Thursday , 29 July 2021
ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » ভাংগারি ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে ছিনতাইয়ের অভিযোগ
ভাংগারি ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে ছিনতাইয়ের অভিযোগ

ভাংগারি ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে ছিনতাইয়ের অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি।।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের কামাল মোল্লা (৬০) নামের এক ভাংগারি ব্যবসায়ীকে ডেকে নিয়ে ছিনতাই করার অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার (১৪ জুলাই) রাত পৌনে ৯টার দিকে টেংকেরপাড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

কামাল মোল্লা নাটাই উত্তর ইউনিয়নের নাটাই পূর্বপাড়া গ্রামের সলিমের বাড়ির মৃত সরুজ মিয়া ছেলে।

ঘটনাস্থল ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, বুধবার সন্ধ্যার পর কালাইশীপাড়া কামাল মোল্লার ভাংগাড়ির দোকানে অপরিচিত এক যুবক আসে৷ টেংকের পাড় একটি বিল্ডিংয়ে কিছু ভাংগাড়ির মাল আছে যা খুব কম দামে বিক্রি করবে, একথা বলে কামাল মোল্লাকে নিয়ে যান ওই যুবক। সে কামাল মোল্লাকে টেংকেরপাড় মুন্সীবাড়ির নামের ৫ তলা একটি বিল্ডিংয়ের ছাদের উপর নিয়ে যায়। ওইখানে কামাল মোল্লাকে ভাংগাড়ির মাল না দিয়ে তাকে ঝাপটিয়ে ধরেন। এক পর্যায়ে ধস্তাধস্তির পর ওই যুবক ইট দিয়ে কামাল মোল্লার মাথায় আঘাত করেন। ওই যুবক কামাল মোল্লার কাছ থেকে নগদ ৪২ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

ওই বিল্ডিংয়ের মালিক মো. মাতিন আহমেদ জানান, কামাল মোল্লাকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখে তাকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। ওই ছিনতাইকারী তাদের ছাদ থেকে অন্য ছাদ দিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় তাকে ধরা যায়নি।

আহত কামাল মোল্লা জানান, যে যুবক তাকে ভাংগাড়ির মাল দেওয়ার কথা বলে নিয়ে গেছে, তার ছেলের মোবাইল ফোনে ওই যুবকের ছবি দেখে চিনেছেন। পরে তিনি ছিনতাইকারীর খপ্পরে পড়েছে বলে বুঝতে পারেন। তার কাছ থেকে টাকা ও মোবাইল নিয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

এব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনাটি নিয়ে একজন অফিসার কাজ করছেন। কামাল মোল্লাকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। বিল্ডিংয়ের সিসিটিভির ফুটেজ না দেখে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে এব্যাপারে এখনও কোন অভিযোগ হয়নি।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*