রাজবাড়ী রেলগেটে অবৈধ বাজার, ঝুঁকি নিয়ে চলছে যানবাহন

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধিঃ

রাজবাড়ী শহরে দুইটি রেলগেটে রয়েছে শতাধিক ভাসমান ও স্থায়ী দোকান। ওভার ব্রীজ থাকার পরও ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হচ্ছে সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন প্রকার যানবাহন। এতে যেকোন সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।

রাজবাড়ী শহরের ব্যস্ততম দুইটি রেলগেট। সাধারণ মানুষ চলাচলের জন্য রেলগেটে রয়েছে ওভার ব্রীজ। এই দুইটি রেলগেট ব্যবহার করে প্রতি মূহর্তে চলাচল করে শতশত রিক্সা, ভ্যান, অটো সহ বিভিন্ন প্রকার যানবাহন। চলাচল করে শতশত সাধারণ মানুষ। তবে এই রেলগেট এরিয়ার মধ্যেই রয়েছে প্রায় শতাধিক স্থায়ী ও ভাসমান দোকান। ট্রেন আসার পূর্বে গেটে থাকা গেটম্যান গেটে বেরিয়ার (প্রতিবন্ধকতা) নামালেও দেখা যায় রিক্সা, অটো ও সাধারণ মানুষ ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। এমনটি ঘটে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সামনে।

সাবেক রাজবাড়ী জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ব্যস্ততম রেলগেটে কিভাবে দোকান থাকে। এটা সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ম্যানেজ করেই সম্ভব। না হলে রেললাইনের উপর স্থায়ী ও ভাসমান দোকান বসানো সম্ভব নয়।

রাজবাড়ী সরকারী কলেজের শিক্ষার্থী সুমনা খাতুন বলেন, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এভাবে রেলগেট পারাপার হওয়া ঠিক না। তবুও অনেকে গেটে বেরিয়ার (প্রতিবন্ধকতা) নামানোর পরও ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হয়। গাড়ী চালকরাও চেষ্টা করে যাওয়ার। তিনি বলেন, এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের আরো দায়িত্বশীল হওয়া প্রয়োজন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে রাজবাড়ী রেলগেটের ভাসমান এক দোকানদার বলেন, জীবনের তাগিদে ঝুঁকি নিয়ে ব্যবসা করতে হয়। আর্থিক সংকটের কারণে স্থায়ী দোকান ভাড়া নিয়ে ব্যবসা করা সম্ভব নয়। তাই রেললাইনের উপর দোকান করে সংসার চালাতে হয়।

রেলগেটে অবৈধ দোকান থাকার কথা স্বীকার করে রাজবাড়ীর রেলওয়ের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. হাফিজুর রহমান বলেন, রেলগেটের দোকানগুলো খুব তারাতারি উচ্ছেদ করা হবে।