Saturday , 19 June 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » জাতীয় » বন্ধ থাকার ছয়মাস পর ৫’ই সেপ্টেম্বর চালু হচ্ছে সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন
বন্ধ থাকার ছয়মাস পর ৫’ই সেপ্টেম্বর চালু হচ্ছে সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন

বন্ধ থাকার ছয়মাস পর ৫’ই সেপ্টেম্বর চালু হচ্ছে সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন

সিরাজগঞ্জ ঃ সংস্কারের অজুহাতে বন্ধ করার প্রায় ৬ মাস পর আগামী ৫’ই সেপ্টেম্বর চালু হতে যাচ্ছে সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন। এদিনে শর্ত সাপেক্ষে আন্তঃনগর, কমিউটার ও লোকালসহ মোট ১৯ জোড়া ট্রেন চলাচল শুরু হতে যাচ্ছে। সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস চালু হবার মধ্য দিয়ে আবারও রেলসেবা পেতে যাচ্ছে সিরাজগঞ্জবাসি। বাংলাদেশ রেলওয়ের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে সিরাজগঞ্জের বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার মানুষ।
মঙ্গলবার বাংলাদেশ রেলওয়ের উপ-পরিচালক (ট্রাফিক ট্রান্সপোর্টেশন) স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে বিষয়টি জানানো হয়েছে।এই অফিস আদেশে জানানো হয়, আগামী ৫ সেপ্টেম্বর থেকে মহানগর গোধূলী/ প্রভাতী, জয়ন্তীকা এক্সপ্রেস, উপবন এক্সপ্রেস, তুর্ণা এক্সপ্রেস, মোহনগঞ্জ এক্সপ্রেস, জামালপুর এক্সপ্রেস, দ্রুতযান এক্সপ্রেস, ধুমকেতু এক্সপ্রেস, রংপুর এক্সপ্রেস, সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস, মহানন্দা এক্সপ্রেস (খুলনা-চাঁপাইনবাবগঞ্জ), লোকাল (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রহনপুর), মহানন্দা এক্সপ্রেস (রহনপুর-খুলনা), পদ্মরাগ কমিউটার, নকশিকাঁথা এক্সপ্রেস, সাগরিকা কমিউটার, উত্তরা এক্সপ্রেস, মহুয়া কমিউটার ও বেতনা এক্সপ্রেস চালু করা হবে। এতে আরও বলা হয়, যাত্রার ১০ দিন আগে আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট সংগ্রহ করতে হবে। আন্তঃনগর ট্রেনের সকল (ধারণ ক্ষমতার শতকরা ৫০%) টিকিট একইসঙ্গে অনলাইন ও মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি করা হবে। বিক্রিত টিকিট ক্যানসেল করে টাকা রিফান্ড করা যাবে না। ৫ সেপ্টেম্বর থেকে রাত্রীকালীন উচ্চশ্রেণির যাত্রীদের চাদর, কম্বল ও বালিশ সরবরাহ করা হবে। এজন্য টিকিটের মূল্যের সঙ্গে বেডিং চার্জ যোগ করা হবে। এছাড়া, চা, কফি, বোতলজাত পানি সরবরাহ করা হবে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়েই ট্রেন চলবে। স্ট্যান্ডিং টিকিট ইস্যু করা হবে না। যাত্রার ৩৬ ঘণ্টা আগে দুই শতাংশ টিকিট রেল কর্মচারীদের জন্য সংরক্ষণ করা হবে। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর থেকে ঢাকা বিমানবন্দর, জয়দেবপুর, নরসিংদী স্টেশনে সব আন্তঃনগর, কমিউটার, মেইল ট্রেন এবং ভৈরব বাজার স্টেশনে শুধু কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনের যাত্রা বিরতি শুরু হবে। চলতি বছরের ২৫’শে ফেব্রুয়ারি সংস্কারের অজুহাতে আচমকা ট্রেনটি বন্ধ করে দেয়া হয়। ঐ সময়ে সংস্কার কাজ শেষ করে অতিদ্রুত সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনটি পুনরায় চালু করা হবে বলে জানানো হলেও ট্রেনটি চালু না করে সময়ক্ষেপন করতে থাকে রেলওয়ে কতৃপক্ষ। এই অবস্থায় চলাচল অব্যাহত থাকতেই সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস চালু করা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ রেলওয়ের নানা তালবাহানা অব্যাহত রাখা অবস্থাতেই দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে গত ২৪ মার্চ সন্ধ্যায় যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। দুই মাস পর গত ৩১ মে প্রথম দফায় আট জোড়া আন্তঃনগর ট্রেন চালু করা হয়। গত ৩ জুন দ্বিতীয় দফায় আরও ১১ জোড়া আন্তঃনগর ট্রেন বাড়ানো হয়। বর্তমানে বিভিন্ন গন্তব্যে ৩৪টি ট্রেন চলাচল করছে। ১৭ই আগস্ট রোববার রেলের বহরে যুক্ত হয়েছে আরও ২৬টি ট্রেন। সবমিলিয়ে এখন চলাচল করা ট্রেনের সংখ্যা ৬০টি, অর্থাৎ ৩০ জোড়া ট্রেন ।দেরিতে হলেও সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস চালুর সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) জেলা শাখার আহ্বায়ক ও স্বার্থরক্ষা সংগ্রাম কমিটি’র সংগঠক কমরেড নব কুমার কর্মকার  বলেন, সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস চালু হবার খবরে সিরাজগঞ্জবাসির মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে, আমরা আনন্দিত।  আমরা চাই সুষ্ঠ ব্যাবস্থাপনা ও যাত্রিসেবার মধ্য দিয়ে এই রেলটি জনপ্রিয় হয়ে উঠুক।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*