ব্রেকিং নিউজ
Home » দৈনিক সকালবেলা » বিভাগীয় সংবাদ » জেলার-খবর » উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জামালকে আবার চেয়ারম্যান হিসেবে চাই এলাকাবাসী
উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জামালকে আবার চেয়ারম্যান হিসেবে চাই এলাকাবাসী

উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে জামালকে আবার চেয়ারম্যান হিসেবে চাই এলাকাবাসী

জেলা প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া।।
২০১১ সালের আদমশুমারী অনুযায়ী বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা ১৬,৬৭২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৮,১২০ জন এবং মহিলা ৮,৫৫২ জন। মোট পরিবার ৩,৪৩৭টি। এলাকায় মোট ভোটার ১২,৫৩২ জন। যার মধ্যে মহিলা ভোটার ৭,০৩২ জন ও পুরুষ ভোটার ৫,৫০০ জন৷
উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন ভূইয়াকে আবার চেয়ারম্যান হিসেবে চাচ্ছে এলাকাবাসী।।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে গত ৫ বছরে ৩০কোটি ৩৮ লক্ষ ২৬ হাজার ৫৫১ টাকার উন্নয়ন হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প চলমান আছে।
রোববার (১০ অক্টোবর) দুপুরে এক মতবিনিময়ে ইউনিয়নবাসীর সামনে গত ৫ বছরের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের সফল চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন ভূইয়া।
এসময় গত ৫ বছরের উন্নয়ন ও নানান কর্মকাণ্ড নিয়ে চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন ভূইয়া জানান, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দেন, প্রতিটি গ্রাম হবে শহর। সেই লক্ষ্যে গত ৫ বছরে আধুনিক ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উন্নয়নের রূপকার জননেতা র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরীর সার্বিক দিক-নির্দেশনায় বিষ্ণুপুর ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়নে কাজ করা হয়েছে। স্কুল, সড়ক যোগাযোগ, ব্রিজ-কালভার্ট, বিদ্যুৎ লাইন সম্প্রসারণ, বয়স্ক-বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতা, মসজিদের উন্নয়ন কাজ ইতিমধ্যে বাস্তবায়ন করা হয়েছে। যার মধ্যে ইউনিয়নের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্কুলে ১৩টি প্রকল্পের মাধ্যমে ৭ কোটি ৮৪ লক্ষ ২১ হাজার টাকার কাজ করা হয়েছে। যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নয়নে ১৭টি প্রকল্পে ১৩ কোটি ৭৪ লক্ষ ১ হাজার টাকা ব্যয়ে সড়কের কাজ করা হয়েছে। এক কোটি ৮৯ লক্ষ ৯২ হাজার টাকা ব্যয়ে ৬টি সড়ক মেরামত করা হয়েছে। এক কোটি সাড়ে ৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৬টি কালভার্ট-ব্রিজ করা হয়েছে। এল.জি.এস.পি-২ ও ৩ প্রকল্পে এক কোটি ৬২লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৯৬টি কাজ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। এডিপি উন্নয়ন তহবিলের ৬৩ লক্ষ ৩২হাজার টাকা ব্যয়ে ৩২টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। ইউ.পি.জি.পি’র মাধ্যমে দুইটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। অতি-দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচি, টিআর-কাবিখা, বিশেষ বরাদ্দ, জেলা পরিষদের মাধ্যমে প্রকল্প বিগত ৫ বছরে বাস্তবায়ন করা হয়েছে।
এছাড়া ৭ হাজার ৪৮৮ জন বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী, মাতৃত্বকালীন, ভিজিডি ও ভিজিএফ প্রকল্পের মাধ্যমে সুবিধা ভোগ করছেন৷ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মাধ্যমে ৫৩.০৬ কিলোমিটার বৈদ্যুতিক লাইন সম্প্রসারণ করা হয়েছে। এছাড়াও আরও অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ণাধীন আছে। যার ফল আমার প্রাণপ্রিয় ইউনিয়নবাসী অচিরেই ভোগ করবে।
তিনি আরও বলেন, আমি আমার ইউনিয়নবাসীর সেবা করার জন্য আবারও চেয়ারম্যান হিসেবে প্রার্থী হতে চাই। যদি আমার দল, ইউনিয়নবাসী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়াবাসির প্রিয় নেতা র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এমপি আমাকে যোগ্য মনে করেন। আপনাদের ভালবাসা নিয়ে আমি বেঁচে থাকতে চাই।
ইউনিয়ন পরিষদে আয়োজিত বিশিষ্ট সমাজসেবক গিয়াস উদ্দিন ভূইয়ার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায়  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ডের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।
উক্ত সভায় বক্তব্য রাখেন উপজেলা ক্রিড়া সংস্থার সহ-সভাপতি সার্জেন (অব.) কাঞ্চন আলী, আওয়ামী লীগের পক্ষে বক্তব্য রাখেন ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন, সুধী সমাজের পক্ষে বক্তব্য রাখেন সামসুল হক মাস্টার।

About Syed Enamul Huq

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*