Saturday , 8 May 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » জাতীয় » খালেদা জিয়ার আগামী ৪৮ ঘণ্টায় জ্বর না আসলে আশঙ্কামুক্ত
খালেদা জিয়ার আগামী ৪৮ ঘণ্টায় জ্বর না আসলে আশঙ্কামুক্ত
--ফাইল ছবি

খালেদা জিয়ার আগামী ৪৮ ঘণ্টায় জ্বর না আসলে আশঙ্কামুক্ত

অনলাইন ডেস্ক:

করোনায় আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা অনেকটা স্থিতিশীল। চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় জ্বর না আসলে তাঁকে অনেকটা আশঙ্কামুক্ত বলা যাবে। গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়ে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য গঠিত ৪ সদস্যের মেডিক্যাল টিমের প্রধান অধ্যাপক ডা. এফ এম সিদ্দিকী বলেন, ‘শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে খালেদা জিয়ার কোনো জ্বর আসেনি। এটা খুবই ভালো লক্ষণ’।

রবিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের বাসভবন ফিরোজায় খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে এসব কথা বলেন তিনি।

রাত সোয়া ৯টা থেকে প্রায় আড়াই ঘণ্টাব্যাপী খালেদা জিয়ার সর্বশেষ অবস্থান দেখে ডা. এফ এম সিদ্দিকী বলেন, আজ খালেদা জিয়ার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার দশম দিন। এই সময়টা করোনা রোগীর জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ বা বিপজ্জনক বলা হয়। এখন বেগম জিয়া করোনার বিপজ্জনক সময় পার করছেন। তারপরও তার যে শরীরের অবস্থা তা মোটামুটি ভালো। বেগম জিয়া মানসিকভাবে খুবই শক্ত আছেন এবং তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে।

তিনি বলেন, গত তিন দিন থেকে বেগম জিয়ার গায়ে সামান্য জ্বর ওঠানামা করছিল। আজ সারাদিন তার কোনো জ্বর নেই। আগামী ৪৮ ঘণ্টা এ অবস্থা বিরাজ করলে বলতে পারব-আমরা একটা নিরাপদ জোনে চলে আসছি। আমরা তার শ্বাস-প্রশ্বাস ব্যায়ামের পরামর্শ দিয়েছি। তার ব্লাড সুগারসহ অন্যান্য যেসব প্যারামিটার রয়েছে সেগুলো ঠিক আছে। তার কাশি নেই, গলা ব্যথা নেই। তার সবকিছু এখন পর্যন্ত স্থিতিশীল আছে।

তিনি বলেন, আমরা সব পরীক্ষা করিয়েছি। তার সবগুলো রিপোর্টই ভালো এসেছে। সবচেয়ে বড় কথা- খালেদা জিয়া নির্দ্বিধায় আমাদের সাথে কো-অপারেশন করছেন।

এ সময় তার সঙ্গে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, অধ্যাপক ডা. শাকুর খান, ডা. মোহাম্মদ আল মামুন উপস্থিত ছিলেন।

রাত সাড়ে ৯টায় একটি বেসরকারি হাসপাতালের একজন টেকনোলজিস্ট খালেদা জিয়ার বাসা ফিরোজায় প্রবেশ করেন। তিনিও প্রায় দুই ঘণ্টা সেখানে অবস্থান করেন।

উল্লেখ্য, গত ১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনা শনাক্ত হয়। এর পর থেকে মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এফ এম সিদ্দিকীর নেতৃত্বে একটি দল তাঁকে চিকিৎসা দিচ্ছেন। এই দলের সদস্যরা জুমে বৈঠক করে খালেদা জিয়ার সর্বশেষ অবস্থা পর্যালোচনা করেন। এসব বৈঠকে লন্ডন থেকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমানও থাকেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন ছাড়াও গুলশানে ফিরোজার বাসায় তাঁর গৃহকর্মীসহ আরো আটজন স্টাফ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে দুজন বাড়ি চলে গেছেন এবং বাকিরা ফিরোজায় চিকিৎসা নিচ্ছেন।

৭৫ বছর বয়সী সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া দুর্নীতির দুই মামলায় দণ্ডিত হয়ে কারাগারে ছিলেন। গত বছরের ২৫ মার্চ শর্তসাপেক্ষে তাঁকে সাময়িক মুক্তি দেয় সরকার।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*