চলে গেলেন অভিনেতা সন্তু মুখোপাধ্যায় ! রইল কিছু তাঁর জীবনের অজানা কথা

সন্তু মুখোপাধ্যায়। ১৯৭৫ সালে প্রখ্যাত চিত্রপরিচালক তপন সিনহা তার রাজা ছবিতে ২৪ বছর বয়সী সন্তু মুখোপাধ্যায় কে তুলে ধরলেন। তার পরে আর পিছন ফিরে তাকাতে হয়নি। একের পর এক ছবি। সংসার সীমান্তে, হারমোনিয়াম, গণদেবতা,দেবদাস, ব্যাপিকা বিদায়, ভালোবাসা ভালোবাসা-র মত ছবি তাঁর ঝুলিতে। কুসুমদোলা, জলনুপুর,ইষ্টিকুটুম, অন্দরমহল এর মত টিভি সিরিয়াল এর পরিচিত মুখ ছিলেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। বুধবার সন্ধ্যায় কলকাতার গলফগ্রীনের বাসভবন মৃত্যু হল এক বলিষ্ঠ অভিনেতার। ৬৯ বছর বয়েসেই জীবন শিখা নিভে গেলো অভিনেতা সন্তু মুখোপাধ্যায়ের।

ভবানীপুরের মিত্র ইন্সটিটিউশন থেকে প্রাথমিক শিক্ষার পর পদ্মপুকুর ইনস্টিটিউশন থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। ছোট থেকেই  অভিনয়কে নেশা করে উচ্চমাধ্যমিকের পরই পড়াশুনোর পাঠ চুকিয়ে দেন তিনি। এরপর তিনি নাচ ও রবীন্দ্র সঙ্গীতের পাঠ নেন। মাত্র ২৪ বছর বয়সেই সরাসরি তপন সিনহার নজরে পড়েন। আর তারপর ইতিহাস। বাংলা সিনেমার স্বর্ণযুগের নায়ক উত্তম কুমার সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় কার সঙ্গে না অভিনয় করেছেন সন্তু। তার সাধাসিধে আটপৌরে অনাড়ম্বর অভিনয় নজর কেড়ে নেয় আমজনতার তার অভিনয় দক্ষতা নজর কেড়েছিল চিত্র পরিচালকদের ফলে তরুণ মজুমদার, অরবিন্দ মুখোপাধ্যায় এর মত পরিচালকরাও তাদের ছবিতে অভিনয় করিয়েছিলেন সন্তুকে দিয়ে। ২০১৩ সাল পর্যন্ত বাংলা সিনেমায় চুটিয়ে অভিনয় করে গেছেন সন্তু মুখোপাধ্যায়। এরপরই টিভি সিরিয়ালে তিনি পরিচিত মুখ হয়ে ওঠেন। জনপ্রিয় বেশ কয়েকটি টিভি সিরিয়ালে তিনি দাপটের সঙ্গে অভিনয় করে গেছেন।

গত বেশ কিছুদিন ধরে তিনি ফুসফুসের ক্যান্সারে আক্রান্ত ছিলেন।গত ফেব্রুয়ারি মাসে তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে তাকে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সেখানে বেশ কিছুদিন তিনি গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ভর্তি ছিলেন। ক্যান্সারের সঙ্গে তার তীব্র রক্তচাপ এবং সুগারের সমস্যা ছিল। বেশ কয়েকদিন হাসপাতালে থাকার পর তিনি বাড়ি ফেরেন তবে শেষ রক্ষা হল না। মাত্র ৬৯ বছর বয়সেই তার জীবনাবসান হল।  সন্তু মুখোপাধ্যায় মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বাংলা চলচ্চিত্র মহল তার মৃত্যুর খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ছুটে যান বাড়িতে তার দুই মেয়ে অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায় এবং মেকআপ ডিজাইনার অজপা মুখোপাধ্যায়কে শোক প্রকাশ করা হয় মুখ্যমন্ত্রীর তরফ থেকে।