Sunday , 18 April 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » চট্টগ্রাম বিভাগ » কুমিল্লায় গরু চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার
কুমিল্লায় গরু চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার

কুমিল্লায় গরু চোর চক্রের ৩ সদস্য গ্রেফতার

জহিরুল হক রাসেল, কুমিল্লা প্রতিনিধিঃ
কুমিল্লায় গরু চোরের সংঘবদ্ধ একটি বড়ো চক্রের সন্ধান পাওয়া যায়। সম্প্রতি জেলায় গরু খামারে ডাকাতি ও কৃষকের গরু চুরির ঘটনা বেড়ে গেলে অভিযানে মাঠে নামে পুলিশ। বুধবার রাত পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ওই চোর সিন্ডিকেটের মূল হোতা চুরি, ডাকাতি, অস্ত্রসহ ৬ মামলার আসামি মোহাম্মদ আলীসহ তিনসদস্যকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের নিকট থেকে প্রায় ৩ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। তারা চক্রের সদস্যদের নাম বলেছে। বৃহস্পতিবার কুমিল্লা পুলিশ সুপার কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান জেলা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম(বার)পিপিএম) এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (প্রশাসন) আজিম-উল-আহসান,অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (অপরাধ) শাহরিয়ার মোহাম্মদ মিয়াজী, অতিরিক্তি পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) তানভীর সালেহীন ইমন ও কোতয়ালী মডেল থানার (ওসি) মোঃ আনোয়ারুল হক। প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, জেলার আদর্শ সদর উপজেলার ঘিলাতলী গ্রামের মনিরুল ইসলাম চৌধুরীর খামার থেকে গত অক্টোবর রাতে অজ্ঞাতনামা ডাকাতরা ১৬টি গরু নিয়ে যায়। এ ঘটনায় কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়েছে। এছাড়া সম্প্রতি জেলায় গরু চুরির আরও কয়েকটি ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনার প্রেক্ষিতে পুলিশ ও গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) দুইটি টিম অভিযানে মাঠে নামে এবং একপর্যায়ে গরু চোরের একটি বড়ো চক্রের সন্ধান পায়। পুলিশের টিম এ চক্রের অন্যতম হোতা জেলার দেবিদ্বার উপজেলার চুলাশ গ্রামের হানিফ মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ আলীকে (৪০) গ্রেফতার করে। জিজ্ঞাসাবাদে তার দেওয়া তথ্যমতে চক্রের আরো ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা হচ্ছে- কুমিল্লা নগরীর দক্ষিণ চর্থা এলাকার রুপা মিয়ার ছেলে মাসুম মিয়া (৩৮) ও তার ভাই সাহিদ মিয়া (৩৫)। এসময় তাদের নিকট হতে ২ লাখ ৯৬ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম জানান, জিজ্ঞাসাবাদে চক্রের গ্রেফতারকৃতরা জানিয়েছেন- তারা জেলার বিভিন্ন এলাকার খামার ও কৃষকদের গরু চুরি করে কাভার্ড ভ্যান ও পিকআপে করে অন্যত্র বিক্রি করা ছাড়াও গরু জবাই করে মাংস বিক্রি করে আসছিল। এ গরু চোর সিন্ডিকেটের সাথে ১৫/২০ জন জড়িত রয়েছে। গ্রেফতারকৃত মোহাম্মদ আলীর বিরুদ্ধে চরি, ডাকাতি, অস্ত্র আইনে বিভিন্ন থানায় ৬টি মামলা রয়েছে। চক্রের অপর পলাতক সদস্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*