Sunday , 1 August 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » দ্রুত রহস্য উদঘাটনের এক অনন্য দৃষ্টান্ত মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ
দ্রুত রহস্য উদঘাটনের এক অনন্য দৃষ্টান্ত মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ
--প্রেরিত ছবি

দ্রুত রহস্য উদঘাটনের এক অনন্য দৃষ্টান্ত মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: মৌলভীবাজার জেলা পুলিশ সম্প্রতি দ্রুততম সময়ে চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা, ইয়াবা,গাজা,চোলাইকৃত মদ উদ্ধারসহ আসামি গ্রেফতার,ভূয়া ফেসবুক প্রতারক,সিএনজি-অটোরিকশা ও মোটরসাইকেল চোর চক্রকে গ্রেফতার,চোরাইকৃত মালামাল উদ্ধার সহ বেশ কিছু উল্লেখযোগ্য সাফল্য অর্জন করেছে।মঙ্গলবার (২২ জুন) সকালে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার অভিযানের বিভিন্ন সফলতাসমূহ তুলে ধরেন- গত ৫ জুন জনৈক আব্দুর রহিম (৬৭) এর ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চুরি হয়।এ ঘটনায় ভুক্তভোগীর অভিযোগের প্রেক্ষিতে জুড়ি থানা পুলিশ অভিযানপূর্বক আন্তঃজেলা সিএনজি-অটোরিকশা চোর চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার এবং চোরাইকৃত ৩ টি অটোরিকশা উদ্ধার করে।

ডিবি কর্তৃক গ্রেফতার: গত ২১ জুন সদর মডেল থানাধীন চৌমুহনী অবস্থান করাকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ইসলামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে ডিবি পুলিশ কর্তৃক ৫২ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ একজন আসামীকে গ্রেফতার করে।
বড়লেখায় ভূয়া ১০/১২ টি ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে সুজন রায় (১৮) মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন থানার হিন্দুধর্মাবলম্বী কিছু মেয়ের সাথে ফেসবুক ফ্রেন্ডের সুত্র ধরে তাদের অশ্লীল ছবি পাঠিয়ে ব্লাকমেইল করে। বিগত এক বছর আগে থেকে সে এসব কাজ শুরু করে মেয়েগুলোর অশ্লীল কনটেন্ট তার ফেক আইডি গুলোতে ছড়িয়ে দিয়ে তাদের কাছে টাকা চায় এবং নানারকম অনৈতিক প্রস্তাব প্রেরণ করে। সে শুভদৃষ্টি নামক একটি গ্রুপের সদস্য ছিল। এ প্রক্রিয়ায় দুটি মেয়ের কাছে থেকে বিকাশ নাম্বারে ২০ হাজার টাকা কালেক্ট করে এবং অন্যান্য মেয়েগুলোকে একইভাবে টাকা না দিলে তাদের ছবিগুলো ফেসবুকে ছড়িয়ে দিবে বলে হুমকি দিয়েছিল। উক্ত মেয়েদের সঙ্গে সে ফেসবুক ফ্রেন্ডের সুত্র ধরে অশ্লীল ছবি যুক্ত করে তাদেরকে বিভিন্ন হুমকি দিয়েছে বলে স্বীকার করে। এছাড়া সে সাতটি মেয়ের আইডি হ্যাক করেছে মর্মে স্বীকার করে এই আইডিগুলোতেও অশ্লীল ছবি আপলোড করে টাকা দাবি করেছে।

শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ কর্তৃক উদ্ধার ও গ্রেফতার: গত ২১ জুন সকাল ৯ ঘটিকায় শ্রীমঙ্গল থানাধীন মির্জাপুর ইউপির দক্ষিণ পাচাউন সাকিনে জনৈক মাখন দেবের জমিতে ডান পায়ের উরু হতে পায়ের পাতা পর্যন্ত খন্ডিত একটি অঙ্গ পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। শ্রীমঙ্গল সার্কেলের পুলিশ সুপার ও শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ সঙ্গীয় অফিসার ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ঘটনাস্থলের আশপাশের এলাকা পরিদর্শন করে। পরিদর্শন পূর্বক ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনের লক্ষ্যে মৃতদেহের অবশিষ্ট অংশ উদ্ধারে ব্যাপক তৎপরতায় আশপাশ খোঁজাখুঁজির পর ১:৩০ ঘটিকায় জনৈক দূর্গেশ দত্তের বাঁশঝাড়ের ভিতর অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির ডান হাতের কনুই হতে আঙ্গুল পর্যন্ত একটি অঙ্গ আংশিক শিয়ালে খাওয়া অবস্থায় এবং জনৈক গৌরাঙ্গ দত্তের বাঁশ ঝাড়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির বাম হাতের কনুই হতে আঙ্গুল পর্যন্ত অপর একটি অঙ্গ আংশিক শিয়ালে খাওয়া অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জেলা পুলিশের পাশাপাশি পিবিআই, মৌলভীবাজারের একটি টিম অজ্ঞাত নামা মৃত ব্যক্তির পরিচয় শনাক্ত সহ রহস্য উদঘাটনে প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে।

গত ১ জুন হতে ২১ জুন পর্যন্ত শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ বিভিন্ন এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৫৭২ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ১২ কেজি ৭০০ গ্রাম গাঁজা ও ৪৮ লিটার চোলাই মদ উদ্ধারসহ ১৬ জন আসামী গ্রেফতার করে‌। উদ্ধারকৃত মাদকের সর্বমোট মূল্য ৩ লক্ষ ৭৮ হাজার টাকা। মাদক উদ্ধারের ঘটনায় শ্রীমঙ্গল থানায় ১৩টি মামলা রুজু করা হয়।

গত ১৫ জুন ৫:০৫ ঘটিকায় মোঃ আব্দুছ ছালেক অফিসার ইনচার্জ, শ্রীমঙ্গল থানা,মৌলভীবাজার এবং পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত কমিটির নেতৃত্বে সঙ্গীয় অন্যান্য আরো অফিসার ফোর্স অত্র থানাধীন লছনা কালী মন্দিরের দক্ষিণ পাশে হবিগঞ্জ টু মৌলভীবাজার গামী সড়কে অভিযান পরিচালনা করে বিপুল পরিমাণ গাঁজাসহ ২ জন আসামীকে গ্রেফতার করে। উদ্ধারকৃত মাদক ১২ কেজি গাঁজা,যার আনুমানিক মূল্য ১লক্ষ ৮০ হাজার টাকা। এ সময় তাদের সাথে থাকা একটি পুরাতন গাড়িও উদ্ধার করা হয়।
গত ৬ জুন রাত ১০:২৫ মিনিটে মোঃ আব্দুছ ছালেক অফিসার ইনচার্জ , শ্রীমঙ্গল থানা এবং পুলিশ পরিদর্শক(তদন্ত) মোঃ হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে আরো অন্যান্য অফিসার ও ফোর্সদের নিয়ে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শ্রীমঙ্গল থানাধীন কুঞ্জবনে মোতালেব মিয়ার বাড়ির মাদক ব্যবসায়ী আইয়ুব মিয়া আইয়ুব আলীর বসতঘরে অভিযান পরিচালনা করে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে। উদ্ধারকৃত মাদকের মূল্য আনুমানিক ১লক্ষ ২০হাজার ৬০০ টাকা।
গত ১২ জুন শ্রীমঙ্গল থানাধীন শান্তিবাগ এলাকায় গৃহবধূ জুমা বেগম (২০) এর রহস্যজনক মৃত্যুতে তার ভাই থানায় বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। উক্ত মামলা রুজুর পরপরই শ্রীমঙ্গল থানা পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে মামলার এজাহারনামীয় আসামিকে গ্রেফতার করে।
গত ১৩ জুন বিকাল ৪:৩০ মিনিটে শ্রীমঙ্গল থানাধীন ভাড়াউড়া চা বাগান রামপুরা এলাকায় জমিতে বেড়া দেয়াকে কেন্দ্র করে আপন দুই ভাইয়ের মধ্যে ঝগড়া হয়। তারপর ভাতিজার আঘাতের ফলে চাচা নারায়ণ হাজরা গুরুতর জখম প্রাপ্ত হয়ে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৪ জুন মৃত্যুবরণ করেন। উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে রুজুকৃত মামলার আসামিদের কে থানা পুলিশ অভিযান পরিচালনা পূর্বক গ্রেফতার করে।

গত ৯ জুন রাত ৯:৩৫ মিনিটে শ্রীমঙ্গল থানাধীন উত্তর কালাপুর এলাকা হতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানা পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে আন্তঃজেলা চোরের সক্রিয় সদস্য সহ একটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করে।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া মাদক নিয়ন্ত্রন, সন্ত্রাস দমন, চাঁদাবাজি রোধ, চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতি প্রতিরোধসহ মৌলভীবাজার জেলার সামগ্রিক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় জেলা পুলিশকে বিভিন্নভাবে তথ্য দিয়ে সহায়তার আহবান করেন। ভবিষ্যতে সাংবাদিকদের সাথে চলমান সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে মৌলভীবাজার বাসীর নিরাপত্তায় একসাথে কাজ করবেন বলে প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*