Thursday , 24 September 2020
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » দেশগ্রাম » বগুড়ায় যমুনার পানি আবার বিপদসীমার ওপরে

বগুড়ায় যমুনার পানি আবার বিপদসীমার ওপরে

অনলাইন ডেস্ক:
উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও অবিরাম বর্ষণে যমুনা নদীর পানিপ্রবাহ ফের বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে বগুড়ার সারিয়াকান্দি, সোনাতল ও ধুনট উপজেলায় যমুনা নদীর অববাহিকার চরাঞ্চল ও নিম্নাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে। প্রথম দফার পানি নেমে যেতে না যেতেই ফের বন্যা কবলিত হয়ে পড়ায় দুর্ভোগ বেড়েছে পানিবন্দি হাজারও মানুষের।
জানা যায়, সারিয়াকান্দির শনপচা, মাঝিড়া, বোহাইুল, আওলাকান্দিচর ও ধুনটের রাধানগর ও বৈশাখীচরসহ অনান্য চরের অধিকাংশ স্থানেই পানি উঠেছে। হাজার হাজার মানুষ গবাদি পশু নিয়ে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে কিংবা উচু জায়গায় আশ্রয় নিয়েছে। খুব কষ্টে পড়েছেন বৃদ্ধ, প্রতিবন্ধী ও শিশুরা। একদিকে করোনা দূর্যোগের মাঝে বন্যা অন্যদিকে বৃষ্টিতে এসব মানুষদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।
উপজেলার বৈশাখী চরের আবু হাসেম, লিয়াকত আলী ও জালাল উদ্দিন জানান, গত ৫ জুলাই বন্যার পানি নেমে যাওয়ার পর শুক্রবার বিকেল থেকে পানি বেড়ে ফের বন্যা কবলিত হয়ে পড়েছেন চরাঞ্চলের মানুষ। এখন ঘরে পানি প্রবেশ করে ফের দুর্ভোগে পড়েছেন তারা। একই এলাকার আব্দুর রহমান ও ইব্রাহীম হোসেন জানান, আবার নতুন করে পানি বৃদ্ধির কারণে দুশ্চিন্তায় আছি। আমাদের কষ্ট হোক সমস্যা নাই কিন্তু গবাদিপশু নিয়ে খুব সমস্যায় পড়তে হচ্ছে।
বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান জানান, যমুনা নদীতে বিপৎসীমা নির্ধারণ করা হয় ১৬ দশমিক ৭০ সেন্টিমিটার। রবিবার বিকেল ৩টার হিসাব অনুযায়ী নদীর পানি ১৬ দশমিক ৮৫ সেন্টিমিটার দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। অর্থাৎ বিপৎসীমার ১৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে।
বগুড়া জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আজাহার আলী বলেন, যমুনা নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় সারিয়াকান্দি, সোনাতলা ও ধুনট উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের ৯৮টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। দুর্গত এলাকার ১৯ হাজার ৭২ পরিবারের ৭৭ হাজার ৬২০ জন মানুষ দুর্ভোগে পড়েছেন।

About Sakal Bela

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!