Friday , 15 January 2021
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
Home » জাতীয় » শ্রমিকদের বেতন না দিয়ে পালানোর সময় কারখানা পরিচালক আটক
শ্রমিকদের বেতন না দিয়ে পালানোর সময় কারখানা পরিচালক আটক
--প্রতীকী ছবি

শ্রমিকদের বেতন না দিয়ে পালানোর সময় কারখানা পরিচালক আটক

অনলাইন ডেস্ক:

সাভারে একটি তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকদের তিন মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধ না করে পালিয়ে যাওয়ার সময় কারখানার পরিচালককে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৮ নভেম্বর) রাতে মিরপুরের ইস্টার্ন হাউজিংএর পল্লবী এলাকা থেকে তাকে আটক করে সাভার মডেল থানা পুলিশ। আটক ওই গার্মেন্টস পরিচালকের নাম মরিয়ম বেগম (৩৭)। মরিয়ম কুমিল্লা জেলার দেবীদ্বার থানা এলাকার মোসাদ্দেক মোবারক আলীর স্ত্রী। তিনি সাভারের বিরুলিয়ার গোলাপ গ্রামের ওমর ফ্যাশন লিমিটেডে পরিচালক পদে কর্মরত ছিলেন।

পুলিশ বলছে, বিরুলিয়ার গোলাম গ্রামে ওমর ফ্যাশন লিমিটেডে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে আসছিলো ৬৯ শ্রমিক কর্মচারী। পরে শ্রমিকদের আগস্ট, সেপ্টেম্বর, অক্টোবর মাসের বেতন দেওয়ার কথা ছিলো নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে। কিন্তু মালিক পক্ষ বিভিন্ন ভাবে টালবাহনা করে শ্রমিকদের তিন মাসের বকেয়া বেতন পরিশোধ না করে তাদেরকে ভয়ভীতি দেখিয়ে কৌশলে কারখানায় তালা ঝুলিয়ে গা ঢাকা দেয়।

পরে শ্রমিকদের পক্ষ থেকে শফিকুল ইসলাম নামের এক শ্রমিক সবাইকে নিয়ে ১০ নভেম্বর সাভার মডেল থানায় উপস্থিত হয়ে কারখানাটির চেয়ারম্যান মোসাদ্দেক মোবারককে প্রধান আসামি করে ভবন মালিক মোহাম্মদ বিল্লালকে দুই ও পরিচালক মরিয়ম বেগমকে তিন নাম্বার আসামি করে মামলা দায়ের করে। মামলা দায়েরের পরে আসামিদের গ্রেপ্তার করতে মাঠে নামলেও ঘন ঘন স্থান পরিবর্তন করে তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

পরে গতকাল রাতে কারখানার পরিচালক মরিয়ম বেগম মিরপুরের ইস্টার্ন হাউজিং এর পল্লবী এলাকার ভাড়া বাড়ি থেকে আসবাব পত্রসহ পালিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশ ও শ্রমিকরা তাকে আটক করে। বর্তমানে আটক ওই গার্মেন্টস পরিচালক সাভার মডেল থানায় রয়েছে। দুপুরে তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

এদিকে তিন মাসের বকেয়া বেতন না পাওয়ায় ওই কারখানার শ্রমিকরা মানবেতর জীবন যাপন করছেন। রাত থেকেই ওই পরিচালকের শাস্তির দাবি ও বকেয়া বেতনের জন্য সাভার মডেল থানায় জড়ো হন অনেক শ্রমিক।

শ্রমিকদের দাবি, ওই কারখানার ৬৯ জন শ্রমিক কর্মচারীর তিন মাসের বকেয়া বেতন বাকি রয়েছে ২১ লাখ টাকা। কিন্তু কারখানার মালিকপক্ষ কারখানার প্রস্তুত করা শিপমেন্টের কাপড় রপ্তানি করার পরে বায়ারদের কাছ থেকে ২১ লাখ টাকা উত্তোলন করে শ্রমিকদের পরিশোধ না করেই নিজেরাই ভাগবাটোয়ারা করে নিয়েছেন। এতে করে শ্রমিকরা নিজের পরিশ্রমের টাকা না পেয়ে তিন মাস ধরে কষ্টে জীবনযাপন করছেন।

এ বিষয়ে সাভার মডেল থানার ওসি তদন্ত সাইফুল ইসলাম বলেন, মামলার অন্য দুই আসামিকেও আটক করতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চলছে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*