Saturday , 8 May 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » জীবনযাপন » আমার প্রতিবন্ধী জীবনে কষ্টে কথা ও সমাজে প্রতিবন্ধীদের বাস্তবতা
আমার প্রতিবন্ধী জীবনে কষ্টে কথা ও সমাজে প্রতিবন্ধীদের বাস্তবতা

আমার প্রতিবন্ধী জীবনে কষ্টে কথা ও সমাজে প্রতিবন্ধীদের বাস্তবতা

অনলাইন ডেস্ক: আমি একজন হত দরিদ্র পরিবারে শারীরিক প্রতিবন্ধী সন্তান। প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মেছি বলেই আমাকে কেউ তেমন ভালো পায় নেই। সবাই অবহেলা ও ঘৃনা চোখে দেখেছে। আমি যেই লিখতে পারি তা দেখে একটু ভালো পেতে শুরু করলো। আর তখনি বাবা মারা যায়। আর যখন বড় হয়ে একটু বুঝতে পারলাম যে আমি প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মেছি। বড় হয়ে কি কর্ম করে খাবো। তখন ভাবলাম যে অন্যের কাছে করুনা পাএ না হয়ে। অন্য উপর নির্ভরশীল না হয়ে বেচে থাকতে চেয়ে ছিলাম। আমি যখন লিখতে পারি। লেখা পড়া করলে কিছু একটা কর্ম করে খেতে পারবো। এই আশা ভেবে অভাবে সংসারে কষ্টে লেখা পড়া করে মাস্টাস পাস করেছি। লেখা পড়া বিষয় কেউ আমাকে কোন প্রকার সাহার্য্য সহযোগিতা করে নেই। একটি মাত্র বড় বোন ছিল সে একটু সাহার্য্য করতো। সেও দুঘটনা মারা গেছে। আমাকে দেখার মত বিধাতা ছাড়া আর কেউ রইল না। আমি প্রতিবন্ধী হলেও সব ধরণের কাজ করতে পারি। এ ছাড়াও ফুটবল ও ক্রিকেট খেলতে পারি। কেউ না দেখলে বিশ্বাস হবে না। একটি কর্ম সংস্থানে জন্য আমি মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরে বেরিয়েছি এমনকি (শ্রদ্ধেয় দেশরত্ন) কাছে কর্মসংস্থানের জন্য বহুবার আবেদন করেছিলাম। এ ছাড়াও শ্রদ্ধেয় এক (এম পি মহোদয়ে )কাছে একটা চাকরি সুপারিশ জন্য গিয়েছিলাম। আমি একটি চাকরি আবেদন প্রবেশ পএ নিয়ে শ্রদ্ধেয় (এম পি মহোদয় )বাসার গিয়ে ছালাম দিলাম। (এম পি মহোদয় )আমাকে দেখে প্রথমে বলে কোন সাহায্য করতে পারবে না বলে। আমি (এম পি মহোদয়) কে বললাম সাহায্য জন্য আসি নাই। একটা চাকরি সুপারিস জন্য এসেছি। (এম পি মহোদয় )কে বললাম আমি প্রতিবন্ধী মানুষ।কি কর্ম করে খাবো। (এম পি মহোদয়) আমাকে ভিক্ষা করে খেতে বলে। আমি (এম পি মহোদয়) কে বললাম আমার বাবা নেই। কে আমাকে খাওয়াবে।তার উওরে (এম পি মহোদয়) আমাকে বলে অন্য একজন কে বাবা ডাকতে। আমি প্রতিবন্ধী ও দরিদ্র বলে কেউ আমাকে একটি কর্মসংস্থানের জন্য দয়া বা সহানুভূতি করে নেই।জীবনে বেচে থাকার আসায় কষ্ট করে লেখা পড়া করলাম। জীবনে কি হলো কিছুই হলো না। আজও কষ্টে মানব বেতর জীবন যাপন করছি। কি করে জীবন চালাবো। এখন মরন ছাড়া আমার কোন উপায় পাই নেই। কারও দয়া যদি যে কোন একটি কর্মসংস্থান পেতাম। তাহলে কারও কাছে আমার ভিক্ষা হাত বাড়াতে হত না । প্রতিবন্ধীরা সমাজের সবচেয়ে অবহেলিত এক প্রকারের মানুষ বর্তমানে বলা চলে। যারা হয়তো জন্মের পর থেকে মৃত্যু পর্যন্ত শুধু সমাজে কিছু কিছু মানুষের কাছে ঘৃনা,সমাজে বোজা, অবহেলার পাত্রই রয়ে যায়। আচ্ছা বলতে পারেন তাদের অপরাধটা কি। প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মেছে এটাই কি তাদের সবচেয়ে বড় অপরাধ। প্রতিটা মানুষই বিধাতার সৃষ্টি। কোনো মানুষকে নিয়ে বিদ্রুপ করা মানে কি এটা নয় যে আপনি বিধাতার সৃষ্টিকে নিয়ে বিদ্রুপ করছেন। আপনি আজকে যখন অসহায় একটা প্রতিবন্ধী মানুষ কে নিয়ে বিদ্রুপ করছেন। কালকে যে আপনার ঘরে প্রতিবন্ধী সন্তান জন্মাবে না তার গ্যারান্টি কি আপনি দিতে পারেন। একটা মানুষ কখনোই আপনার কাছে করুনার প্রার্থী হতে চাইবে না। অন্য সবার মতো সেও আপনার কাছে একটু সহানুভূতি ভালো ব্যবহার আশা করে এর থেকে বেশি কিছু না। প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মালে একটা মানুষ পরিবার থেকে শুরু করে স্কুল কলেজ,রাস্তাঘাট, এমনকি অফিস আদালতেও শুধু ঘৃনা,করুনা, অবহেলার পাত্রই রয়ে যায়। এমনটা কেনো হবে পৃথিবীর বুকে প্রত্যেকটা মানুষেরই কর্ম করে বেঁচে থাকার অধিকারটা সমান। তাহলে প্রতিবন্ধীদের বেলায় ভিন্ন কেনো হবে। একটু ভেবে দেখুনতো যদি আপনি প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মাতেন। তখন মানুষের অবহেলা,দৃষ্টিকটু মনোভাব দেখতে আপনার কেমন লাগতো। আপনার নিজের বোন,ভাই,সন্তান যদি প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মাতো আপনি কি পারতেন তখন তার সাথে এমন আচরন করতে। রাস্তা দিয়ে যখন কোনো প্রতিবন্ধী মানুষ যাতায়াত করে তখন তাদেরকে দেখে ভাবটা আমাদের এমন হয় যেনো আগে কখনো প্রতিবন্ধী মানুষই দেখেনি। অন্য গ্রহের কোনো মানুষ হেটে যাচ্ছে রাস্তা দিয়ে। এগুলো নিতান্তই বিকৃত মানসিকতার পরিচয়। পৃথিবীর নামক গ্রহ যেখানে বেঁচে থাকতেই আমাদের প্রতিনিয়ত জীবনে সাথে সংগ্রাম করতে হয়। সেখানে একটা মানুষ যখন প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মায় তখন তার কষ্টটা কিরুপ হয় ভেবে দেখেছেন কখনো। প্রতিনিয়ত কষ্ট পেতে পেতে তারা একসময় বেঁচে থাকার ইচ্ছেটাই হারিয়ে ফেলে। তারা একসময় বুঝতে শিখে যায় এই পৃথিবীর তাদের মুল্য দিতে জানে না,দিবেও না কখনো। পৃথিবীর প্রত্যেকটা মানুষকেই সম্মান করা উচিত। আপনি তখনই মানুষের কাছে সম্মান পাবেন যখন আপনি অন্যকে সম্মান করতে শিখবেন। পৃথিবীতে প্রতিবন্ধী হয়ে জন্মানো টা কারো অপরাধ নয়। তাদের কে নিয়ে বিদ্রুপ করাটা খুবই নিচু মানসিকতার পরিচয়। প্রত্যেক মানুষের মাঝেই সীমাবদ্ধতা রয়েছে। প্রতিবন্ধীরা আমাদের মতোই সাধারন মানুষ। আলাদা কেউ না তাদেরকে ভালোবাসতে শিখুন। তাদের কে সহযোগিতা ও সহমর্মিতা করেন। তাদের কে সম্মান দেন। এতে আপনার সম্মান কমবে না বরং বাড়বে ও বিধাতার কাছে সন্তুষ্টি লাভ করবে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*