কাশ্মীরের বাসিন্দারা রাস্তায় নেমে এসেছেন

কেন্দ্রীয় সরকারের কড়াকড়ি কিছুটা শিথিল হওয়ার পরই রাস্তায় নেমে এসেছেন ভারতের জম্মু-কাশ্মীরের বাসিন্দারা। বিক্ষোভ হয়েছে পাকিস্তানের আজাদ কাশ্মীরেও।

এদিকে ভারতকে নাৎসি জার্মানির সঙ্গে তুলনা করে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ভারতের পারমাণবিক অস্ত্র নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সতর্ক হওয়া উচিত। আর পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ-কাশ্মীর নিয়ে ইসলামাবাদের সঙ্গে বৈঠক হতে পারে বলে পাল্টা মন্তব্য করেছে নয়াদিল্লি।

গত ৫ই আগস্ট ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করে জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা কেড়ে নেয়ার পর থেকে ক্ষোভে ফুসছে ওই অঞ্চলের সাধারণ মানুষ। বিধি-নিষিধ কিছুটা শিথিল হওয়ার পর রবিবার রাজধানী শ্রীনগরের রাস্তায় বিক্ষোভ মিছিল হয়। এ সময় বিক্ষোভকারীরা বলেন, ধরপাকড় ও নির্যাতনে কাশ্মীরের স্বাধীকারের আন্দোলন দমিয়ে রাখা যাবে না।

এদিকে জম্মু-কাশ্মীরের বাসিন্দাদের প্রতি সংহতি জানিয়ে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ-কাশ্মীরের মুজাফফরাবাদে বিক্ষোভ করেন শত শত মানুষ। বিক্ষোভ হয়েছে করাচিতেও।

কাশ্মীর উপত্যকায় আংশিক টেলিযোগাযোগ ও ইন্টারনেট চালুর পর ৯৫টি স্কুল-কলেজ খুলে দেয়া হয়েছে। বিক্ষোভের পর বিভিন্ন জায়গায় বাড়ানো হয়েছে ধরপাকড় অভিযান। আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম বলছে গত ৫ই আগস্ট থেকে এ পর্যন্ত আটক করা হয়েছে ৪ হাজারের বেশি কাশ্মীরিকে।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকে হিটলার প্রশাসনের সঙ্গে তুলনা করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। দেশটির পারমাণবিক অস্ত্রাগারগুলোর নিরাপত্তা ও সুরক্ষার বিষয়টি বিশ্বকে অবশ্যই গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে, ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, যদি দ্বিপাক্ষিক আলোচনা হয়, তা জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে হবে না, হবে আজাদ-কাশ্মীর নিয়ে।

অন্যদিকে জম্মু-কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপধ্যায়। সোমবার মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে এক টুইট বার্তায় অঞ্চলটির সাধারণ মানুষের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন তিনি।