এখনও কারাবন্দি রোনালদিনহো

ক্রীড়া ডেস্কঃ 

তার মত এক ফুটবলারের কাছ থেকে এমন কাণ্ড কখনো ঘটবে, তা যেন কেউ ভাবতেই পারছেন না। ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি রোনালদিনহো জাল পাসপোর্ট নিয়ে প্রবেশ করেন প্যারাগুয়েতে। কিন্তু পার পেলেন না। জাল পাসপোর্টের কারণে গ্রেফতার হলেন তিনি। দেশটির রাজধানী আসুনসিয়ন থেকে গ্রেফতার করা হয় রোনালদিনহো এবং তার ভাইকে।

বুধবার গ্রেফতার হওয়ার পর শনিবার তাকে আদালতে তোলা হয়। কিন্তু প্যারাগুয়ে আদালত তার জামিন নামঞ্জুর করে পূনরায় জেলে প্রেরণ করেন।

জাল পাসপোর্ট নিয়ে অবৈধভাবে প্রবেশ করার কারণে বুধবার রাতে হোটেল রুম থেকে রোনালদিনহো, তার ভাই এবং বিজনেস ম্যানেজার রবার্তো অ্যাসিসকে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার পর্যন্ত পুলিশ কাস্টোডিতে পাঠানোর পর শনিবার তাদেরকে আদালতে তোলা হয়।

৩৯ বছরের রোনালদিনহো ২০০২ বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিল দলের অন্যতম সদস্য ছিলেন। বুধবার রাতে হোটেলের রুমে পুলিশ তল্লাশি চালানোর সময় ফুটবল তারকার কাছ থেকে জাল পাসপোর্টসহ অন্যান্য ভুয়া কাগজপত্র পাওয়া গেছে। প্যারাগুয়ের অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী ইউক্লিডিস জানিয়েছেন, ‘রোনালদিনহোর কাছে জাল পাসপোর্ট ছিল। এটা অপরাধ। এই কারণেই ওকে গ্রেফতার করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।’

রোনালদিনহোর পাসপোর্টে তার নাম, জন্মস্থান ও জন্মতারিখ ঠিক থাকলেও তার নাগরিকত্ব প্যারাগুয়ের লেখা। পাসপোর্ট এবং মোবাইল ফোন বাজেয়াপ্ত করা হয়। প্যারাগুয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, ক্যাসিনোর মালিক নেলসন বেলোত্তির আমন্ত্রণে প্যারাগুয়ে যান রোনালদিনহো।

শনিবার আদালতে তোলার পর রোনালদিনহো, তার ভাই এবং অন্যজনের জামিন চাওয়া হয়। কিন্তু আদালতের বিচারক ক্লারা রুইজ দিয়াজ তাদের জামিন নামঞ্জুর করেন। তিনি বলেন, ‘প্যারাগুয়ে রাষ্ট্রের জন্য এটা মারাত্মক অপরাধ। এ কারণে জামিন দেয়া যাবে না।’

তবে এই প্রথম নয়, এর আগেও পুলিশের হাতে অপরাধমূলক কাজের জন্য ধরা পড়েছেন রোনালদিনহো। ২০১৮ সালে ব্রাজিল সরকারের অনুমতি ছাড়াই সাবেক ফিশিং ট্র্যাপ তৈরি করেছিলেন এই তারকা ফুটবলার। এজন্য তার বিশাল অঙ্কের জরিমানা করা হয়েছিল। সেই টাকা শোধ করতে না-পারায় বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল তার পাসপোর্ট। দেশের বাইরে যাওয়ার অনুমতিও ছিল না কিংবদন্তি এই ফুটবলারের