Sunday , 18 April 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » উপজেলার খবর » মুক্তাগাছা উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ- প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধা- জনতা মঞ্চের বিক্ষোভ-মানববন্ধন
মুক্তাগাছা উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ- প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধা- জনতা মঞ্চের বিক্ষোভ-মানববন্ধন
--প্রেরিত ছবি

মুক্তাগাছা উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ- প্রতিবাদে মুক্তিযোদ্ধা- জনতা মঞ্চের বিক্ষোভ-মানববন্ধন

ময়মনসিংহ ব্যুরো: ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই আকন্দের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলে তাকে বরখাস্ত চেষ্টায় ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বিশাল মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে স্থানীয় পৌরসভার সামনে ময়মনসিংহ-টাঙ্গাইল মহাসড়কের পাশে মুক্তিযোদ্ধা-জনতা মঞ্চের ব্যানারে এ মানববন্ধন হয়। পরে তারা শহরে বিক্ষোভ মিছিল শেষে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করেন। এসময় বক্তারা স্থানীয় এমপি সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ মূল ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে উল্লেখ করে তাকে এ ধরনের ষড়যন্ত্র থেকে বিরত থেকে নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যানকে কোন ধরণের হয়রানী না করে এলাকার উন্নয়নে মনোযোগী হবার আহবান জানান। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয় সংস্কৃতি
প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ এমপি জনগণের ভোটে নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই আকন্দকে স্থানীয় সরকারের বিধি অনুযায়ী স্বাভাবিক কাজকর্ম করতে না দিয়ে তাকে নানাভাবে হয়রানি করছেন।
সম্প্রতি তিনি ক্ষমতার অপব্যবহার করে চাপ প্রয়োগের মাধ্যমে ১০টি ইউনিয়নের
চেয়ারম্যানদের দিয়ে উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করিয়ে তার বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের মাধ্যমে তাকে চেয়ারম্যানের পদ থেকে অপসারনের চেষ্টা করছেন। স্থানীয় ত্যাগী আওয়ামীলীগ নেতাদেরকেও মিথ্যা মামলাসহ নানাভাবে হয়রানী করা হচ্ছে বলে উল্লেখ করা হয়। এসব ব্যাপারে তারা প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন। এসময় বক্তারা প্রতিমন্ত্রীর আশির্বাদে ইউনিয়নের চেয়ারম্যানরা নানা দুর্নীতির সাথে জড়িত বলে উল্লেখ করে সেসব দুর্নীতির তদন্তপূর্বক বিচার দাবী করেন। উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভাগীয় কমিশনার ও স্থানীয় সরকারের বিভিন্ন পর্যায়ে ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের লিখিত অভিযোগ অনতিবিলম্বে প্রত্যাহার করা না হলে আগামীতে কঠিন আন্দোলন গড়ে তোলা হবে বলেও মানববন্ধন থেকে হুশিয়ারী দেয়া হয়। এ সময় উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই আকন্দ তার বক্তব্যে বলেন, গত ২৬/০৮/২০ ইং
তারিখে স্থানীয় সংসদ সদস্য ও মাননীয় সাংস্কৃতিক প্রতিমন্ত্রী কে.এম খালিদ, উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে তার বাসায় ডেকে নিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ লিখিয়ে তাদের দিয়ে স্বাক্ষর করিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। আমি মুক্তাগাছার ৫ লাখ মানুষের প্রতিনিধি। একজন মানুষও আমার বিরুদ্ধে দুর্নীতির কথা বলতে পারবে না। তিনি বলেন, উপজেলা নির্বাচনের পর এমপি কে.এম খালিদ উপজেলা চেয়ারম্যানের বসার রুমটি কৌশলে ভাইস চেয়ারম্যানের বসার সুযোগ করে দিয়ে আমার কোন বসার ব্যবস্থাই করেননি।
তিনি বলেন, ইউনিয়ন পর্যায়ে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতাসহ সামাজিক ব্যষ্টনীর যেসব সুবিধা আসে তা উপজেলা চেয়ারম্যানের মাধ্যমে বাস্তবায়ন করার বিধান থাকলেও তা না করে এমপির ইশারায় উপজেলা প্রশাসন আমাকে বাদ দিয়ে তাদের দিয়ে করছে। কারণ হলো এক শ্রেণির দালাল ও কিছু সংখ্যক নেতার মাধ্যমে টাকা দিয়ে ম্যানেজ করে নিয়ম বর্হিভূত ভাবে এসব কার্ড বিতরণ করা হয়। তিনি বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যানের অধীন যেসব প্রতিষ্ঠান রয়েছে সেসব প্রতিষ্ঠানের নিয়ম অনুযায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান সভাপতিত্ব করবেন কিন্তু মন্ত্রীর ইশারায় স্থানীয় প্রশাসন আমাকে বাদ দিয়ে নিয়ম বর্হিভূতভাবে কাজ করে যাচ্ছে। তিনি উল্লেখ করেন, গত ৭/১১/২০ ইং জাতীয় সমবায়
দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলা পরিষদের যে অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় উক্ত অনুষ্ঠানে উপজেলা চেয়ারম্যানের নাম নেই। তিনি বলেন, যদি এসব অনিয়ম বন্ধ না করা হয় তাহলে মন্ত্রীর বিরুদ্ধে আম জনতা নিয়ে মাঠে নামবেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আবুল কাসেম, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা বিল্লাল হোসেন মন্ডল, শ্রমিক নেতা আহমেদ ইমতিয়াজ হবি, এরশাদুর রহমান, আক্রাম হোসেন জনি প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধনে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের পাশাপাশি বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত নারী, পুরুষ কর্মীরা অংশ নেন।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*