Thursday , 22 April 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » অপরাধ ও দূর্নীতি » নাইক্ষ্যংছড়ি বাইশারীতে এক অসহায় পরিবারের করুন আর্তনাদ নিজ বসতভিটা নিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি !

নাইক্ষ্যংছড়ি বাইশারীতে এক অসহায় পরিবারের করুন আর্তনাদ নিজ বসতভিটা নিয়ে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি !

নাইক্ষ্যংছড়ি বান্দরবান ঃ বান্দরবানের নাইক্ষংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের  ৮ নং ওয়ার্ড আলী মিয়া পাড়া গ্রামের বাসিন্দা অসহায়  বয়োবৃদ্ধ ছুরত আলম ও তার পরিবারের করুন আর্তনাদে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। তিনি ও তার স্ত্রী এবং দুই পুত্রের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে অহেতুক হয়রানি করে আসছে বলে সাংবাদিকদের নিকট জানান। ছুরত আলমের দাবী বাপ দাদার আমল থেকে যে বসতভিটায় বসবাস করে আসছি। যে বসতভিটার খতিয়ান রয়েছে। আজ সে বসতভিটার জন্য মিথ্যা মামলা দিয়ে অহেতুক হয়রানি করছে একই ওয়ার্ডের বাসিন্দা মৃত মংনিং মার্মার ছেলে মংপ্রু মার্মা। যে খতিয়ান দিয়ে বিজ্ঞ  আদালতে মামলা করেছেন তা আমার খতিয়ান থেকে সম্পুর্ন ভিন্ন। তার পরও কেন এই হয়রানি তিনি হতবাক। স্থানীয় বাসিন্দা মুক্তি যোদ্ধা আলতাজ মিয়া জানান পুরো গ্রামটার নাম করন হয়েছে ছুরত আলমের পিতার নামে আলী মিয়া পাড়া। তারপরও যদি এ ধরনের হয়রানির শিকার হতে হয় তাহলে আমরা এলাকাবাসী ও হতবাক। একিই গ্রামের উপজাতি বাসিন্দা পাড়া প্রধান  অংক্য মার্মা  জানান আমরা ছুরত আলমকে তার বসতভিটায় দীর্ঘ কাল যাবৎ বসবাস করতে দেখে আসছি। আরেক স্থানীয় বাসিন্দা আবদুল জব্বার জানান আমরা শুনেছি শত বছর আগে তাদের বাপদাদার বসত ভিটা। ছুরত আলমের পুত্র মোঃ ইউছপ  জানান আমার বড় ভাই মাওলানা আইয়ুব আলী আনসারী পিতার খতিয়ান ভুক্ত জমিতে বসত ঘর নির্মাণ করছিল। ঘরের কাজ প্রায় সমাপ্তির পথে। এরই মধ্যে গত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখ মাননীয় অতিরিক্ত জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত বান্দরবন পার্বত্য জেলা পিটিশন মামলা দায়ের করেন মংপ্রু মার্মা। যার ফলে মাননীয় আদালত ১৪৫ ধারা জারি করায় বসত ভিটার কাজ বন্ধ রয়েছে। স্থানীয় লোকজনের দাবী এটি ছরত আলমের বাপ দাদার বসতভিটা ও খতিয়ান ভুক্ত জমি। যাহা সরেজমিনে তদন্ত করলে আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*