Thursday , 29 July 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » জাতীয় » দেশে সপ্তাহে ৩ দিন ভারত থেকে প্রবেশ করা যাবে
দেশে সপ্তাহে ৩ দিন ভারত থেকে প্রবেশ করা যাবে

দেশে সপ্তাহে ৩ দিন ভারত থেকে প্রবেশ করা যাবে

অনলাইন ডেস্ক:

করোনা ঠেকাতে চলমান লকডাউনের মধ্যে ভারতে আটকা পড়া বাংলাদেশিরা শুধু স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকতে পারবেন। সরকার অনুমোদিত স্থলবন্দর ব্যবহার করে সপ্তাহে তিন দিন ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করা যাবে। রবি, মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার স্থলবন্দর দিয়ে তাঁরা দেশে ঢুকতে পারবেন। আজ রবিবার (৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ভার্চুয়াল বুলেটিনে এ তথ্য জানান অধিদপ্তরের মুখপাত্র অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম।

বাংলাদেশের অনেক নাগরিক চিকিৎসা ও অন্যান্য কারণে প্রতিবেশী দেশ ভারত ও অন্যান্য দেশে ভ্রমণ করে থাকেন এবং সরকারের যেসব নিয়ম-কানুন আছে, সেগুলো প্রতিপালন করে তারা অনেকেই স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন বলে জানান অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘কলকাতায় আমাদের যে উপহাইকমিশন আছে, সেখান থেকে একটি সিদ্ধান্ত জানানো হয়েছে। ভারতে অবস্থানরত নাগরিকরা অনুমোদিত স্থলবন্দর- বেনাপোল, আখাউড়া, বুড়িমারী, হিলি, দর্শনা ও সোনা মসজিদ বন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারবেন। আগামী ১৪ জুলাই পর্যন্ত সপ্তাহে তিন দিন রবি, মঙ্গল ও বৃহস্পতিবার স্থলবন্দর ব্যবহার করে দেশে আসা যাবে।’

অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম অক্সিজেন নিয়ে বলেন, দেশে সামগ্রিকভাবে অক্সিজেন সরবরাহের কোনো সংকট নেই। এমনকি উৎপাদনেরও কোনো সংকট নেই। দেশে যারা অক্সিজেন উৎপাদন করেন, তাদের প্রত্যেকের সঙ্গে আমরা প্রতিনিয়ত বৈঠক করছি। প্রতিদিনই তাদের আমরা আমাদের চাহিদা জানিয়ে দিচ্ছি। কাজেই এই মুহূর্তে অক্সিজেনের কোনো সংকট নেই। কিন্তু রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেলে সেটি আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

অক্সিজেনের অভাবে মৃত্যু প্রসঙ্গে ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, অক্সিজেনের অভাবে বিভিন্ন জেলায় কিছু রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ আমাদের কাছে এসেছে। এ ঘটনায় আমরা একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছি, তদন্ত প্রতিবেদন আসবে, সেটি হাতে পাওয়ার পর নিশ্চয়ই আমরা আপনাদের সঙ্গে কথা বলব। কিন্তু দেশে অক্সিজেনের কোনো সংকট নেই। দেশে প্রতিদিন যে পরিমাণ অক্সিজেনের চাহিদা রয়েছে, তার চেয়েও বেশি পরিমাণ অক্সিজেন উৎপাদন হয়। গত কদিন আমাদের অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংখ্যা বেড়েছে।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*