Friday , 27 November 2020
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
Home » জাতীয় » একজন মানবিক পুলিশ অফিসার এম.এম.মাহমুদ হাসান : ঝালকাঠি

একজন মানবিক পুলিশ অফিসার এম.এম.মাহমুদ হাসান : ঝালকাঠি

মোঃ আমিন হোসেন ঝালকাঠিঃ  করোনায় সারাদেশ যখন লকডাউন, তখন তার দায়িত্ব যেনো বেড়ে গেছে। মানুষ যখন খাবারের জন্য রাস্তায় বেরিয়ে আসছে, তখন তিনি বিবেকের ব্যাকুলতায় অসহয়দের পাশে এসে বাড়িয়েছেন সহয়তার কোমল দুহাত।করোনা মহামারীর এই সংকটে অসুস্থ তবলা শিল্পীর পাশে দাড়ালেন ঝালকাঠি সদর সার্কেলের অ্যাডিশনাল এসপি হিসেবে কর্মরত এম. এম. মাহমুদ হাসান।নিজের ব্যক্তিগত অর্থায়নে খাদ্য সহায়তা করেন তবলা শিল্পী খোকন দাসের পাশে।
মাহমুদ হাসান তিনি যেমন একজন দক্ষ পুলিশ কর্মকর্তা এবং মনে প্রানে একজন শিল্পী এবং শিল্পী বান্ধব। ঝালকাঠির সাংস্কৃতিক অংগনের পরিচিত মুখ,তবলা শিল্পী খোকন দাস বেশ কিছুদিন থেকে স্ট্রোক করে অসুস্হ হয়ে বাসায় আছেন। খোকন দাস ঝালকাঠি পৌরসভার সামান্য চাকরি করতেন সেখান থেকে তাকে বিনা অপরাধে ছাটাই করা হয়েছে। সাংস্কৃতিক অঙ্গনে অনেক অবদান খোকন দাসের। এমন অসহায়ত্বের কথা শুনে খোকন দাসের পাশে সাহায্যের হাত বাড়ালেন জনতার প্রিয় মানুষ অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এম এম মাহমুদ হাসান।
খাদ্য সহায়তা পেয়ে খোকন দাস ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।শুধু খোকন দাসই নয় ,তার মত অসংখ্য দুঃস্থ্য অসহায়দের আড়ালে আবডালে নিরবে নিজ বেতনের টাকা ও বন্ধুদের সহযোগীতায় সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন এম এম মাহমুদ হাসান।
দিন নেই, রাত নেই মানুষের সেবায় সারাক্ষণই ছুটে বেড়াচ্ছেন তিনি। মানুষের জন্য অকাতরে কাজ করে যাচ্ছেন ঝালকাঠি সদর সার্কেলের অ্যাডিশনাল এসপি হিসেবে কর্মরত এম. এম. মাহমুদ হাসান । নিজের ওপর অর্পিত দায়িত্ব শেষ করে ঘরে ফেরেন না, ছুটে যান মানুষের কাছে। করোনা সংকটে অসহায়দের কার কি সমস্যা, খুঁজে বের করেন ,তারপর নিজের সাধ্যমত সহয়তা করেন। আর এজন্য ‘মানবিক’ পুলিশ হিসেবে ইতোমধ্যে সবার কাছে পেয়েছে গ্রহণযোগ্যতা।ঝালকাঠিতে যোগদানের পর থেকেই সুনামের সাথে চাকুরী করে মানুষের সেবা দিচ্ছেন।
তিনি বলেন ,আমরা বড় বড় দুর্যোগ দেখেছি কিন্তু এমন মহামারি দেখেনি। সারা বিশ্বকে থমকে দিয়েছে করোনাভাইরাস। সংক্রমন এড়াতে প্রতিদিন বিভিন্ন হাট-বাজার এবং বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাধারণ মানুষদের সচেতনমূলক পরামর্শ দিচ্ছে পুলিশ। ঝালকাঠির সদর হস দেশের অন্যান্য পুলিশ অফিসার ও কনস্টেবলরা করোনা সংকটে দিনরাত সমানভাবে দায়িত্ব পালন করে চলেছেন। আমাদের পুলিশ সদস্যের অনেকেই পরিবার নিয়ে থাকেন। তাদের প্রতি অনুরোধ করে বলেন ভাল করে পোষাক খুলে জীবনানাশক ছিটিয়ে নিজেকে জীবানুমুক্ত মুক্ত হয়ে বাড়িতে যাবেন, দুরত্ব বজায় রাখবেন।
পুলিশের পোশাকের বাইরে তিনি যেনো সবার কাছে হয়ে উঠেছেন পরমপ্রিয় কেউ।করোনায় ঝুঁকি আছে জেনেও তিনি থেমে থাকেননি। তিনি বলেন,পরিবারকে সময় দিতে পারেন না বললেই চলে। তিনি মনে করেন, বৈশ্বিক এ মহামারী একা কখনোই মোকাবেলা করা সম্ভব না। দেশের মানুষকে সচেতন আর সহযোগিতার মধ্য দিয়েই একদিন করোনামুক্ত হবে বাংলাদেশ। এজন্য নিজের কথা না ভেবে দেশের জন্য নিবেদিত হয়ে কাজ করে যেতে চান এ পুলিশ কর্মোকর্তা ঝালকাঠি সদর সার্কেলের অ্যাডিশনাল এসপি হিসেবে কর্মরত এম. এম. মাহমুদ হাসান।

About Sakal Bela