Sunday , 27 September 2020
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » দেশগ্রাম » বিরামপুরে রেল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় রেল স্টেশনের জায়গা দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ

বিরামপুরে রেল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় রেল স্টেশনের জায়গা দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ

বিরামপুর (দিনাজপুর):
বর্তমান সরকারের সময় দেশের রেল খাতে ব্যাপক উন্নয়ন পরিলক্ষিত হলেও দিনাজপুরের বিরামপুর রেল ষ্টেশনটির বেহাল দশা। নেই যাত্রী সেবার কোন উন্নত ব্যবস্থা। দিন দিন বেদখল হয়ে যাচ্ছে রেল স্টেশনের আশপাশের সরকারি জায়গা।
ভৌগলিক দৃষ্টিকোণ থেকে নবাবগঞ্জ, ঘোড়াঘাট, হাকিমপুর ও বিরামপুর এই ৪টি উপজেলার যাত্রীদের রেল ভ্রমণের একমাত্র পন্থা বিরামপুর রেল ষ্টেশনটি। রেল কর্তৃপক্ষের উদাসীন মনোভাবের কারণে গত ৬ মাস যাবৎ পূর্বজগন্নাথপুর কলোনীপাড়া এলাকার মৃত. ইউনুস আলীর পুত্র রায়হান কবির এবং একই মহল্লার শিউলি আরা নাম মাত্র ইজারার প্রভাব খাটিয়ে ষ্টেশন সংলগ্ন রেলের জায়গা দখল করে অবৈধ ভাবে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করছে। এতে অবৈধ অর্থ লেনদেনের অভিযোগ তুলেছেন সচেতন এলাকাবাসী। স্থানীয় সাংবাদিকেরা রেল স্টেশন প্লাটফর্ম সংলগ্ন রেলের জায়গা দখলের তথ্য ও ছবি সংগ্রহ করতে গেলে দখলদাররা সাংবাদিকদের সাথেও দুর্ব্যবহার করেন।
এ বিষয়ে ষ্টেশন মাষ্টার সহ পাকশী রেল কর্তৃপক্ষের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে একাধিকবার ফোনে কথা বলা হলেও তারা করোনা ভাইরাসের অজুহাতে বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন। অন্যদিকে থেমে নেই অবৈধ পাকা স্থাপনা নির্মাণের কাজ। স্থানীয় সচেতন মহল বলছেন, রেল কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণে পরবর্তী সময়ে জায়গার অভাবে ভেস্তে যেতে পারে ষ্টেশনের উন্নয়ন কাজ। এতে বিরামপুর রেল স্টেশনটির আধুনিকায়ন হতে বঞ্চিত হতে পারে বলে মনে করছেন সতেচন মহল।

About Sakal Bela

বিরামপুরে রেল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতায় রেল স্টেশনের জায়গা দখল করে পাকা স্থাপনা নির্মাণ

বিরামপুর (দিনাজপুর):
বর্তমান সরকারের সময় দেশের রেল খাতে ব্যাপক উন্নয়ন পরিলক্ষিত হলেও দিনাজপুরের বিরামপুর রেল ষ্টেশনটির বেহাল দশা। নেই যাত্রী সেবার কোন উন্নত ব্যবস্থা। দিন দিন বেদখল হয়ে যাচ্ছে রেল স্টেশনের আশপাশের সরকারি জায়গা।
ভৌগলিক দৃষ্টিকোণ থেকে নবাবগঞ্জ, ঘোড়াঘাট, হাকিমপুর ও বিরামপুর এই ৪টি উপজেলার যাত্রীদের রেল ভ্রমণের একমাত্র পন্থা বিরামপুর রেল ষ্টেশনটি। রেল কর্তৃপক্ষের উদাসীন মনোভাবের কারণে গত ৬ মাস যাবৎ পূর্বজগন্নাথপুর কলোনীপাড়া এলাকার মৃত. ইউনুস আলীর পুত্র রায়হান কবির এবং একই মহল্লার শিউলি আরা নাম মাত্র ইজারার প্রভাব খাটিয়ে ষ্টেশন সংলগ্ন রেলের জায়গা দখল করে অবৈধ ভাবে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করছে। এতে অবৈধ অর্থ লেনদেনের অভিযোগ তুলেছেন সচেতন এলাকাবাসী। স্থানীয় সাংবাদিকেরা রেল স্টেশন প্লাটফর্ম সংলগ্ন রেলের জায়গা দখলের তথ্য ও ছবি সংগ্রহ করতে গেলে দখলদাররা সাংবাদিকদের সাথেও দুর্ব্যবহার করেন।
এ বিষয়ে ষ্টেশন মাষ্টার সহ পাকশী রেল কর্তৃপক্ষের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে একাধিকবার ফোনে কথা বলা হলেও তারা করোনা ভাইরাসের অজুহাতে বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন। অন্যদিকে থেমে নেই অবৈধ পাকা স্থাপনা নির্মাণের কাজ। স্থানীয় সচেতন মহল বলছেন, রেল কর্তৃপক্ষের গাফিলতির কারণে পরবর্তী সময়ে জায়গার অভাবে ভেস্তে যেতে পারে ষ্টেশনের উন্নয়ন কাজ। এতে বিরামপুর রেল স্টেশনটির আধুনিকায়ন হতে বঞ্চিত হতে পারে বলে মনে করছেন সতেচন মহল।

About Sakal Bela

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!