Tuesday , 22 September 2020
Home » দৈনিক সকালবেলা » পাচঁফোড়ন » গত তিন দিনে আওয়ামী লীগ হারাল তিন গুরুত্বপূর্ণ নেতা

গত তিন দিনে আওয়ামী লীগ হারাল তিন গুরুত্বপূর্ণ নেতা

অনলাইন ডেস্ক:
গত তিন দিনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ তিন গুরুত্বপূর্ণ নেতাকে হারাল। তাঁদের তিনজনের মৃত্যুর সঙ্গে করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। তাঁদের মৃত্যুতে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে গভীর শোক নেমে এসেছে।
শনিবার(১৩জুন) বেলা ১১টা ১০ মিনিটে রাজধানীর শ্যামলীর বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য, ১৪ দলের সমন্বয়ক ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। মৃত্যুকালে মোহাম্মদ নাসিমের বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। আটদিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে চিরদিনের মতো পৃথিবী ছেড়ে বিদায় নেন বর্ষীয়ান এই রাজনীতিক।
মোহাম্মদ নাসিমের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। পরে করোনা নেগেটিভ এলেও হঠাৎ করে তার স্ট্রোক হলে তাৎক্ষণিকভাবে তার সার্জারি করা হয়। তবে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়।
গতকাল রবিবার সকাল ১১টার দিকে বনানী কবরস্থান মসজিদে দ্বিতীয় জানাজা শেষে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয় মোহাম্মদ নাসিমকে। জানাজা শেষে ঢাকা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়।
শনিবার (১৩জুন) রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে আওয়ামী লীগের আরেক কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য, দলের সাবেক ধর্মবিষয়ক সম্পাদক, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মো. আবদুল্লাহর হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়।
গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় রাত ১০টায় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের (সিএমএইচ) আইসিউতে ভর্তি করা হয় আবদুল্লাহকে। মৃত্যুর পর জানা যায়, করোনা পজিটিভ ছিল ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর।
গতকাল রবিবার বাদ আসর জানাজা শেষে প্রতিমন্ত্রীর গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার কেকানিয়ার পারিবারিক কবরস্থানে বাবা-মায়ের কবরের পাশে তাকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়। এর আগে বাড়ির মসজিদ প্রাঙ্গণে প্রয়াতের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।
গতকাল রবিবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর।
গত ৫ জুন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে বাসায় আইসোলেশনে ছিলেন কামরান। শারীরিক অবস্থার কিছুটা অবনতি হলে গত শনিবার (৬ জুন) তাঁকে সিলেট শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন সেন্টারে ভর্তি করা হয়। অবস্থার আরও অবনতি হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে রোববার (৭ জুন) সন্ধ্যায় তাকে শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতাল থেকে বিমানবাহিনীর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ঢাকায় নেয়া হয়।

About Sakal Bela

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*