Monday , 8 March 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » দেশগ্রাম » গোয়ালন্দে টমেটো বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে হাসি

গোয়ালন্দে টমেটো বাম্পার ফলন, কৃষকের মুখে হাসি

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি ঃ
রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে উন্নত (বিপুল প্লাস) জাতের টমেটো রোপন করে সুদিন এসেছে অসংখ্য কৃষকের। কম খরচে আবাদ করে বেশি লাভ হওয়ায় আগামীতে এই জাতের টমেটোর চাষ আরো বাড়বে বলে জানিয়েছেন পদ্মা পাড়ের কৃষকেরা।
গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম, দৌলতদিয়া ও উজানচর ইউনিয়নের পদ্মা নদীর পাড়ে মাঠের পর মাঠ টমেটোর আবাদ হয়েছে। বাজারে দাম বেশি তাই পাকা টমেটো তুলতে ব্যস্ত কৃষক। এ সময় স্থানীয় কৃষক হায়দার জানান, আমি এ বছর ৬০ শতাংশ জমিতে বিপুল প্লাস জাতের টমেটা রোপন করেছি। ৬০ শতাংশ জমিতে টমেটো রোপন সার ও কীট নাশকসহ মোট খরচ হয়েছে ৬০ হাজার টাকা। এ থেকে সব মিলিয়ে কমপক্ষে আড়াই লক্ষ টাকা বিক্রি হবে বলেও জানান তিনি। একই সময় সুলাইল সরদার নামে অপর কৃষক বলেন, এই কাওয়াজানি গ্রামটি চরাঞ্চলের হওয়ায় বর্ষা মৌসুমে পলি মাটি পরে জমির উর্বরতা বাড়ে। তাই এই অঞ্চলে সব ধরনের সবজিরই ভালো ফলন হয়। এ বছর সবচেয়ে বেশি হয়েছে টমেটোর চাষ। এখন বাজারে টমেটো ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তাছাড়া এই এলাকার টমেটো মান ভলো তাই ব্যবসায়ীরা মাঠ থেকেই টমেটো কিনে নিয়ে যায়।
কৃষক দুলাল বলেন, আমি এ বছর এক বিঘা জমিতে টমোটোর চাষ করেছি। বিপুল প্লাস জাতের এই টমোটো ৭ থেকে ৮ টিতেই এক কেজি ওজন হয়। এই জাতের টমেটো ফলনও বেশি। তিনি আরো বলেন, আমরা টমেটো ক্ষেত থেকে তোলার পর ট্রাকে করে ঢাকার মিরপুর বাজারে নিয়ে যাই এবং সেখানে পাইকারি বিক্রি করি। এ বছর টমেটো চাষ করে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে বলেও জানান তিনি।
কৃষি অধিদপ্তরের তথ্যমতে, গত বছর গোয়ালন্দ উপজেলায় ৩২৫ হেক্টর আবাদ হয়েছিলো। এ বছর গোয়ালন্দ উপজেলায় ৩৪৫ হেক্টর জমিতে টমেটোর আবাদ হয়েছে। এই হিসেবের বাইরেও অতিরিক্ত টমেটোর আবাদ হয়েছে। এতেকরে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে অনেক বেশী টমেটো এ উপজেলায় উৎপাদন হবে।
জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তর রাজবাড়ীর উপ-পরিচালক গোপাল কৃঞ্চ দাস বলেন, টমেটা চাষে কৃষি বিভাগ তেকে কৃষকদের বিভিন্ন ধরনের পরামর্র্শ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া দেওয়া হয়েছে প্রনোদনা। টমেটোর রোগ বালাই থেকে মুক্তির জন্য মাঠ পর্যায়ে আমাদের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তারা খোঁজ খবর রাখছেন। টমোটো ভালো ফলন ও ভালো দাম পাওয়ায় আগামীতে টমেটো আবাদ আরো বাড়বে বলে আশা করা হচ্ছে।

About Sakal Bela

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*