Tuesday , 16 July 2024
E- mail: news@dainiksakalbela.com/ sakalbela1997@gmail.com
ব্রেকিং নিউজ
আনন্দ উৎসবে শ্রদ্ধায় জাতির পিতার ১০১তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত
--সংগৃহীত ছবি

আনন্দ উৎসবে শ্রদ্ধায় জাতির পিতার ১০১তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপিত

অনলাইন ডেস্ক:

জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ড থেকে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর, রাজধানী থেকে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া, দেশের সব বিভাগ, জেলা, উপজেলা, এমনকি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বাংলাদেশ হাইকমিশন ও দূতাবাস—সর্বত্র একই দৃশ্য। করোনা মহামারির মধ্যেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে অগণিত মানুষের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে গতকাল বুধবার উদযাপিত হয়েছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস।

ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

সকালে ধানমণ্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় সশস্ত্র বাহিনীর একটি সুসজ্জিত দল রাষ্ট্রীয় সালাম জানায়। সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ  সময় সেখানে বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে ও প্রধানমন্ত্রীর ছোট বোন শেখ রেহানা, স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

পরে সকাল সাড়ে ১১টার দিকে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জ্যেষ্ঠ নেতাদের সঙ্গে নিয়ে দলের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এরপর ছাত্রলীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, মহিলা লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, যুব মহিলা লীগ, কৃষক লীগসহ আওয়ামী লীগের অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন এবং বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন

অন্যদিকে সকালে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের পক্ষে তাঁর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে তাঁর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল নাকিব আহমেদ চৌধুরী সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। এ সময় সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার দেয়। পরে বঙ্গবন্ধু, তাঁর স্ত্রী ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ পঁচাত্তরের ১৫ই আগস্টের শহীদদের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

এরপর আওয়ামী লীগ সভাপতির পক্ষে ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয় ফুল দিয়ে। পরে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠন এবং বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষে বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানো হয়। এ সময় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য লে. কর্নেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, জাহাঙ্গীর কবির নানক, শাজাহান খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, গোপালগঞ্জ আওয়ামী লীগের সভাপতি চৌধুরী এমদাদুল হক, সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আবুল বশার খায়ের, সাধারণ সম্পাদক মো. বাবুল শেখসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সকাল ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের পাবলিক প্লাজার বকুলতলা চত্বরে মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসার সভাপতিত্বে শিশু-কিশোর সমাবেশ শুরু হয়। ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। পরে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। এর আগে মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে কেক কেটে জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করা হয়।

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে সমাধিতে মানুষের ঢল নামে। সর্বস্তরের মানুষ ‘শুভ শুভ শুভ দিন, বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন’ স্লোগানে মুখরিত করে তোলে সমাধি এলাকা। শ্রদ্ধার ফুলে ফুলে ছেয়ে যায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ। দিনটি উপলক্ষে টুঙ্গিপাড়া বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। সারা উপজেলায় উৎসবের আমেজ।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা

সকালে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির কার্যালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে আলোচনাসভা

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে ঢাকায় টিসিবি মিলনায়তনে আলোচনাসভার আয়োজন করে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। বাণিজ্যসচিব ড. মো. জাফর উদ্দীনের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের চেয়ারপারসন সাবেক বাণিজ্যসচিব মো. মফিজুল ইসলাম, বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান (সচিব) মুনশি শাহাবউদ্দীন, বাংলাদেশ ফরেন ট্রেড ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আলী আহমেদ প্রমুখ।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজনে ভার্চুয়াল আলোচনাসভা

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে গতকাল এক ভার্চুয়াল আলোচনাসভার আয়োজন করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। অধ্যাপক আবদুল মতিন চৌধুরী ভার্চুয়াল ক্লাসরুম থেকে চলা এই ভার্চুয়াল আলোচনাসভায় ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক মো. রহমত উল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. নিজামুল হক ভূইয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সভা পরিচালনা করেন রেজিস্ট্রার মো. এনামউজ্জামান।

সভা শেষে উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের সদস্যরা ধানমণ্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে এদিন ধানমণ্ডিতে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরসহ দেশব্যাপী আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। সারা দেশেই বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উদযাপন করে জাতি।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply