Friday , 22 January 2021
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
Home » জাতীয় » সরকারি বাসায় না থাকলে সরকারি ভাতা পাবেন না
সরকারি বাসায় না থাকলে সরকারি ভাতা পাবেন না
--ফাইল ছবি

সরকারি বাসায় না থাকলে সরকারি ভাতা পাবেন না

অনলাইন ডেস্ক:

যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারীর নামে সরকারি বাসা বরাদ্দ রয়েছে বা বরাদ্দ হবে, তাদের সেখানেই থাকতে হবে; যদি না থাকেন, তাহলে তাঁরা বাসাভাড়া বাবদ যে ভাতা পান, সেটা পাবেন না—এ কথা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শেরেবাংলানগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত একনেকসভায় যুক্ত হন। অন্য মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও সচিবরা এনইসিতে ছিলেন।

বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনা বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মো. আসাদুল ইসলাম বিস্তারিত জানান। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘সরকারি বেতন বৃদ্ধির ফলে এখন যে হাউসরেন্ট (বাড়িভাড়া) পাওয়া যায়, তার চেয়ে কম পয়সায় বাইরে বাসাভাড়া পাওয়া যায়। এ জন্য বাসাগুলো তৈরি থাকে, অব্যবহৃত থাকে এবং নষ্ট হয়। ফলে একটা নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন যে যাঁদের নামে বাসা বরাদ্দ হবে তাঁদের থাকতেই হবে। বিশেষ করে বিরাজমান যে বাসাগুলো আছে সেখানে তাঁদের থাকতে হবে। যদি না থাকেন, তাহলে তাঁরা বাড়িভাড়া বাবদ ভাতা পাবেন না। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।’

এ ছাড়া রেট শিডিউল বা ক্রয় প্রাক্কলন পরিবর্তনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এই রেট শিডিউল অবশ্যই অর্থ মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত হতে হবে; অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া এ রেট শিডিউল ব্যবহার করা যাবে না। পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় এটা খতিয়ে দেখবে, যে রেট শিডিউল করা হয়েছে তা অর্থ মন্ত্রণালয় কর্তৃক অনুমোদিত কি না।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা তুলে ধরে সচিব বলেন, প্রত্যেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একটি মাস্টারপ্ল্যান থাকতে হবে। তারা যেন যত্রতত্র বিল্ডিং না করে, খেলার মাঠগুলো নষ্ট না করে, তা ছাড়া অপরিকল্পিতভাবে তারা যেন বিল্ডিং তৈরি না করে। আমরা যে অবকাঠামো রাস্তাঘাট তৈরি করছি তা যথাযথ মানে যথাযথভাবে তৈরি হচ্ছে কি না সেটি তদারকি করার জন্য প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে  নির্দেশনা দিয়েছেন যে প্রতিটি উপজেলায় একটা মাস্টারপ্ল্যান থাকতে হবে।

মানবসম্পদ উন্নয়ন প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন, যেহেতু এখানে পানি সরবরাহ করতে হবে, সেহেতু যেখানে ভূগর্ভস্থ পানি আছে সেখানে তাই ব্যবহার করতে হবে। সর্বশেষ প্রধানমন্ত্রী প্রিপেইড গ্যাস মিটার স্থাপনের ব্যাপারে বলেছেন, পর্যায়ক্রমে সবখানে প্রিপেইড মিটার লাগাতে হবে বিশেষ করে শিল্প-কলকারখানাগুলোতে। কারণ সেখানে বাসাবাড়ির তুলনায় বেশি গ্যাস ব্যবহার করা হয়।

একনেকসভায় তিন হাজার ৩০৮ কোটি ৩৬ লাখ টাকা ব্যয়ে পাঁচটি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে সরকার দেবে এক হাজার ২৪৫ কোটি ৩০ লাখ, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ২০ কোটি ৯৮ লাখ ও বিদেশি ঋণ দুই হাজার ৪২ কোটি আট লাখ টাকা।

অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হলো—শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ‘রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিকতর উন্নয়ন (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্প; স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের তিনটি প্রকল্পগু যথাক্রমে ‘নরসিংদী জেলার পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন’ প্রকল্পগু; ‘খুলনা শহরে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা নির্মাণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ (১ম সংশোধিত)’ প্রকল্পগু ও ‘মানবসম্পদ উন্নয়নে গ্রামীণ পানি সরবরাহ, স্যানিটেশন এবং স্বাস্থ্যবিধি’ প্রকল্পগু এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘প্রিপেইড গ্যাস মিটার স্থাপন (২য় সংশোধিত)’ প্রকল্পগু।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*