রাজধানী ও রাজরানী 

  1. রাজধানী ও রাজরানী

মনোয়াার হোসেন ভুইয়া

রাজধানী
তোমার সবই ছিল পুরনো ধুলোয় মলিন
তুমি মাখামাখি ছিলে শীতের রুক্ষতায়
বসন্তের আগমনী গান গাইতে দেখিনি কোনদিন তোমাকে!
তোমার বুকে সেই পুরনো সাইরেন রিকশার টুংটাং শব্দ
ভেঙ্গে পড়া শরীরের রুপাজীবারা দাঁড়িয়ে
এসবইতো তোমার রুটিন দৃশ্য।
রাজধানী
তোমার দুপাশের বাড়িগুলিতে একই কাহিনীর
আবর্তন
গভীর রাতে কর্তার বাড়ি ফেরা পাশ ফিরে ঘুমানো
আর তার স্ত্রীর পরস্ত্রীতে রুপান্তর!
রাজধানী
আরব বসন্ত তো দূর তোমার বীজাণুদের জীবনে
বসন্তই দূর্মূল্যের বাজারে এক বিলাসিতা।
কিন্তু একদিন সব বদলে গেল
তোমার শরীর বেয়ে এগিয়ে চললো
হেলেদুলে এক প্রেমের ফেরিওয়ালা
হ্যামিলনের সেই বাঁশিওয়ালার মতই।
তবে তার ঝোলায় প্রেমের বাঁশি
তার গন্তব্য তোমার এক গলিতে
সেখানে তার অপেক্ষায় কোন এক জনা।
মুঘল হেরেমের বেগমদের মতো নয়
এ অপেক্ষা বাইজাইন্টাইন সম্রাজ্ঞীর মতো
এ অপেক্ষা গৌরবের এ অপেক্ষা শিহরণের।
ভালোবাসার ফেরিওয়ালা তার ভালোবাসা সেই অনিন্দ সুন্দর পদতলে ঢেলে দিয়ে
আবার ফিরে গেল তার চেনা ডেরায়।
এরপর থেকে সেই গলিতে প্রেমের ফোয়ারা
চললো ভালোবাসার আতশবাজি।