Saturday , 26 September 2020
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » দেশগ্রাম » মশারি আর নেটের জাল দিয়ে রেললাইনে মাছ শিকার

মশারি আর নেটের জাল দিয়ে রেললাইনে মাছ শিকার

অনলাইন ডেস্ক:
পাথরবেষ্টিত রেললাইন। হাতে মশারি আর নেটের জাল নিয়ে মাছ শিকারে ব্যস্ত মাঝবয়সী নারী, পুরুষ; পিছিয়ে নেই শিশুরাও।  টানা কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতে স্থানীয় পুকুরগুলো ডুবে যাওয়ায় লাইনের মাঝের অংশ দিয়ে পানি প্রবাহের কারণে মাছ শিকারে মেতে ওঠে স্থানীয়রা। যদিও বড় কোনো মাছ ধরতে পারছে না কেউ।
আজ রবিবার দুপুরে দিনাজপুর-সেতাবগঞ্জ রেলস্টেশন থেকে পূর্ব পাশে এমন দৃশ্য দেখা যায়। শুধু রেলস্টেশন নয়, বৃষ্টির কারণে উপজেলার বেশির ভাগ জনপদ পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সবখানেই এমন দৃশ্য।
টানা বৃষ্টিতে সেতাবগঞ্জ রেলস্টেশনে রেললাইনের সামান্য একটু নিচ দিয়ে বৃষ্টির পানির স্রোত যাচ্ছে। এখানে শত শত মানুষ মশারি, নেটজালসহ মাছ মারার বিভিন্ন যন্ত্র নিয়ে ছোট ছোট মাছ ধরার উৎসবে মেতে উঠেছে। এ ছাড়া উপজেলার জালগাঁও, বামনগাঁও, মহনপুর, মহেষপুর, বকুলতলাসহ বিভিন্ন স্থানে চলছে মাছ শিকারের উৎসব।
জানতে চাইলে রেললাইনে মাছ শিকার করা এক মহিলা বলেন, পাশের বাড়ির ছোয়ালগুলা মাছ ধরছে, তাই মুইও মাছ মারছো। ছোট ছোট একনা, দ্যকনা পুঠি মাছ পাওছো। বড় মাছ ছোয়ালগুলা মারি খাওছে।
আরেকজন শৌখিন মাছ শিকারি বলেন, সকাল থেকে আমি পুঁটি, কৈ, চপড়া মাছসহ বেশ কিছু মাছ শিকার করেছি।

About Sakal Bela

মশারি আর নেটের জাল দিয়ে রেললাইনে মাছ শিকার

অনলাইন ডেস্ক:
পাথরবেষ্টিত রেললাইন। হাতে মশারি আর নেটের জাল নিয়ে মাছ শিকারে ব্যস্ত মাঝবয়সী নারী, পুরুষ; পিছিয়ে নেই শিশুরাও।  টানা কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতে স্থানীয় পুকুরগুলো ডুবে যাওয়ায় লাইনের মাঝের অংশ দিয়ে পানি প্রবাহের কারণে মাছ শিকারে মেতে ওঠে স্থানীয়রা। যদিও বড় কোনো মাছ ধরতে পারছে না কেউ।
আজ রবিবার দুপুরে দিনাজপুর-সেতাবগঞ্জ রেলস্টেশন থেকে পূর্ব পাশে এমন দৃশ্য দেখা যায়। শুধু রেলস্টেশন নয়, বৃষ্টির কারণে উপজেলার বেশির ভাগ জনপদ পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় সবখানেই এমন দৃশ্য।
টানা বৃষ্টিতে সেতাবগঞ্জ রেলস্টেশনে রেললাইনের সামান্য একটু নিচ দিয়ে বৃষ্টির পানির স্রোত যাচ্ছে। এখানে শত শত মানুষ মশারি, নেটজালসহ মাছ মারার বিভিন্ন যন্ত্র নিয়ে ছোট ছোট মাছ ধরার উৎসবে মেতে উঠেছে। এ ছাড়া উপজেলার জালগাঁও, বামনগাঁও, মহনপুর, মহেষপুর, বকুলতলাসহ বিভিন্ন স্থানে চলছে মাছ শিকারের উৎসব।
জানতে চাইলে রেললাইনে মাছ শিকার করা এক মহিলা বলেন, পাশের বাড়ির ছোয়ালগুলা মাছ ধরছে, তাই মুইও মাছ মারছো। ছোট ছোট একনা, দ্যকনা পুঠি মাছ পাওছো। বড় মাছ ছোয়ালগুলা মারি খাওছে।
আরেকজন শৌখিন মাছ শিকারি বলেন, সকাল থেকে আমি পুঁটি, কৈ, চপড়া মাছসহ বেশ কিছু মাছ শিকার করেছি।

About Sakal Bela

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

error: Content is protected !!