Thursday , 4 March 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » দেশগ্রাম » চা উৎপাদনে ১৬৫ বছর পর রেকর্ড ভাঙল বাংলাদেশ

চা উৎপাদনে ১৬৫ বছর পর রেকর্ড ভাঙল বাংলাদেশ

 
সকালবেলা অনলাইন ডেস্ক: উৎপাদনের ক্ষেত্রে ১৬৫ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে দেশের চা শিল্প। পরিসংখ্যান বলছে-সদ্য সমা্প্ত ২০১৯ সালে এ রেকর্ড ভাঙলো বাংলাদেশ।উৎপাদিত চা-এর পরিমাণ- ৯৫ মিলিয়ন (সাড়ে ৯ কোটি বা ১ লাখ ৪৭১৯ টন) কেজি।যা ২০১৮ সালের তুলনায় ১ কোটি ৪০ লাখ (১৪ মিলিয়ন) কেজি বেশি চা পাতার উৎপাদন হয়েছে।জানা গেছে, এবার বাংলাদেশ চা বোর্ড (বিটিবি)-এর উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল, ৮ কোটি কেজি। প্রয়োজনীয় বৃষ্টিপাত, অনুকূল আবহাওয়া, পোকা-মাকড়ের আক্রমণ না থাকা এবং খরার কবলে না পড়ার ফলে ২০১৯ সালের নভেম্বর পর্যন্ত সাড়ে ৯ কোটি কেজির বেশি চা পাতা উৎপাদিত হয়েছে। বাংলাদেশ চা বোর্ডের প্রকল্প উন্নয়ন ইউনিট (পিডিইউ) তথ্যটি তথ্যটি নিশ্চিত করেছে। বিটিবি সূত্রে জানা গেছে, ২০১৮ সালে উৎপাদিত চায়ের পরিমাণ  ৮ কোটি ২১ লাখ ৩০ হাজার (৮২.১৩ মিলিয়ন) কেজি। যা দেশের চা উৎপাদন মৌসুমের (২০১৮) দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রেকর্ড ছিল। এর আগে ২০১৬ সালে আগের সব রেকর্ড ভেঙে ৮ কোটি ৫৫ লাখ (৮৫. ৫ মিলিয়ন) কেজি চা পাতা উৎপদিত হয়েছিল।সূত্র মতে, ২০১৯ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত চায়ের উৎপাদন ছিল ৯৫ মিলিয়ন কেজির ওপরে। এটিই চা উৎপাদনে সবচেয়ে বড় রেকর্ড।এদিকে, ২০২৫ সালের মধ্যে দেশে চায়ের উৎপাদন ১৪০ মিলিয়নে উন্নীত করতে কাজ করা হচ্ছে। উল্লেখ্য, বিদেশি কোম্পানি, সরকারি ও ব্যক্তি মালিকানাধীন ছোটবড় মিলিয়ে বাংলাদেশে মোট ১৬২টি চা বাগান গড়ে উঠেছে। এরমধ্যে ৯২টি চা বাগান রয়েছে মৌলভীবাজারে।

About Sakal Bela

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*