Saturday , 16 January 2021
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
Home » শিক্ষাসংস্কৃতি » ক্যাম্পাস » ডেটা প্যাক বিড়ম্বনায় জবি শিক্ষার্থীরা
ডেটা প্যাক বিড়ম্বনায় জবি শিক্ষার্থীরা

ডেটা প্যাক বিড়ম্বনায় জবি শিক্ষার্থীরা

জবি প্রতিনিধি : অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম নিশ্চিতকরণে রবির সাশ্রয়ী মূল্যের ডেটা-প্যাক নিয়ে বিড়ম্বনায় পড়েছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। মুঠোফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান রবির সাথে চুক্তি অনুযায়ী ১৯৯ টাকায় ৩০ জিবি দেয়ার কথা থাকলেও সেবাটি পাচ্ছেন না শিক্ষার্থীরা। ডেটা-প্যাক সুবিধার জন্য নতুন সিম কিনে রেজিস্ট্রেশন করার পরও ফিরতি বার্তা না আসাসহ বিভিন্ন সমস্যার কথা বলছেন তারা।
জানা যায়, গত ৪ঠা নভেম্বর জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও মুঠোফোন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান রবি আনুষ্ঠানিকভাবে উপাচার্যের সভা কক্ষে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছিলেন। 
চুক্তি সূত্রে জানা যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ১৯৯ টাকার ৩০ জিবি ডেটা প্যাকেজের মধ্যে ৯৯ টাকা প্রদান করবেন এবং বাকী ১০০ টাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ রবি’কে প্রদান করবেন। করোনা পরিস্থিতিতে শিক্ষার্থীদের সুবিধার বিষয় বিবেচনা করে দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে রবির সেবাকেন্দ্রে গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা পরিচয়পত্র দেখিয়ে এ স্পেশাল প্যাকেজ নিতে পারবেন। প্যাকেজটির মেয়াদ ছিলো ৫ই নভেম্বর ২০২০ থেকে ৫ই জানুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত। কিন্তু এই চুক্তির দেড় মাস শেষ হলেও ডেটা-প্যাকটির সুবিধা পাননি বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।
গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী আব্দুর রাজ্জাক বলেন, অনলাইন ক্লাসের জন্য ডেটা কেনা অনেক ব্যয়বহুল তবুও আমরা ক্লাস করে যাচ্ছি। কিন্ত যখন শুনেছি রবির সাথে চুক্তির মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্বল্প মূল্যে ডেটা দিবে তখন  বিশ্ববিদ্যালয়ের দেয়া শর্ত অনুযায়ী রবি সিম কিনেছি। ডেটা-প্যাক নেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছি কিন্ত এখনো কোনো কনফার্মেশন মেসেজ পাইনি।
সমাজকর্ম বিভাগের শিক্ষার্থী অহিদুর রহমান বলেন, গ্রামে থাকি, ওয়াইফাই সুবিধা নেই। ডাটা কিনে ক্লাস করা অত্যন্ত কষ্টকর। সিম কিনে ১৯৯ টাকা রিচার্জ করেছি, শর্ত অনুযায়ী ১৯৯ টাকা দিয়ে ৩০ জিবি ডাটা প্যাক দেয়ার কথা পাশাপাশি ১৯৯ টাকার মধ্যে ভর্তুকি ১০০ টাকা ফেরত দেয়ার কথা কিন্তু সেই টাকা এখনো ফেরত আসেনি। জানুয়ারির ৫ তারিখ এই প্যাকেজের মেয়াদ শেষ, এরপর তো আর কোনো সম্ভাবনা নেই।
এবিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. ওহিদুজ্জামান বলেন, এরকম কোনো অভিযোগ শুনিনি। অর্থ দপ্তরে যোগাযোগ করুন। তবে আইটি জটিলতার জন্য শিক্ষার্থীদের আইটি দপ্তরে যোগাযোগ করতে বলেন তিনি। 
এবিষয়ে মন্তব্য জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. কামালউদ্দীন আহমেদকে একাধিকবার ফোন করেও যোগাযোগ করা যায়নি। 

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*