Wednesday , 21 April 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » অপরাধ ও দূর্নীতি » “আওয়ামীলীগ জান্নাতে যাবে না” -অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা তোজাম হোসেন
“আওয়ামীলীগ জান্নাতে যাবে না” -অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা তোজাম হোসেন

“আওয়ামীলীগ জান্নাতে যাবে না” -অগ্রণী ব্যাংক কর্মকর্তা তোজাম হোসেন

বিশেষ প্রতিবেদক ঃ‘আওয়ামীলীগ জান্নাতে যাবে না’ জামায়ত পন্থী ব্যাংক কর্মকর্তার ফেসবুকে এমন শেয়ার নিয়ে কুষ্টিয়ার ব্যাংক পাড়াসহ বিভিন্ন মহলে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ সরকারের বিরুদ্ধে এমন মিথ্যা, বানোয়াট, ধর্মান্ধ ফতোয়াবাজীকে সমর্থন দিয়ে রীতিমত প্রচার-প্রকাশ করে বহাল তবিয়তে চাকরী করে চলেছেন তিনি। এমন কান্ড ঘটানোর খবর জানার পরও প্রচ্ছন্ন কারণে গত দুই মাসেও তার উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ ওই ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাই নেয়নি বরং যারা প্রতিবাদ করেছেন তাদের বিরুদ্ধে নানা রকম বিষদগার করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল সরজমিন তদন্তে এমন তথ্যই বেরিয়ে এসেছে। একটি দায়িত্বশীল সুত্রে জানা যায়, ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার কাচের কোল ইউনিয়নের বাসিন্দা জামায়াত পন্থী কুষ্টিয়া অগ্রণী ব্যাংক বড় বাজার শাখার ইসলামী ব্যাংকিং উইন্ডো শাখার ম্যানেজার মোঃ তোজাম হোসেন। একজন প্রতিক্রিয়াশীল, আওয়ামী বিদ্বেষী কর্মকর্তা হিসেবে অগ্রণী ব্যাংক কুষ্টিয়া এলাকায় বিশেষ পরিচিত। তার বিরুদ্ধে ইতিপুর্বে বর্তমান সরকারের বিরুদ্ধে নানা বিষদগারের অভিযোগ রয়েছে। তারপরও গত ৪ সেপ্টেম্বরের আগে ব্যাংক কর্মকর্তা মোঃ তোজাম হোসেন, ব্যক্তিগত ফেসবুক, গফ ঞড়ুধস ঐড়ংংরড়হ, আইডিতে কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের প্রতিক্রিয়াশীল প্রয়াত শিক্ষক ড. আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গীর রহিমাহুল্লাহ’র ইউটিউবে প্রচারিত একটি সেমিনারের ভিডিও শেয়ার করেছেন। ভিডিওটির শিরোনাম রয়েছে, ‘ আওয়ামীলীগ জান্নাতে যাবে না’ ৪ সেপ্টেম্বরের আগে শেয়ারকৃত এই ভিডিওটির টাইটেলের সাথে শিক্ষক , ড. আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গির রহিমাহুল্লাহ’র ছবি এবং আওয়ামীলীগের দলীয় পতাকা সম্বলিত দলের মনোগ্রাম রয়েছে। ওই ভিডিওতে একজন ব্যক্তি সামনে বসা ব্যক্তিকে প্রশ্ন করছেন, একজন দলগত ভাবে আওয়ামীলীগ করেন তিনি নামাজ পড়েন, রোজা রাখেন, জাকাত দেন, স্ত্রীকে পর্দাও করান। আরেকজন যিনি জামায়াত ইসলাম করেন, তিনি তাকে প্রশ্ন করছেন তিনিও ওই আমলগুলো সব করেন। এদের মধ্যে যিনি জামায়াত করেন আওয়ামীগকরা ব্যক্তিকে বলছেন, উনি আওয়ামীলীগ করেন উনি জান্নাতে জাবেন না, আমরাই জান্নাতে যাব, এমন প্রশ্ন সম্পর্কে ওই ব্যক্তি শিক্ষক ড. আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গিরের মতামত জানতে চাচ্ছেন। প্রশ্নোত্তোরে নানা রকম ফতোয়াবাজীমুলক উত্তোর দিয়েছেন শিক্ষক। এ ভিডিওটি মোঃ তোজাম হোসেন তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে শেয়ার দেয়ার পর তার অফিসের কলিকরাসহ অগ্রণী ব্যাংক বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ, অফিসার্স সমিতি, সিবিএ নেতৃবৃন্দ তাকে এ বিষয়ে ক্ষমা চেয়ে পাল্টা বিবৃতি দিতে বললেও কোন এক অজ্ঞাত কারণে ওই জামায়াত পন্থী ব্যাংক কর্মকর্তা মোঃ তোজাম হোসেন তা না করে বড় বাজার অগ্রণী ব্যাংক’র ডিজিএম মোঃ ওয়াহিদুল ইসলামের ছত্রছায়ায় বহাল তবিয়তে অফিস করে চলেছেন। গতকাল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে মোঃ তোজাম হোসেনের ফেসবুক আইডিতে এ শেয়ারটি খুঁজে পাওয়া যায়নি। গত ৪ সেপ্টেম্বর তিনি তার ফেসবুকে সব শেষ, ‘ডাকাত যেমন গরীবের বাড়ীতে ডাকাতি করতে যায় না, আবার শয়তানও তেমনি ভালো মানুষ ছাড়া খারাপ মানুষকে ধোঁকা দেয় না’ এর আগের সকল পোষ্ট, শেয়ার সরিয়ে ফেলা হয়েছে। এ ছাড়া ওই ফেসবুকে, গত ৩ সেপ্টেম্বর ‘ মুফতি শামসুজ্জোহা আশরাফির সাহেবের সমর্থক গোষ্টি, যে বলবে জিহাদী বই উদ্ধার, তবে সে কাফের। কারণ জিহাদকে এখানে আতঙ্ক এবং ত্রাস হিসেবে উপস্থাপন করেছে। ‘ বাংলাদেশের জন্য তালেবানের জরুরী বার্তা, এরকম নানা জঙ্গিবাদী, উস্কানিমুলক কথাবার্তা সম্বলিত শেয়ার, পোষ্ট রয়েছে বলে জানা গেছে। এদিকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার শক্তি বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ সরকারের সময়ে একজন ব্যাংক কর্মকর্তা এমন সব ফতোয়াবাজী, উদ্ভট, উস্কানিমুলক, ইসলাম বিরোধী, বক্তব্য শেয়ার দিয়ে সাধারণ মানুষকে আওয়ামী বিদ্বেষী করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে জেনে শহরজুড়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে। ব্যাংক পাড়ায় গত দুই মাস যাবত চলছে এ নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা। তবে কেউ ভয়ে মুখ খুলতে সাহস করেনি। এমন চিত্রই গতকাল সরজমিনে এ তথ্য সত্য অনুসন্ধানে গেলে জানা যায়। এ ব্যাপারে খোদ আওয়ামী মনা মানুষের মধ্যে ক্ষোভের বর্হিপ্রকাশ ঘটেছে। কয়েকজন আওয়ামীলীগ কর্মি বিক্ষুদ্ধ হয়ে বলেছেন, সরকারের খেয়ে পরে আবার সরকারের চেয়ারে বসে সেই সরকারের বিরুদ্ধে বিষদগার করা একধরণের রাষ্ট্রদ্রোহের সামিল। অবিলম্বে ওই ব্যাংক কর্মকর্তার চাকুরীচ্যুতসহ তার বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমুলক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানিয়েছেন তারা। এ ব্যাপারে অগ্রণী ব্যাংক বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আবু আহসান হাবিব মনি জানান, গত প্রায় এক মাস আগে তার সংগঠন, অফিসার্স সমিতি, কর্মচারী সমিতি তিন সংগঠন যৌথভাবে ডিজিএম মোঃ ওয়াহিদুল ইসলামের কাছে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থাগ্রহনের কথা জানান। তিনি জানান, ডিজিএম সাহেবের কাছে এ অভিযোগ জানালে তিনি কেন্দ্রে জানাবেন বলে তাদেরকে জানিয়েছেন। তারাও ডিজিএম কি ব্যবস্থা গ্রহন করেন সে অপেক্ষায় আছেন বলে জানান। এ ব্যাপারে মোঃ তোজাম হোসেনের  মুখোমুখি হলে তিনি এ ব্যাপারে সংবাদ পরিবেশন না করার কথা বলে জানান, এ পোষ্টটি তার নয়, তিনি মাত্র শেয়ার করেছেন। তিনি ড. আব্দুল্লাহ জাহাঙ্গিরের ওয়াজ, বক্তব্য অনেকদিন ধরেই শুনে আসছেন। এটি কোন উদ্দেশ্যে নিয়ে তিনি করেননি বলে দাবী করেন। এ ঘটনার পর গত দুই মাস আগে ঘটলেও তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে কিনা সে বিষয়ে জানতে বড় বাজার অগ্রণী ব্যাংক’র ডিজিএম মোঃ ওয়াহিদুল ইসলামের সাথে কথা বলতে গেলে, তিনি এক প্রকার বিরুক্তিবোধ করেই বলেন, এ বিষয়ে তিনি কোন কথা বলতে রাজি নয়, তিনি ( মোঃ তোজাম হোসেন)  তার আন্ডারে নয়, তাকে হেড অফিস কন্ট্রোল করে। এবং তিনি কেন এ ব্যাপারে কথা বলবেন সে বিষয়ে সাংবাদিকের কাছে জানতে চান।
উল্লেখ্য, ১৯৪৭ সালের ২৩ জুন প্রতিষ্টিত বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বাংলাদেশের একটি বৃহত রাজনৈতিক দল। যে দলের নেতৃত্বে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে ১৯৭১ সালে দেশের মুক্তিযোদ্ধা, যুবক, কৃষক, মজুরসহ সকল মানুষ মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিল। ৩০ লাখ শহীদ আর ২ লাখ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে আমরা একটি স্বাধীন সার্বভৌম দেশ পেয়েছি। বঙ্গবন্ধুই প্রথম এ দেশে ইসলামিক ফাউন্ডেশন স্থাপন করেছিলেন। পাকিস্তানী শাসক গোষ্টি যখন তাকে ধরে নিয়ে যায়, সে সময়ও তিনি বলেছিলেন, আমি মুসলমান, তার পর আমি বাঙ্গালী,। আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসার পর থেকে এ দেশে কওমী মাদ্রাসা, আলিয়া মাদ্রাসা, মসজিদ, মন্দিরসহ সকল ধর্মের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বিশেষ করে ইসলামের জন্য আধুনিক মসজিদ, মসজিদের ঈমামদের জন্য সম্মানী, মাদ্রাসা শিক্ষার ব্যাপক উন্নয়ন করেছেন করে চলেছেন। সেই দলকে নিয়ে যখন এমন ইসলাম বিরোধী কথা বার্তা শেয়ার হয় তার পরও অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে উর্দ্ধতন কমর্কতা গত দুই মাস যাবত ঘুমাচ্ছেন কোন ব্যবস্থা না নিয়ে। কি ভাবে কোন শক্তির বলে? ওই কমর্কতার আদর্শ নিয়েও ব্যাংক পাড়ায় নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে অবিলম্বে তদন্তমুলক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী এ জেলার সকল আওয়ামীমনা মানুষের।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*