো টেরেসা মে। আর ইইউ ছেড়ে আসার পক্ষে প্রচার চালানো অ্যান্ড্রিয়া লিডসন ৮৪ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় অবস্থান ধরে রেখেছেন। ক্ষমতাসীন কনজারভেটিভ দলের ৩৩০ জন এমপির মধ্যে ৩২৯ জনই দলের পরবর্তী নেতা নির্বাচনে ভোট দিয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের স্থলাভিষিক্ত হওয়ার এই দৌড়ে মোট প্রার্থী ছিলেন পাঁচজন। তাঁদের মধ্যে গত মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত প্রথম পর্বের ভোটাভুটিতে ঝরে পড়েন সাবেক প্রতিরক্ষামন্ত্রী লিয়াম ফক্স এবং কর্ম ও পেনশনবিষয়ক মন্ত্রী স্টিফেন ক্র্যাব।
গত ২৩ জুন অনুষ্ঠিত গণভোটে ইইউ থেকে যুক্তরাজ্যের বিচ্ছেদের পক্ষে রায় যাওয়ার পর পদত্যাগের ঘোষণা দেন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন। ক্যামেরন ইইউতে থাকার পক্ষে প্রচার চালিয়েছিলেন। এরপরই নতুন নেতা নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয় ক্ষমতাসীন দলে। দ্বিতীয় মেয়াদে ক্ষমতায় বসার এক বছরের মাথায় ক্যামেরনের চলে যাওয়া তাঁর উত্তরসূরির জন্য এক বিরল সুযোগ সৃষ্টি করে। কেননা, দলের নেতা হওয়ার টিকিট পেয়েই তিনি প্রধানমন্ত্রীর পদে আসীন হবেন।
কনজারভেটিভ পার্টির নেতা নির্বাচনের নিয়ম অনুযায়ী, দুইয়ের বেশি প্রার্থী হলে দলের এমপিরা ভোটাভুটি করে প্রার্থীর সংখ্যা দুইয়ে নামিয়ে আনেন। এরপর দলের সাধারণ সদস্যদের সর্বোচ্চ ভোট পাওয়া প্রার্থী চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত হন। এমপিদের ভোটে উতরে যাওয়া টেরেসা মে এবং অ্যান্ড্রিয়া লিডসন এবার দলের সদস্যদের মুখোমুখি হবেন। দেশব্যাপী বিভিন্ন বিতর্ক অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে তাঁরা দল ও দেশের জন্য নিজ নিজ চিন্তা ও পরিকল্পনার কথা তুলে ধরবেন।
বর্তমানে কনজারভেটিভ পার্টির প্রায় দেড় লাখ সদস্য রয়েছেন। ডাকযোগে কিংবা অনলাইনে এসব সদস্য ভোট দেবেন। ভোট নেওয়া হবে আগামী ৯ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। ওই দিনই চূড়ান্ত ফলাফল ঘোষণা করে জানানো হবে কে গড়বেন যুক্তরাজ্যের দ্বিতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার ইতিহাস।

About Expert

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!