Wednesday , 4 August 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » উত্তরবঙ্গের বর্ষীয়ান নেতাসিরাজুল ইসলামের ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী
উত্তরবঙ্গের বর্ষীয়ান নেতাসিরাজুল ইসলামের ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী

উত্তরবঙ্গের বর্ষীয়ান নেতাসিরাজুল ইসলামের ২৪তম মৃত্যুবার্ষিকী

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ আজ ২ জুন, ১৯৯৭ সালের এই দিনে পৃথিবীর বুক ছেড়ে পরপারে চলে গিয়েছিলেন উত্তরবঙ্গের বর্ষীয়ান নেতা ও উত্তরবঙ্গের বাঘ খ্যাত জননেতা মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠন বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম। আজ তার মৃত্যুর ২৪ বছর পূর্ণ হলো। 
বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলামের ২৪তম মুত্যুবার্ষিকী করোনার কারণে সীমিত পরিসরে কবর জিয়ারত ও মিলাদ মাহফিলের মধ্য দিয়ে মুত্যুবার্ষিকী পালিত হবে বলে তার পরিবার থেকে জানানো হয়। 
উত্তরবঙ্গের বর্ষীয়ান নেতা সিরাজুল ইসলাম বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ পঞ্চগড় জেলা শাখার সাবেক সভাপতি ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রথম আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। 
এছাড়াও তিনি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিশ্বস্ত সহচর এই গুণী মানুষটি মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন ৬ নং সেক্টরের বেসামরিক উপদেষ্টা ছাড়াও জাতীয় সংসদের ৪ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য ছিলেন। 
অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম ৪০ দশকে পঞ্চগড় জেলার বোদা উপজেলার ময়দানদিঘী ইউনিয়নের মহাজনপাড়ায় এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম ইমাজ উদ্দীন ও মায়ের নাম কবিজান নেছা। 
ছাত্র জীবন থেকেই ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে সক্রিয়ভাবে জড়িয়ে ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের তৎকালীন সময়ে প্রত্যক্ষ সংগ্রামে তিনি অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছিলেন। 
সিরাজুল ইসলাম ৫২ এর ভাষা আন্দোলন ৬২’র শিক্ষা আন্দোলন ৬৬ ছয় দফা এবং সর্বোপরি ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। তিনি ছাত্রলীগের বৃহত্তর দিনাজপুর জেলার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছিলেন এবং একাধারে রাজশাহী বিভাগীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। এ ছাড়াও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক এবং ডাকসুর সহ-সম্পাদকের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে আসীন ছিলেন। 
১৯৭০ সালে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য হিসেবে পঞ্চগড় থেকে নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে ৬নং সেক্টরের বেসামরিক উপদেষ্টা হিসেবে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে তেঁতুলিয়াকে মুক্তাঞ্চলের তীর্থভূমি হিসেবে সারা বিশ্বের কাছে পরিচিত করান। বঙ্গবন্ধুর ২য় বিপ্লব কর্মসূচীর ডাকে সাড়া দিয়ে বাকশালের ঠাকুরগাঁও জেলার সাধারণ সম্পাদক মনোনিত হন। এ ছাড়াও তিনি একাধিকবার জাতীয় সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন। 
আমৃত্যু তিনি পঞ্চগড় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনার কর্মসূচি বাস্তবায়নে অগ্রণী ভূমি পালন করেছেন। উত্তরবঙ্গের বাঘ খ্যাত জননেতা মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠন বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট সিরাজুল ইসলাম বেশ পরিচিত ছিল। 
জাতির তথা উত্তরবঙ্গের এই শ্রেষ্ঠ সন্তানকে সম্মান জানিয়ে  তাঁরে নামে পঞ্চগড়ে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেল স্টেশন, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম স্টেডিয়াম, সাবেক পুঠিমারী ছিটমহলের নাম পরিবর্তন করে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম নগর ও নবাবগঞ্জ বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম উচ্চ বিদ্যালয়ের নামকরণ করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম বর্তমান গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী ও পঞ্চগড় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন এমপির বড় ভাই।  তার পুরো পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। প্রয়াত বর্ষীয়ান নেতা সিরাজুল ইসলামের ভাগিনা আ স ম গোলাম ফারুক রুবেল ঠাকুরগাঁও জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ভাগিনা নজমুল হুদা শাহ এ্যাপোলো ঠাকুরগাঁও জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*