Tuesday , 22 September 2020
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » গ্রাম-বাংলা » দেওয়ানগঞ্জে কোরবানি পশুর হাট এখনো জমে ওঠেনি

দেওয়ানগঞ্জে কোরবানি পশুর হাট এখনো জমে ওঠেনি

অনলাইন ডেস্ক:
জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জে আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানি পশুর হাটগুলো এখনো তেমন জমে ওঠেনি। আজ বুধবার সারাদিন উপজেলার বিভিন্ন হাট ঘুরে দেখা যায় ক্রেতাশূন্য। যারা গরু বিক্রির জন্য হাটে তুলেছেন তাদেরকে গরু ফিরিয়ে নিতে দেখা গেছে।
জেলার সবচেয়ে বড় পাইকারি হাট সানন্দবাড়ী গিয়ে বিকেল পাঁচটার দিকে দেখা যায়, সেখানে প্রায়  ৭০০ মতো গরু বিক্রির জন্য নিয়ে এসেছেন বিভিন্ন ক্রেতা এবং খামারিরা। কিন্তু তেমন কোনো বেচা-কেনা এবং পাইকারের দেখা মেলেনি।
স্বাস্থ্যবিধি এবং করোনার কারণে যেভাবে হাট-বাজারগুলো পরিচালিত হবার ছিল তেমন কোনো ব্যতিক্রমী দৃশ্য চোখে পড়েনি। গরু বিক্রেতা এবং ক্রেতারা সামাজিক ব্যাবধান মেনে চলেছেন।
বাজারের ইজারাদার সূত্রে জানা গেছে, বিকেল ৬টা পর্যন্ত মাত্র ৪২টি গরু বিক্রি হয়েছে। অন্য বছর ঈদের আগের এই হাটগুলোতে প্রায় আড়াই শ থেকে তিন শ গরু বিক্রি হয়।
গরুর বাজার দর সম্পর্কে জানা যায়, একটি মাঝারি সাইজের গরু ৫৫ হাজার থেকে ৬০ হাজার টাকা দর হাকছেন বিক্রেতারা। বড় সাইজের গরু ১ লক্ষ থেকে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা।
দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুলতানা রাজিয়া আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানি পশুর হাট সম্পর্কে বলেন, আমরা ইজারাদারদের নিয়ে সামনে মিটিংয়ে বসবো এবং স্বাস্থ্যবিধি এবং সুরক্ষা বিধি মেনে যেন হাটগুলো পরিচালিত হয় সে বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। এ বিষয়ে তিনি  জনসাধারণ এবং হাট কর্তৃপক্ষকে সচেতন থাকার আহ্বান জানান।
সানন্দবাড়ী হাটের ইজারাদার মো. রেজাউল করিম লাভলু বলেন, লকডাউনের কারণে আমার অনেক ক্ষতি হয়েছে। কোটি টাকা দিয়ে হাট ইজারা নিয়ে আমরা ক্ষতির মধ্যে আছি।

About Sakal Bela

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*