Sunday , 7 March 2021
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষ চলাকালে অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী
সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষ চলাকালে অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী
--প্রেরিত ছবি

সিলেটে পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষ চলাকালে অল্পের জন্য বেঁচে গেলেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী

সিলেট ব্যুরো চীফ:: সিলেট নগরীর চৌহাট্টা এলাকায় অবৈধ স্ট্যান্ড উচ্ছেদকালে সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) কর্মী ও পরিবহন শ্রমিকদের সংঘর্ষ চলাকালে অল্পের জন্য বেঁচে যান সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী । সিসিকের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সংঘর্ষের এক পর্যায়ে ফাহাদ নামের এক যুবক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর দিকে বন্দুক নিয়ে তেড়ে যান। পরে পুলিশ তাকে ধাওয়া করে আটক করে। উল্লেখ্য, বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) দুপুর একটার দিকে মাইক্রোবাস ও প্রাইভেটকারের অবৈধ স্ট্যান্ড উচ্ছেদ নিয়ে এ সংঘর্ষ বাঁধে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

সিলেট কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এস এম আবু ফরহাদ বলেন, পুলিশ আধঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় ১৬ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোঁড়া হয়। তিনি বলেন, ঘটনাস্থল থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ফয়সল আহমদ ফাহাদ (৩৮) নামে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।

সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ শাখা জানায়, আজ দুপুরে কাউন্সিলর, ম্যাজিস্ট্রেট ও সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের নিয়ে সড়কের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে যান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। এসময় তিনি দেখতে পান পরিবহন শ্রমিকরা তখনও সড়ক ও ফুটপাত দখল করে গাড়ি পার্কিং করে রেখেছেন। এসময় মেয়রসহ সিসিকের কর্মকর্তারা সড়ক সম্প্রসারণের কাজ শুরু করতে চাইলে তারা বাঁধা দেন। এ নিয়ে বাকবিতন্ডার একপর্যায়ে সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তাদের উপর হামলা চালায় পরিবহন শ্রমিকরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পরিবহন শ্রমিকদের হামলার পর পর সিটি করপোরেশনের কর্মীরাও পাল্টা হামলা চালায়। একপর্যায়ে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে চাইলে পুলিশের উপরও হামলা চালায় শ্রমিকরা। এসময় অর্ধশতাধিক গাড়ি ভাংচুর করা হয়।

সিলেট সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আব্দুল আলিম শাহ বলেন, মেয়র, কাউন্সিলর ও ম্যাজিস্ট্রেটদের সাথে আলাপচারিতার এক পর্যায়ে পরিবহন শ্রমিকরা আচমকা হামলা চালায়। এসময় কাউন্সিলরসহ সিসিকের অন্তত ৮ জন আহত হয়েছেন।

তিনি বলেন, হামলার একপর্যায়ে বন্দুক নিয়ে একজন মেয়রের দিকে তেড়ে আসে। পুলিশ সাথে সাথে তাকে আটক করেছে। আমাদের আশঙ্কা মেয়রকে হত্যার উদ্দেশ্যই সে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে এসেছিলো।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*