Tuesday , 24 November 2020
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
Home » দৈনিক সকালবেলা » আইন ও আদালত » মুক্তাগাছায় গৃহবধু ধর্ষণ ও হত্যা মামলার প্রধান আসামী আশরাফুল গ্রেফতার
মুক্তাগাছায় গৃহবধু ধর্ষণ ও হত্যা মামলার প্রধান আসামী আশরাফুল গ্রেফতার
--প্রেরিত ছবি

মুক্তাগাছায় গৃহবধু ধর্ষণ ও হত্যা মামলার প্রধান আসামী আশরাফুল গ্রেফতার

মুক্তাগাছা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি: মুক্তাগাছায় গৃহবধু ধর্ষণ ও হত্যা মামলার প্রধান আসামী আশরাফুলকে ঢাকা উত্তরার তুরাগ এলাকা থেকে গ্রেফতার করেছে মুক্তাগাছা থানা পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মুক্তাগাছা থানার এস আই ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মোঃ হুমায়ুন কবির মুক্তাগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার বিশ্বাসের নির্দেশে ঢাকা উত্তরা তুরাগ থানা এলাকা থেকে আশরাফুল (২৮) কে গ্রেফতার করে। মামলার প্রধান আসামী আশরাফুল
ঘটনার পর থেকেই পলাতক ছিল। দীর্ঘদিন যাবত পুলিশ সন্ধান করে অবশেষে গ্রেফতার
করতে সক্ষম হয়। আশরাফুল মুক্তাগাছা উপজেলার কুতুবপুর গ্রামের ফজলুল হক ওরফে
ফজুর পুত্র। জানা যায়, মুক্তাগাছা শহরের লক্ষীখোলা এলাকার ফয়জুর রহমান (ফজল) এর কন্যা ফজিলাতুন তাহেরা (২৫) ঢাকা নারায়নগঞ্জ এলাকায় একটি গার্মেন্টস ফ্যাক্টরীতে
কাজ করত। সেই সুবাদে আশরাফুলের সাথে পরিচয় ঘটে। এদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। ফজিলাতুন তাহেরার সাথে তার পূর্বের স্বামী শাহ আলম বাচ্চুর বিজ্ঞ আদালতে পারিবারিক বিষয় নিয়ে মামলা চলছিল। মামলা চলমান অবস্থায় ফজিলা গার্মেন্টসে কাজ করতে চলে যায়। গত ১ মার্চ ২০২০ ইং তারিখে নিজ বাড়ি থেকে নারায়নগঞ্জ যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়। যাওয়ার সময় তার পিতা মোঃ ফয়জুর রহমান ফজল কে বলে যায় আশরাফুলের সাথে নারায়নগঞ্জ যাবে। আশরাফুলের মোবাইল নাম্বার ০১৩০২-৪৪২৭৪০ দিয়ে যায়। ফজিলাতুন তাহেরার পিতা ফয়জুর রহমান ফজল আশরাফুলের মোবাইলে ফোন করলে আশরাফুল জানায়, ফজিলাতুন তাহেরা তাকে সাথে নিয়ে নারায়নগঞ্জ যাবে। তাই ফজিলাতুন তাহেরা কুতুবপুর গ্রামে আশরাফুলের বাড়িতে যায়। ঐদিন রাত ৯টা থেকে সাড়ে ৯টার মধ্যে আশরাফুলের বাড়িতেই ধর্ষণ ও হত্যার শিকার হন। পরদিন সকালে আশরাফুলের বাড়ির কাছে বাঁশঝাড়ের নিচে ফজিলার মৃতদেহ পাওয়া যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। ২৬/৯/২০২০ ইং তারিখে ময়না তদন্তের রিপোর্ট পুলিশের হাতে পৌছায়। ময়না তদন্তের রিপোর্টে ধর্ষণ ও হত্যার আলামত পাওয়া যায়। ময়না তদন্তের রিপোর্টের ভিত্তিতে পুলিশ ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধনী-০৩) এর ৯(২)/৩০ এ ধারায় প্রধান আসামী আশরাফুলসহ ৬ জনকে আসামী করে ফয়জুর রহমান ফজল বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ২৪, তারিখ: ২৮/০৯/২০২০।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*