Monday , 26 July 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » উপজেলার খবর » মোহনগঞ্জ বাহাম আশ্রায়ণ পল্লীর ৭ টি ব্যারাকের জরাজীর্ণ অবস্থা, প্রশাসনিক জটিলতায় ফেরত গেলো টাকা
মোহনগঞ্জ বাহাম আশ্রায়ণ পল্লীর ৭ টি ব্যারাকের জরাজীর্ণ অবস্থা, প্রশাসনিক জটিলতায় ফেরত গেলো টাকা
--প্রেরিত ছবি

মোহনগঞ্জ বাহাম আশ্রায়ণ পল্লীর ৭ টি ব্যারাকের জরাজীর্ণ অবস্থা, প্রশাসনিক জটিলতায় ফেরত গেলো টাকা

মোহনগঞ্জ (নেত্রকোনা) সংবাদদাতা:

নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার ১ নং বড়কাশিয়া বিরামপুর ইউনিয়নের বাহাম আশ্রায়ণ পল্লীতে ৭ টি ব্যারাকের জরাজীর্ণ ঘরে বসবাসরত জনগণ চরম দুভোর্গ পোহাচ্ছে। অপরদিকে মেরামতের ৯ লাখ ৯০ হাজার টাকা প্রশাসনিক জটিলতায় কাজ না করায় ফেরত গিয়েছে।
সরেজমিনে (শনিবার,১০ জুলাই) দেখা যায়,  অত্র জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার বাহাম আশ্রায়ণে ৭ টি ব্যারাকের অবস্থা খুবই নাজুক। ঘরের চাল, বেড়া ভেংগে গেছে। ৭ টি ব্যারাকের ৭০ টি পরিবারের বাসিন্দারা চালের উপর পলিথিন দিয়ে কোন রকম বসবাস  করছে। বৃষ্টি আসলে ঘরে পানি পড়ে। বেড়া না থাকায় প্রচন্ড বাতাসে ঘরে থাকা দায়। ৭০ টি পরিবারের মধ্যে ৪৫/৪৭ টি পরিবারের  প্রায় ২৫০ জন লোক মানবেতর জীবন যাপন করছেন। মেরামত কাজের জন্য ৯ লাখ  ৯০ হাজার টাকা এসেছিল। পি আই ও বদলি হওয়ায় নতুন কর্মকর্তা আজ নয় কাল কাজ ধরবেন বলে সময় ক্ষেপন করেন। স্থানীয় প্রশাসন বিলম্বে পিলার তৈরীর কাজ শুরু করেন। ৪৯ টি সিমেন্টের পিলার আশ্রায়ণে তৈরী করেন। আশ্রায়ণের রমজান আলী, নাসিমা, মনি, আবুল হোসেন, আলেয়া বলেন, বছর খানেক আগে উপজেলার বিভিন্ন কর্মকর্তা এসে বলেন, মেরামতের টাকা এসেছে। কিছু দিনের মধ্যে ঘরগুলো পুনঃ মেরামত করা হবে। আমরা উক্ত সংবাদ শুনে খুশী হই। বর্তমান পি আই ও এসে উক্ত জায়গায় ৪৯ টি সিমেন্টের পিলারও তৈরী করেন।  এ ব্যাপারে পি আই ও রকিবুল হাসানের সাথে মোবাইলে কথা হলে বলেন, মেরামতের জন্য পিলার তৈরী করে ছিলাম। পরে দেখি চেকের মেয়াদ শেষ। তাই কাজ না করে টাকা ফেরত পাঠাতে হলো। কার অবহেলায় যথাসময়ে কাজ শেষ হলো না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি কোনো সদোত্তর দিতে পারেননি।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*