Monday , 8 March 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » খুলনা বিভাগ » থানায় হামলার অভিযোগ করে ফেরার পথে কুষ্টিয়া বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটে সভাপতির পুত্রকে কুপিয়ে জখম

থানায় হামলার অভিযোগ করে ফেরার পথে কুষ্টিয়া বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটে সভাপতির পুত্রকে কুপিয়ে জখম

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার প্রাণকেন্দ্র এনএসরোডে  অবস্থিত বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় দোকান মালিক রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। থানায় অভিযোগ দায়ের করে রাতে বাড়ি ফেরার পথে ৯ টার দিকে মালিক সমিতির সভাপতি রফিকুল ইসলামের পুত্র মামুনকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জখম করেছে সন্ত্রাসীরা। রফিকুল ইসলাম জানান, বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটের ২য় তলার একাংশ জায়গার মালিক ছিলেন কুষ্টিয়া শহরের থানাপাড়া এলাকার রহমত আলী। গত ৭-৮ মাস পূর্বে তিনি তার দোকানের পজিশন বিক্রয় করেন তার কাছে। পজিশন ক্রয় করে রফিকুল ইসলাম মাহি বস্ত্রালয় নামের দোকান তৈরী করেন। সেসময় রাস্তার পজিশনও বিক্রি করে দেন রহমত আলী। স¤প্রতি ২য় তলার মার্কেটটি জাকজকম হয়ে গেলে রহমত আলী রাস্তার পজিশনটি পুনরায় অন্য ব্যক্তির কাছে বিক্রয় করেন। এতে রফিকুল ইসলামের কাছে ওই রাস্তার অর্ধেক অংশের ভাগ দাবী করে রাস্তা ক্রয়কারী ক্রেতা। পজিশন ক্রেতা রফিকুল ইসলাম তাতে রাজি হন। তার বিনিময়ে রাস্তার অর্ধেক জায়গার টাকা ফেরত চান রফিকুল ইসলাম। কিন্তু রহমত আলী তাতে রাজি না হয়ে ক্রেতা রফিকুল ইসলামের উপর চড়াও হন। এ বিষয় নিয়ে  আজ ১৬ ফেব্রæয়ারী মঙ্গলবার বিকেল ৫টার সময় আলোচনায় বসেন রহমত আলী ও রফিকুল ইসলাম। আলোচনা চলাকালীন সময়ে রহমত আলী মাহি বস্ত্রালয়ের প্রোপাইটর ও পজিশন ক্রেতা রফিকুল ইসলামকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ শুরু করে। রহমত আলী এসময় ফোন করে সন্ত্রাসীদের ডেকে আনে। সন্ত্রাসী ওই গ্রæপে ৫০-৬০ জন কিশোর গ্যাং এর সদস্য ছিলো বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। ওইসব কিশোর গ্যাং এর সদস্যরা এসেই রফিকুল ইসলাম সহ দোকানের কর্মচারীদের উপর কিল-ঘুষি-চর থাপ্পড় মারতে শুরু করে। পরে অবস্থার আরো অবনতি ঘটে। কিশোর গ্যাং এর সদস্যরা কাঠের বাটাম ও বাঁশের লাঠি দিয়ে হামলা চালায়। পরে আশপাশের দোকানদাররা এসে রফিকুল ইসলাম সহ তার কর্মচারীদের উদ্ধার করে। এ ঘটনায় সন্ধ্যায় রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানায় ৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধ অভিযোগ দায়ের করেন। থানায় অভিযোগ দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে রফিকুল ইসলাম সহ তার পুত্র মামুনের ওপর সন্ত্রাসীরা হামলা করে। মামুনকে উপযুপরি কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রাসীরা। বর্তমানে মামুন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে।এ বিষয়ে বঙ্গবন্ধু মার্কেটের ব্যবসায়ীরা বলেন, আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে হামলাকারীদের গ্রেফতার ও ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত না করলে সকল দোকান-পাট বন্ধ রাখা হবে। এব্যাপারে কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ শওকত কবীর বলেন, আমি হাসপাতালে গিয়েছিলাম। আহত অবস্থায় মামুনকে দেখে এসেছি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেবো। বিকেলে বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটে মারামারির ঘটনায় পাল্টপাল্টি অভিযোগ পেয়েছি।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*